সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

কারাগার এখন বিএনপি নেতা-কর্মীদের স্থায়ী ঠিকানা: রিজভী

আপডেট : ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ১৫:০৯

বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, বিএনপির জন্য দিনের আলো যেনো নিষিদ্ধ। বিএনপির নেতা-কর্মীরা মুক্ত বাতাস গ্রহণ করা থেকে নিষিদ্ধ। তাদেরকে সবসময় কারাগারে থাকতে হয়। বিনা কারণে কারাগার এখন বিএনপির নেতা-কর্মীদের স্থায়ী ঠিকানা হয়ে গেছে।

শুক্রবার (১৯ এপ্রিল) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে জিয়া প্রজন্মদলের কেন্দ্রীয় কমিটি আয়োজিত এক অবস্থান কর্মসূচিতে তিনি এ কথা বলেন।

রিজভী বলেন, বিএনপি নেতা-কর্মীদের কারাগারে ঢোকানো, ধরে ফেলা- এই কর্মসূচি যেন শেখ হাসিনার শেষই হচ্ছে না। আমার মনে হয় তিনি (শেখ হাসিনা) একটা আতঙ্কের মধ্যে ভুগছেন। এর কারণ হলো, তিনি (শেখ হাসিনা) জানেন তার কোনো জনসমর্থন নেই। জনসমর্থন না থাকলে সেই সরকাররা প্রচণ্ড স্বেচ্ছাচারী হয়, ফ্যাসিস্ট হয়ে ওঠে এবং জনগণের আওয়াজ পেলেই তারা নিপীড়নভাবে সেটাকে দমন করে।

শেখ হাসিনাকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী, রাজবন্দী নামে কোনো শব্দ কি আইন গ্রন্থে লেখা আছে? রাজনীতি যারা করে তাদেরকে কারাগারে বিভিন্ন মামলা দিয়েই ঢোকানো হয়। এ রীতি ব্রিটিশ আমল থেকেই চলে আসছে। আপনার বাবা পাকিস্তান আমলে অনেকবার জেলে গিয়েছে; সেখানে আপনার বাবা যে রাজনৈতিক কারণে জেলে গিয়েছে সে কথা লেখা নেই। গাফফার চৌধুরীর একটা লেখা পড়ে জানতে পেরেছি, পাকিস্তান আমলে শেখ মুজিবুর রহমানের নামে ১৭টা দুর্নীতির মামলা দিয়েছিল আইয়ুব খান। কিন্তু সারাদেশের মানুষ মনে করতো শেখ মুজিবসহ যারা রাজবন্দী রয়েছে, তাদের নামে বিভিন্ন মামলা দিয়েই মূলত কারাগারে ঢুকানো হয়। উপমহাদেশে এরকমভাবে অনেকেই কারাগারে গিয়েছেন।

মহাত্মা গান্ধীসহ আরও অনেকেই কারাগারে গিয়েছেন উল্লেখ করে বিএননপির এই নেতা বলেন, কোথাও রাজনৈতিক কারণে কারাগারে গিয়েছে সেটা লেখা থাকে না। যারা কায়েমি শাসকগোষ্ঠী, তারা বিভিন্ন ধরনের অপরাধ দিয়ে তাদের নাম দেয়। আপনি বলছেন তারা (বিএনপির নেতা-কর্মী) বিভিন্ন মামলার আসামি। গোটা জাতি মনে করে আপনি ষড়যন্ত্র করে আন্দোলনকামী, গণতন্ত্রকামী, যারা সত্যকথা বলে তাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন নাশকতার মামলা, মিথ্যা মামলা দিয়ে আপনি তাদেরকে কারাগারে বন্দী করে রেখেছেন।

শেখ হাসিনাকে উদ্দেশ্য করে রিজভী আরও বলেন, আপনার নামে যে ১৫টি মামলা ছিল, সেগুলো কি রাজনৈতিক কোনও মামলা ছিল? সেগুলো দুর্নীতির মামলা ছিল। আপনি ক্ষমতার জোরে সেটি বাতাসে উড়িয়ে দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী আপনাকে বলে রাখি, প্রত্যেকটা জিনিসের রেকর্ড আছে।

ইত্তেফাক/এসকে