শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

মুক্ত নাবিকদের ঘরে ঘরে ‘ঈদের আনন্দ’ 

আপডেট : ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১২:০২

দিন তিনেক আগে শেষ হয়েছে পবিত্র ঈদুল ফিতর। তবে সেই ঈদের আনন্দ স্পর্শ করেনি এমভি আবদুল্লাহ জাহাজের জিম্মি নাবিকদের ঘরে। জিম্মি হওয়া নাবিকদের পরিবারের দিন কাটছিল অনেক শঙ্কা নিয়ে। তবে কেটেছে সেই শঙ্কা। 

৩২ দিন জিম্মি থাকার পর অবশেষে সোমালিয়ার জলদস্যুদের হাত থেকে মুক্ত হয়েছে ‘এমভি আবদুল্লাহ’ জাহাজের ২৩ নাবিক। জাহাজের মালিকপক্ষ কেএসআরএম গ্রুপের মিডিয়া উপদেষ্টা মিজানুল ইসলাম শনিবার (১৩ এপ্রিল) দিবাগত রাত ৩টা ৩৫ মিনিটে বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেন। 

জিম্মি থেকে মুক্ত হওয়ায় এখন 'ঈদের আনন্দ' বইছে মুক্ত হওয়ায় নাবিকদের ঘরে ঘরে। জাহাজটির প্রধান কর্মকর্তা আতিকুল্লাহ খাঁনের মা শাহনুর আক্তার গণমাধ্যমকে বলেন, 'ঈদের তিন দিন পরেই যেন ঈদ এসেছে আমাদের ঘরে। আমার ছেলেসহ সবাই অক্ষত অবস্থায় মুক্তি পেয়েছে- এই খবর শোনার পর ভালো লাগছে সব। তারা এখন নিরাপদে দেশে ফিরলে টেনশন থেকে মুক্তি পাবো।'

সোমালিয়ার দস্যুদের থেকে মুক্তির খবরে নাবিক মোহাম্মদ নুর উদ্দিনের স্ত্রী জান্নাতুল ফেরদৌস বলেন, 'এই দিনগুলো কীভাবে কেটেছে জানি না। আড়াই বছরের ছেলেকে নিয়ে ঈদের আনন্দের দিন ছিল বিষাদে ভরা। আজ যেন আমাদের খুশির ঈদ। কেএসআরএম গ্রুপের প্রতি আমাদের কৃতজ্ঞতার শেষ নেই। তারা তাদের অঙ্গীকার রক্ষা করেছে।'

আরেক নাবিক আইয়ুব খানের ভাই আওরঙ্গজেব রাব্বী বলেন, 'ভাইয়ের জন্য দুশ্চিন্তায় এক মাস আমাদের বিষাদের দিন কেটেছে। আজ মনে হচ্ছে সত্যিকারের ঈদ এসেছে। আমরা খুবই খুশি।'

ইত্তেফাক/জেডএইচ