সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

কর্নিয়া দান করেছেন শিবনারায়ণ দাশ, দেওয়া হবে দুজন অন্ধ মানুষকে

আপডেট : ২০ এপ্রিল ২০২৪, ১০:৩৮

বাংলাদেশের প্রথম পতাকার অন্যতম নকশাকার শিবনারায়ণ দাশের কর্নিয়া শনিবার (২০ এপ্রিল) সন্ধানী চক্ষু হাসপাতালে দুজন অন্ধ মানুষের চোখে প্রতিস্থাপন করা হবে।

শুক্রবার (১৯ এপ্রিল) বিকেলে সন্ধানী জাতীয় চক্ষুদান সমিতি'র সভাপতি ডা. মনিলাল আইচ লিটু স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতেএ তথ্য জানানো হয়।

এ দিন সকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান ৭৮ বছর বয়সি শিবনারায়ণ। রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

১৯৭০ সালের ৬ জুন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্জেন্ট জহুরুল হক হলের (তৎকালীন ইকবাল হল) ১০৮ নং কক্ষে তৎকালীন বিভিন্ন ছাত্রনেতাদের সমভিব্যাহারে প্রথম লালবৃত্তের মাঝে বাংলাদেশের মানচিত্রসহ পতাকার নকশা করেন শিবনারায়ণ দাশ।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, তার ছেলে অর্ণব আদিত্য বাবার কথা অনুযায়ী তার কর্নিয়া দুটি দান করেন সন্ধানীতে। সন্ধানী আন্তর্জাতিক চক্ষু ব্যাংকে দুপুরে শিবনারায়ণ দাশের কর্নিয়া দুটি সংগ্রহ করে। আগামীকাল সন্ধানী চক্ষু হাসপাতালে দুজন অন্ধ মানুষের মধ্যে কর্নিয়া দুটি প্রতিস্থাপন করা হবে।

বিজ্ঞপ্তিতে ডা. মনিলাল আইচ লিটু বলেন, 'দেশের স্বাধীনতা সংগ্রামে শিবনারায়ণ দাশ তার মননে-চিন্তায় অবদান রেখেছিলেন, মৃত্যুর পরেও তিনি দুজন অন্ধ মানুষকে পৃথিবীর সুন্দর রং-রূপ দেখার সুযোগ করে দিয়ে গেছেন।

'সন্ধানী জাতীয় চক্ষুদান সমিতি এ পরিবারের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছে।'

শিবনারায়ণ দাশ কুমিল্লায় জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবা সতীশচন্দ্র দাসকে ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় পাকিস্তানি সেনারা ধরে নিয়ে হত্যা করে। শিবনারায়ণ দাসের স্ত্রীর নাম গীতশ্রী চৌধুরী এবং তাদের সন্তান অর্ণব আদিত্য দাশ।

ইত্তেফাক/এএইচপি