মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

চাহিদার দৌড়ে ‘রাজকুমার’ এগিয়ে, খরায় পড়ল যে সিনেমা

আপডেট : ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ১৫:১৩

ঈদে মুক্তিপ্রাপ্ত সিনেমা গুলোর মধ্যে দর্শক চাহিদায় এগিয়ে রয়েছে শাকিব খান অভিনীত ‘রাজকুমার’ সিনেমা। এদিকে দর্শক খরায় পড়েছে ঈদে মুক্তি পাওয়া বেশ কয়েকটি সিনেমা। মুক্তির তৃতীয় দিনে নামিয়ে নেয়া হয়েছে ‘গ্রিন কার্ড’ আর ‘আহারে জীবন’ সিনেমা দুটি। আর পঞ্চম দিনে সিনেপ্লেক্স থেকে নেমেছে ‘মেঘনা কন্যা’ সিনেমাটি।

গণমাধ্যম অনুযায়ী, ঈদের দিন থেকে সিনেপ্লেক্সের বিভিন্ন শাখায় ‘মেঘনা কন্যা’র দুটি, ‘গ্রিন কার্ড’র দুটি এবং ‘আহারে জীবন’ সিনেমার তিনটি করে শো চলছিল। তবে দর্শক খরায় সিনেমাগুলোর প্রদর্শনী বন্ধ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির জ্যেষ্ঠ বিপণন কর্মকর্তা মেজবাহ উদ্দিন আহমেদ।
 
মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল ) মেজবাহ উদ্দিন আহমেদ বলেন, তিনটি সিনেমার শো বন্ধ করতে আমরা বাধ্য হয়েছি। আসলে দর্শক না থাকলে, সেল না থাকলে শো দিয়ে লাভ কী? আমাদের তো খরচটাই ওঠে না। তাই দর্শকের চাহিদা না থাকায় আমরা তিনটি সিনেমার শো বন্ধ করেছি।
 
দর্শক চাহিদায় কোন সিনেমাগুলো আছে? এমন প্রশ্নের উত্তরে মেজবাহ জানান, সিনেপ্লেক্সে দর্শক আগ্রহের শীর্ষে ‘রাজকুমার’, ভালো অবস্থানে আছে ‘ওমর’, সন্তোষজনক ‘জ্বিন-২’। ‘দেয়ালের দেশ’ সিনেমাটিকে আমরা সর্বোচ্চ শো দিয়েছিলাম কিন্তু আশানুরূপ ফল পেলাম না। হয়ত এটির শোও কমে যেতে পারে।
 
তিনি আরও জানান, ঈদের সিনেমাগুলোর মধ্যে শাকিব খান অভিনীত ‘রাজকুমার’ সিনেমাটি সিঙ্গেল স্ক্রিনের পাশাপাশি মাল্টিপ্লেক্সেও দাপট দেখাচ্ছে। সিনেপ্লেক্সে ১৩টি শো পেয়েছিল সিনেমাটি, এখন চলছে ১৭টি শো। দর্শক চাহিদা থাকায় শো আরও বাড়তে পারে। 
 
এদিকে রাজধানীর মধুমিতা হলে চলছে শাকিব খান অভিনীত সিনেমা ‘রাজকুমার’। মুক্তির কয়েকদিন সিনেমাটি দর্শক সংখ্যা ছিল চোখে পড়ার মতো। তবে এটিকে ‘এভারেজ’ বলছেন এ হলের মালিক। 

মধুমিতা সিনেমা হলের কর্ণধার ইফতেখার উদ্দিন নওশাদ বলেন, দর্শক আছে, কিন্তু খুব বেশি নাই। ‘প্রিয়তমা’র সময় যে দর্শক দেখেছিলাম সেটা এখন পাচ্ছি না। আমি তো আরও বেশি দর্শক আশা করেছিলাম। দেখা যাক, মানুষজন ঢাকা আসছে। দ্বিতীয়, তৃতীয় সপ্তাহের অপেক্ষায় আছি।’
 
এছাড়া ভালো অবস্থানে আছে শরীফুল রাজ অভিনীত ‘ওমর’। দর্শকদের মিশ্র প্রতিক্রিয়া পাওয়া গেছে সিনেমাটি নিয়ে। অন্যদিকে সন্তোষজনক অবস্থানে ‘জ্বিন-২’। সিনেমাটি নিয়ে  সন্তোষ প্রকাশ করেছেন প্রযোজক আব্দুল আজিজ।
 
এবার সর্বোচ্চ শো পেয়েছিল ‘দেয়ালের দেশ’ সিনেমাটি। সিনেপ্লেক্সের ৭টি শাখায় ১৭টি শো পেয়েছিল রাজ-বুবলী অভিনীত এ সিনেমা। কিন্তু ধরে রাখতে পারেনি। দর্শক চাহিদা না থাকায় কমে যাচ্ছে সিনেমাটির শো। 

কম শো নিয়ে যাত্রা শুরু করা ‘কাজল রেখা’ সিনেমাটির গত দুইদিনের রেসপন্স ভালো বলে জানা গেছে। ঈদের চতুর্থ দিন এবং পঞ্চম দিনে এ সিনেমার দর্শক সংখ্যা ছিল উল্লেখ করার মতো। সিনেমাটির দর্শক সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশা করছেন নির্মাতা গিয়াস উদ্দিন সেলিম।
 
এছাড়া ‘মায়া-দ্য লাভ’, ‘সোনার চর’ চলছে খুড়িয়ে খুড়িয়ে। দর্শক মহলে প্রশংসা পাওয়া ‘লিপস্টিক’ সিনেমাটি আশা জাগাচ্ছে। দ্বিতীয় সপ্তাহে আদর ও পূজা অভিনীত এ সিনেমার হল সংখ্যা বাড়তে পারে বলে জানা গেছে। তবে এক ঈদে এতোগুলো সিনেমা মুক্তির খেসারত দিচ্ছেন হল মালিকরা।

তাদের ভাষ্য, এতগুলো সিনেমা মুক্তি না দিলে ব্যবসা ভালো হতো। তাতে প্রযোজক থেকে শুরু করে হল মালিকদের মুখে হাসি ফুটত। এতোগুলো সিনেমা মুক্তি দিয়ে অসুস্থ প্রতিযোগিতায় নামায় ব্যবসায় প্রভাব পড়েছে। যার রেশ থাকতে পারে আগামী ঈদ পর্যন্ত।

ইত্তেফাক/পিএস