রোববার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ৮ বৈশাখ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

হঠাৎ বার্সেলোনায় কেন এমবাপ্পে?

এমবাপ্পেকে বিদায় দেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে পিএসজি

আপডেট : ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৩:১১

পিএসজি যদি বাংলাদেশের ক্লাব হতো তাহলে কেমন হতো! হয়তো নাসের আল খেলাইফি এখন আব্দুল হাদির গান শুনতেন—‘চলে যায় যদি কেউ বাঁধন ছিড়ে / কাঁদিস কেন মন / ভাঙ্গা গড়া এই জীবনে আছে সর্বক্ষণ।’ যাদের ওপরে তিনি চোখ বন্ধ করে ভরসা করেছিলেন, তারা কেউ আস্থার প্রতিদান দেয়নি। দলকে বিপদে রেখে মহাতারকারা বিদায় নিয়েছেন। লিওনেল মেসি, নেইমার জুনিয়র, সার্জিও রামোসদের গল্পের ইতি টানতে যাচ্ছেন নিজে দেশের সন্তান কিলিয়ান এমবাপ্পে। পিএসজি থেকে চলে যাবেন বলে গোঁ ধরেছেন। সেখানে মজা করে বাংলাদেশের ক্লাব চট্টগ্রাম আবাহনী এমবাপ্পেকে কেনার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন।

তবে এদিক-ওদিক নয়, এমবাপ্পে ছুটছেন সোজা রিয়াল মাদ্রিদ বরাবর। যেখানে সাইনিং বোনাস হিসেবে একটি বড় অঙ্কের টাকা পাচ্ছেন ২০১৮ সালের বিশ্বকাপজয়ী এই তারকা। আর তার বেতন হবে ভিনিসিউস জুনিয়র, জুড বেলিংহামদের সমান। যদিও তাদের বেতনের থেকে কম পাবেন বলে এর আগে কথা উঠেছিল। আবার বেশি পাওয়ার তথ্যও জানিয়েছিল বিশ্বের শক্তিশালী গণমাধ্যমগুলো। সেসব কেবলই বাতাসে ভাসা কথা। চুক্তির বিষয়টি না জানা পর্যন্ত এসব কথা এভাবেই শোনা যাবে, এটিই স্বাভাবিক। 

পিএসজির জার্সিতে এখন পর্যন্ত ২৯১টি ম্যাচে ২৪৪টি গোল করেছেন এমবাপ্পে। আর গোলে সহায়তা করেছেন ৯৩ বার। অর্জনের খাতায় কেবল একটি লিগ শিরোপা। বিষয়টি এমবাপ্পের নামের পাশে বড্ড বেমানান। সেটি বুঝতে পারেন পিএসজির সভাপতি নাসের আল খেলাইফি। তাতে এখন আর ফ্রান্সের এই ফুটবলারকে আটকানোর বৃথা চেষ্টা করছেন না। এমবাপ্পে ক্লাবকে কী এনে দিতে পেরেছে, এমন প্রশ্ন মনে পুষে হয়তো পিএসজির মালিকও ক্ষোভে ফুঁসছেন। সবমিলিয়ে বিদায়ের সুরে এক হয়েছে এমবাপ্পে ও পিএসজি। 

এই মুহূর্তে রাস্তা একটাই খোলা আছে, নিয়ম মেনে বিদায়ের আনুষ্ঠানিকতা শেষ করা। জানা গেছে, কয়েক সপ্তাহ আগেই লস ব্ল্যাঙ্কোসদের সঙ্গে চুক্তি সেরেছেন এমবাপ্পে। এবার পিএসজি বিদায়ের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিলে নতুন চুক্তি বিষয়টি সামনে আনতে পারেন ফরাসি তারকা। তবে পুরোনো চুক্তি অনুযায়ী, আগামী জুন পর্যন্ত পার্ক দেস প্রিন্সেসেই থাকতে হবে এমবাপ্পেকে।

অন্যদিকে হঠাৎ বার্সেলোনায় দেখা গেছে এমবাপ্পেকে। জানা গেছে, দুই দিনের ছুটি পেয়ে তিনি আশরাফ হাকিমিকে সঙ্গে নিয়ে কাতালান শিবিরে সময় কাটাতে গেছেন। সেখানকার রেস্টুরেন্টে ঘুরেছেন। দেখা করেছেন ক্লাবটির পরিচালকের সঙ্গেও। তবে সেটি এমবাপ্পে ব্যবসায়ের প্রয়োজনে করেছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। দুই রাত সময় অতিবাহিত করে গতকাল বার্সা থেকে ফ্রান্সে ফিরেছেন। কাতালান শিবিরে থাকাকালীন অটোগ্রাফ দিয়েছেন সমর্থকদের। তবে সে সময়ে তিনি ক্লাব ভবিষ্যৎ নিয়ে কোনো মন্তব্য করেননি। যদিও স্পেন এবং ফ্রান্স থেকে দাবি করা হচ্ছে, এমবাপ্পে রিয়াল মাদ্রিদেই যাচ্ছেন।

ইত্তেফাক/জেডএইচ