মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

পরিবেশ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ক্লাব হবে ঢাবিতে

আগামী মাসে সব হলে শুরু হবে কার্যক্রম

আপডেট : ২১ মার্চ ২০২৪, ০২:১৫

দুর্যোগের সময় করণীয় সম্পর্কে ধারণা না থাকায় অনেক সময় বিচলিত হয়ে পড়ে মানুষ। তাই দুর্যোগকালীন সময়ে শিক্ষার্থীদের করণীয় সম্পর্কে সঠিক দিকনির্দেশনা প্রদান ও বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশ রক্ষায় সচেতনতা বৃদ্ধিতে উদ্যোগী হয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। এজন্য পরিবেশ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ক্লাব প্রতিষ্ঠা করতে ইতিমধ্যেই নীতিমালা তৈরি করেছে বিশ্ববিদ্যালয়। আগামী এপ্রিল মাস থেকে প্রতিটি হলে এই ক্লাবের কার্যক্রম পরিচালনার মধ্য দিয়ে বাস্তবায়ন হবে এই উদ্যোগ। 

বিশ্ববিদ্যালয়ের এমন উদ্যোগ ইতিবাচকভাবে দেখছেন শিক্ষার্থীরা। তাদের মতে, পরিবেশ নিয়ে ক্যাম্পাসে অনেকেই কাজ করছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের বৃহত উদ্যোগের ফলে শিক্ষার্থীদের মধ্যে পরিবেশ সচেতনতা বৃদ্ধি পাবে। এছাড়া দুর্যোগে শিক্ষার্থীদের করণীয় সম্পর্কে প্রশিক্ষণের উদ্যোগ সময়োপযোগী সিদ্ধান্ত বলে মনে করেন শিক্ষার্থীরা।

আগামী মাসে বিশ্ববিদ্যালয়ের সব হল ও হোস্টেলগুলোতে এই ক্লাবের কার্যক্রম শুরু হবে। ক্লাবের কার্যক্রম পরিচালনায় প্রতিটি হলের আবাসিক শিক্ষার্থীদের নিয়ে ১৫ সদস্যবিশিষ্ট কার্যনির্বাহী কমিটি থাকবে। পাশাপাশি আবাসিক শিক্ষকদের সমন্বয়ে একটি উপদেষ্টা পরিষদ থাকবে। এই ক্লাবের কার্যক্রমের মধ্যে রয়েছে অগ্নিকাণ্ড ও ভূমিকম্পসহ যে কোনো প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলা সম্পর্কে শিক্ষার্থীদের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টি করা; যে কোনো ধরনের দুর্যোগ মোকাবিলায় হলের শিক্ষার্থীদের জন্য প্রশিক্ষণ ও মহড়ার আয়োজন করা; পরিবেশ সংরক্ষণ ও দুর্যোগে সচেতনতা বৃদ্ধিতে সেমিনার আয়োজন করা; পরিবেশ সচেতনতায় জাতীয় দিবসসমূহ পালন করা; নিয়মিত ‘ক্লিন ক্যাম্পাস’ কার্যক্রম পরিচালনা; ডাস্টবিন ব্যবহারে সবাইকে অনুপ্রাণিত করা। এছাড়াও প্রতি বছর পরিবেশ সংরক্ষণ ও দুর্যোগ সচেতনতা বৃদ্ধিতে অবদান রাখার জন্য প্রতিটি হলের এক জন শিক্ষার্থীকে সম্মাননা প্রদান করা হবে।  

এ প্রসঙ্গে নীতিমালা প্রণয় কমিটি ও প্রভোস্ট স্ট্যান্ডিং কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. মো. ইকবাল রউফ মামুন বলেন, শিক্ষার্থীদের সংযুক্ত করে এই কার্যক্রম পরিচালনা করতে হবে। এপ্রিল থেকে ক্লাবের কার্যক্রম শুরু করা যাবে। এখানে মূল কাজটা করবে আমাদের শিক্ষার্থীরা। এই ক্লাবের মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখা ও দুর্যোগে ঝুঁকি মোকাবিলা করার জন্য আমাদের শিক্ষার্থীদের সচেতন করে গড়ে তোলা। আমাদের অধিকাংশ শিক্ষার্থী দুর্যোগে করণীয় সম্পর্কে প্রশিক্ষিত না। ধীরে ধীরে সব শিক্ষার্থীদের প্রশিক্ষণের আওতায় নিয়ে আসা হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক এ এস এম মাকসুদ কামাল বলেন, গত বছর ভূমিকম্প আতঙ্কে আমাদের এক শিক্ষার্থী  লাফিয়ে পড়ে আহত হয়েছে। শিক্ষার্থীরা যেন অগ্নিকাণ্ড ও ভূমিকম্পসহ যে কোনো দুর্যোগে আতঙ্কগ্রস্ত না হয়। তারা যেন দুর্যোগকালীন সময়ে করণীয় সম্পর্কে সঠিক ধারণা শিক্ষাজীবন থেকেই রাখতে পারে। সেজন্য এই ক্লাবের মাধ্যম তাদের জন্য প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হবে। এর মাধ্যমে দুর্যোগে ও এর পরবর্তী করণীয় সম্পর্কে শিক্ষার্থীরা জানতে পারবে। এই প্রশিক্ষণের মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা ছাত্রজীবন থেকে নিজেদের দুর্যোগকালীন সময়ের জন্য গড়ে তুলতে পারবে। হলের প্রতিটি ফ্লোরে অগ্নিনির্বাপক যন্ত্র নিশ্চিত করবে এই ক্লাব। পাশাপাশি এই ক্লাবের মাধ্যমে সংঘবদ্ধভাবে বিশ্ববিদ্যালয়ের আঙিনা পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখতে কাজ করবে শিক্ষার্থীরা। এছাড়াও তাদের কাজের স্বীকৃতি হিসেবে প্রতি বছর নির্দিষ্ট সংখ্যক শিক্ষার্থীদের সার্টিফিকেট প্রদান করা হবে।

ইত্তেফাক/এমএএম