মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১
The Daily Ittefaq

'টাইমস হায়ার এডুকেশন' র‍্যাঙ্কিংয়ে দেশসেরা জাবি

আপডেট : ০২ মে ২০২৪, ১৭:৩১

সম্প্রতি যুক্তরাজ্যভিত্তিক 'টাইমস হায়ার এডুকেশন-২০২৪' এ প্রকাশিত র‍্যাঙ্কিংয়ে দেশে প্রথম স্থান অর্জন করেছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় (জাবি)। এ অর্জনে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও গবেষকসহ সংশ্লিষ্টদের অভিনন্দন জানিয়েছেন উপাচার্য অধ্যাপক মো. নূরুল আলম।

এবার শিক্ষা ও গবেষণার মান, শিক্ষার্থী-শিক্ষকের অনুপাত, সাইটেশন, আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থীসহ কয়েকটি সূচকের ওপর ভিত্তি করে এশিয়ার ৩১টি দেশের মোট ৭৩৯টি বিশ্ববিদ্যালয় নিয়ে এ র‍্যাঙ্কিং তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে।

এ বছর তালিকায় এশিয়ার মধ্যে প্রথম স্থানে অবস্থান করছে চীনের সিনহুয়া বিশ্ববিদ্যালয়, দ্বিতীয় স্থানে একই দেশের পিকিং বিশ্ববিদ্যালয় এবং তৃতীয় স্থানে সিঙ্গাপুরের ন্যাশনাল বিশ্ববিদ্যালয়। সেরা দশের মধ্যে চীনের পাঁচটি, হংকং ও সিঙ্গাপুরের দু'টি করে এবং জাপানের একটি বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। তবে তালিকায় প্রথম এক থেকে ৩০০'র মধ্যে দেশের কোনো বিশ্ববিদ্যালয় না থাকলেও ৩০১ থেকে ৬০০ এর মধ্যে দেশের নয়টি বিশ্ববিদ্যালয় স্থান পেয়েছে।

প্রকাশিত তালিকা অনুযায়ী, ৩০১ থেকে ৩৫০ এর মধ্যে যৌথভাবে স্থান পেয়েছেন বাংলাদেশের জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় (জাবি) ও বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট)। তালিকার ৩৫১ থেকে ৪০০ এর মধ্যে রয়েছে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ও নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়। তালিকার ৪০১-৫০০ এর মধ্যে অবস্থান করছে ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়। আর ৫০১-৬০০ এর মধ্যে অবস্থান করছে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় এবং শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়। এছাড়া তালিকায় আরও ১২টি বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থান হলেও তাদের র‌্যাঙ্কিং প্রকাশ করা হয়নি।

এদিকে র‌্যাঙ্কিংয়ে দেশসেরা হওয়ায় উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ সংশ্লিষ্টরা। বিশ্ববিদ্যালয়ের সরকার ও রাজনীতি বিভাগের অধ্যাপক এবং অক্সফোর্ড, ক্যামব্রিজ ও হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিজিটিং স্কলার মোহাম্মদ তারিকুল ইসলাম বলেন, 'আন্তর্জাতিক র‍্যাঙ্কিংয়ে দেশসেরা হওয়া আমাদের জন্য গৌরবের। গতবারের ন্যায় এবারও র‍্যাঙ্কিংয়ে গৌরব অর্জন বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ও শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ইতিবাচক প্রচেষ্টার ফল। এ ধারাবাহিকতা ধরে রাখার জন্য বিদেশি স্কলারদেরকে শিক্ষাকাজে অন্তর্ভুক্ত করা প্রয়োজন। আন্তর্জাতিক মানের গবেষকদেরকে ভিজিটিং ফেলো হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করতে পারলে শিক্ষার মান আরো বৃদ্ধি পাবে। পাশাপাশি বিদেশি শিক্ষার্থীদেরকে ভর্তির সুযোগ দিতে হবে।’

তিনি আরো বলেন, 'বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষা ও গবেষণার সুষ্ঠু পরিবেশ নিশ্চিত করতে হবে। গবেষণা সেল গঠনের মাধ্যমে পারস্পরিক জ্ঞান আদান-প্রদানের ভিত্তিতে তরুণ গবেষক তৈরি করতে হবে। শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের গবেষণা প্রকাশনার জন্য ইউনিভার্সিটি প্রেস প্রতিষ্ঠাও এখন সময়ের দাবি।'

ইনস্টিটিউট অব ইনফরমেশন টেকনোলজির (আইআইটি) পরিচালক অধ্যাপক এম শামীম কায়সার বলেন, 'আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণার ইম্প্যাক্ট খুবই ভালো। সম্প্রতি আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ে বিদেশি শিক্ষক নিয়োগের একটি নীতিমালা পাশ হয়েছে। র‍্যাঙ্কিংয়ে এশিয়ার মধ্যে ভালো করার পাশাপাশি আন্তর্জাতিক র‌্যাঙ্কিংয়েও ভালো করার চেষ্টা করছি। আশা করি, ভবিষ্যতে আন্তর্জাতিক র‍্যাঙ্কিংয়েও আমরা ভালো করবো।'

অন্যদিকে টাইমস হায়ার এডুকেশনে প্রকাশিত র‌্যাঙ্কিংয়ে অনন্য নজির স্থাপন করায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও গবেষকদের অভিনন্দন জানিয়েছেন উপাচার্য অধ্যাপক মো. নূরুল আলম। তিনি বলেন, 'শিক্ষা-গবেষণা, কোর্স কারিকুলাম ও শিক্ষা সহায়ক কার্যক্রমসহ নানা তথ্য-উপাত্ত দিয়ে সহকর্মীগণের সক্রিয় সহযোগিতায় এই অর্জন সম্ভব হয়েছে। আশা করি, আগামীতে এশিয়ার পাশাপাশি বিশ্ব র‍্যাঙ্কিং-এ জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় উত্তরোত্তর সম্মানজনক স্থান লাভ করবে।'

ইত্তেফাক/এআই