সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ৮ বৈশাখ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

এক ঈদ, ৬০০ নাটক

আপডেট : ২৮ মার্চ ২০২৪, ১০:৫৯

একজন দর্শকের পক্ষে এবার ঈদের সব নাটক দেখে শেষ করা একেবারেই অসম্ভব। টেলিভিশন চ্যানেল, 'ইউটিউব চ্যানেল ও ওটিটি প্ল্যাটফর্ম মিলিয়ে এবার ঈদে প্রচার করবে অন্তত ৬০০ নাটক। এই নাটকের বেশিরভাগই প্রচারিত হবে বিভিন্ন ইউটিউব চ্যানেলে। স্মার্টফোন ও ইন্টারনেট কানেকশন থাকলেই বিনামূল্যে যখন-তখন দেখা যাবে এসব নাটক।

কয়েক বছর আগেও ঈদ মানে ছিল টেলিভিশন চ্যানেলগুলোতে একের পর এক নতুন নাটক। ঈদ ঘিরে শত শত নাটক নির্মাণের রেওয়াজ বহু পুরোনো। এবার টেলিভিশন চ্যানেলে দৃশ্যপট একটু পরিবর্তন হয়েছে। বাজেট বাড়ায় চ্যানেলগুলোতে কমেছে নাটকের সংখ্যা । তবে তারাও টেলিভিশনে সম্প্রচারের পর ইউটিউবে প্রচার করবে।

এই ঈদের প্রস্তুতি দীর্ঘদিনের

গত বছরের নভেম্বর থেকেই এই ঈদের নাটক, টেলিফিল্ম, ধারাবাহিক নির্মাণকাজ শুরু হয়েছে। অনেক টেলিভিশন চ্যানেল, প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ঈদের অর্ধেক কাজই সম্পন্ন করেছেন গত বছরেই! নির্বাচন, রাজনৈতিক পরিস্থিতি ছাড়াও খরচ কমাতেই এত আগে কাজ শুরু করা হয় বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

মাছরাঙা টেলিভিশনের প্রোগ্রাম ইনচার্জ এ এমআরিফুর রহমান বলেন, 'আমরা কোনোপ্রকার ঝুঁকি নিতে চাইনি । তাছাড়া আগে থেকে প্রস্তুতি ভালো থাকলে, কাজের মানও ভালো হয়।' সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ঈদের নাটকে স্বাভাবিকভাবেই বাজেট বেড়ে যায়। কখনো কখনো দুই লাখ টাকার কাজ চার লাখে গিয়েও দাঁড়ায় । ঈদের অনেক আগে কাজ করানোর অন্যতম কারণ এই বাজেট। তাছাড়া ঈদ যতই ঘনিয়ে আসে, ততই চিত্রগ্রাহক, রূপসজ্জাকারী, লাইট ক্রু, প্রোডাকশন বয় থেকে শুরু করে সবাই পারিশ্রমিক বেশি দাবি করেন। 

পুরোনোরা সরেই দাঁড়ালেন?

গত কয়েকবছর ছোটপর্দার ঈদ আয়োজন মানেই মোশাররফ করিমের নাটক । সর্বাধিক নাটকের অভিনেতার খেতাবটি ছিল তারই দখলে। চ্যানেলে চ্যানেলে চোখ রাখলেই তাকে পাওয়া যেত। ধীরে ধীরে এ চিত্র হারাতে বসেছ । তিনি মনোযোগ বাড়াচ্ছেন ওটিটি ও সিনেমায়। তেমনি ছোটপর্দায় প্রায় অনুপস্থিত চঞ্চল চৌধুরী। দু-একটি নাটক ছাড়াও ঈদে ওটিটি প্ল্যাটফর্ম চরকিতে 'লাস্ট ডিফেন্ডারস অব মনোগামী' ও হইচইয়ে 'রুমি' মুক্তি পাবে। জিয়াউল হক অপূর্ব, আফরান নিশোদের ঈদ নাটক নিয়ে ব্যস্ততা নেই! তারা কি নাটক থেকে একেবারেই সরে যাচ্ছেন? এ বিষয়ে জিয়াউল হক অপূর্ব বলেন 'টিভি নাটক দিয়েই তো দর্শক আমাকে চিনেছে। নাটক থেকে দূরে থাকা অসম্ভব। তবে এটি সত্য, আগের চেয়ে নাটক একটু কম করছি। চেষ্টা করছি একটু বড় পরিসরে ভালো কিছু উপহার দেওয়ার। একটু সময় নিয়ে ভালো গল্প এবং বড় আয়োজনে দর্শকদের নতুন কিছু উপহার দেওয়ার চেষ্টা করছি। এ কারণে দর্শক আমাকে নাটকে কম দেখছেন। অযথা কাজের সংখ্যা বাড়িয়ে লাভ কী? সংখ্যা নয়, কয়টি ভালকাজ করছি আমার কাছে সেটিই মুখ্য।'

গত দুই বছর নাটক থেকে দূরে মেহজাবীন চৌধুরী। ঈদেও দেখা যায়নি তার নতুন নাট। অবশ্য মাঝে 'অনন্যা' নামে একটিমাত্র নাটকে অভিনয় করেছিলেন তিনি। দুই বছর পর ঈদে নতুন নাটকে দেখা যাবে এই অভিনেত্রীকে। এ ব্যাপারে মেহজাবীন বলেন, ‘গত দুই বছর ঈদের নাটকে কাজ করা হচ্ছে না। যদিও গত দুই বছরে ঈদে পুরোনো কিছু নাটক চলেছে। তারপরও নতুন নাটকের জন্য দর্শকের অনেক অনুরোধ থাকে। এবার যদি সব ঠিকঠাক থাকে, তাহলে ঈদুল ফিতরে একটি নাটকে আমাকে দর্শকরা দেখতে পাবেন।' 

নতুনদের হাতে কাজ বেশি

ঈদ উপলক্ষ্যে ছয় শতাধিক নাটক প্রচারিত হবে বলে জানায় টেলিভিশন প্রোগ্রাম প্রডিউসারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (টেলিপ্যাব)। এবারও সময়ের জনপ্রিয় তরুণ তারকাদের নিয়েই সাজানো হয়েছে ঈদ আয়োজন। অভিনেতাদের মধ্যে রয়েছেন জোভান আহমেদ, নিলয় আলমগীর, ইরফান সাজ্জাদ, খাইরুল বাসার, মুশফিক আর ফারহান, তৌসিফ মাহবুব, আরশ খান প্রমুখ। অভিনেত্রীদের মধ্যে তানজিন তিশা, সাফা কবির, সাবিলা নূর, সালহা খানম নাদিয়া, হিমি, সামিরা খান মাহি, কেয়া পায়েল, তটিনী, নীহা, সাদিয়া আয়মান, তানিয়া বৃষ্টিরা ব্যস্ত সময় পার করছেন ঈদের নাটক নিয়ে। এবার ১৩/১৫টি নাটকে দেখা যাবে সামিরা খান মাহিকে। তিনি বলেন বলেন, 'ভালো গল্পে কাজের চেষ্টা করি। গল্পের ভিন্নতা খুঁজি। 

অন্যদিকে তৌসিফ মাহবুব বলেন, 'অনেকগুলো চিত্রনাট্য পেয়েছিলাম। যেগুলো পছন্দ হয়েছে, সেগুলোই করেছি, করছি। অনেকগুলো ভালো গল্প, ভালো চরিত্রে কাজের সুযোগ পেয়েছি। এ কারণেই কাজগুলো করেছি, করছি। সংখ্যা বাড়াতে চাই না।'

প্রেম ও পারিবারিক গল্পই বেশি

গত কয়েকবছর ধরেই নাটকে প্রেম ও পরিবারকেন্দ্রিক গল্পের প্রাধান্যই বেশি দেখা যাচ্ছে। এবারও সেই চিত্রই দেখা যাবে। ইউটিউবের পাশাপাশি প্রতিটি নাটক থেকে ফেসবুকের জন্য ৭/৮টা ‘স্বল্প দৈর্ঘ্যের ভিডিও প্যাকেজ' প্রচারের উদ্দেশ্যও থাকে প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের। এসব ভিডিওগুলো যত ইমোশনাল হয়, মানুষ ততই বেশি দেখেন। তাই কমেডি ঘরানার নির্মাণ কমে এসেছে। নির্মাতাদের মধ্যে সকাল আহমেদ, শিহাব শাহীন, মিজানুর রহমান আরিয়ান, তপু খান, ভিকি জাহেদ, মাবরুর রশিদ বান্নাহ, শহীদ উন নবী, জিয়াউদ্দিন আলম, আবু হায়াত মাহমুদ, অনন্য ইমন, সানজিদ খান প্রিন্স, মইদুল রাকিবরা হাজির হবেন নাটকের পসরা সাজিয়ে।

ইত্তেফাক/এএইচপি

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন