শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

বার্জার ট্রেনিং ইনস্টিটিউটে ‘পেইন্টিং ফর কনস্ট্রাকশন’ শর্ট কোর্সের উদ্বোধনী ক্লাস

আপডেট : ০৮ মে ২০২৪, ১৮:৪৪

রাজধানীর তেজগাঁও শিল্প এলাকায় অবস্থিত বার্জার ট্রেনিং ইনস্টিটিউটে জাতীয় মানব সম্পদ উন্নয়ন তহবিলের (এনএইচআরডিএফ) আর্থিক সহায়তায় রোববার (৫ মে) অনুষ্ঠিত হলো পেইন্টিং ফর কনস্ট্রাকশনের লেভেল-২, ৩৬০ ঘণ্টার শর্ট কোর্সের উদ্বোধনী ক্লাস।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এনএইচআরডিএফ-এর পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন মো. কামাল হোসেন, ম্যানেজিং ডিরেক্টর ও সিইও এবং মোহাম্মদ জহিরুল কাইয়ুম, জেনারেল ম্যানেজার, (প্রশাসন ও অর্থায়ন) এনএইচআরডিএফ (অতিরিক্ত দায়িত্ব) ও যুগ্ম সচিব, অর্থ বিভাগ, অর্থ মন্ত্রণালয়।

বার্জার পেইন্টস বাংলাদেশ লিমিটেড-এর পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন মিসেস রূপালী চৌধুরী, ব্যবস্থাপনা পরিচালক; তানজিন ফেরদৌস আলম, প্রধান বিপণন কর্মকর্তা; সবুজ স্বপন বড়ুয়া, হেড চ্যানেল এনগেজমেন্ট, জনপ্রিয় অভিনেত্রী বিদ্যা সিনহা মিম, ব্র্যান্ড আম্বাসেডর, বার্জার লাক্সারি সিল্ক, মোঃ সোলায়মান মিয়া, অধ্যক্ষ, বার্জার ট্রেনিং ইনস্টিটিউট-সহ আরও অনেকে।

অনুষ্ঠানে বার্জার পেইন্টস-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক রূপালী চৌধুরী বলেন, “সরকারের পক্ষ থেকে পাওয়া আর্থিক সহযোগিতা আমাদের অনেক অনুপ্রেরণা জুগিয়েছে। আমি এখন বিশ্বাস করি, বার্জার ট্রেনিং ইনস্টিটিউট আগামীতে আরও বৃহৎ পরিসরে কাজ করতে সক্ষম হবে। আর এ লক্ষ্যেই আমরা ইতোমধ্যেই বার্জার পেইন্টার্স ট্রেইনিং ইনস্টিটিউটকে বার্জার ট্রেনিং ইনস্টিটিউটে পরিণত করেছি। এই পর্যায়ে বলতে চাই, আমরা এককভাবে কিছু করতে চাইলে তা বেশ কষ্টসাধ্য এবং সময়সাপেক্ষ হয়। বরং সকলের সহযোগিতা নিয়েই আমাদের এগিয়ে যেতে হবে সামনের দিকে।”

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন মো. কামাল হোসাইন, ম্যানেজিং ডিরেক্টর ও সিইও, এনএইচআরডিএফ। তিনি বলেন, "বার্জার ট্রেনিং ইনস্টিটিউটে প্রশিক্ষণার্থীদের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ আমাকে মুগ্ধ করেছে।"

তিনি প্রশিক্ষণার্থীদের প্রশিক্ষণ শেষে কর্মজীবনে প্রশিক্ষণলব্ধ জ্ঞান প্রয়োগে নিজেদের ব্যক্তি জীবনের উন্নয়নে মনোযোগী হতে নির্দেশ দেন । তিনি আরও আশা করেন, যেহেতু সরকারি অর্থায়নে ভালো সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করে এই ধরণের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়, তাই প্রশিক্ষনার্থীরা যেন প্রশিক্ষণ শেষে চাকরির মুখাপেক্ষী না থেকে উদ্যোক্তা হওয়ার চেষ্টা অব্যাহত রাখেন। আর এতে করে আরও অনেকের কর্মসংস্থানের সুযোগ বৃদ্ধি পাবে। পরিশেষে তিনি প্রশিক্ষণ পরবর্তী অবস্থায় এই প্রশিক্ষনার্থীরা যেন হারিয়ে না যায়, এই বিষয়ে বার্জার ট্রেনিং ইনস্টিটিউটকে যথাযথ মনিটরিংয়ের জন্য আহবান জানান। 

সবশেষে বার্জারের প্রধান বিপণন কর্মকর্তা তানজিন ফেরদৌস আলম বলেন, "মাঠ পর্যায়ে আমাদের সম্মানিত গ্রাহকের মতামত নিতে গিয়ে পেইন্টিং শিল্পে গ্রাহককে সেবা প্রদানে নারীদের চাহিদার গুরুত্ব অনুভব আমরা অনুভব করেছি। আর এভাবেই প্রথমে ছোট পরিসরে নিজস্ব অর্থায়নে বার্জার ট্রেনিং ইনস্টিটিউট নারীদের শর্ট কোর্সের আওতায় এনে পেইন্টার হিসেবে গড়ে তোলার উদ্যোগ গ্রহণ করেছে এবং পরবর্তীতে এই প্রশিক্ষিত নারীদের বার্জারেই চাকরি দেওয়া হচ্ছে।” তিনি প্রশিক্ষণের মাধ্যমে প্রশিক্ষণার্থীদের ব্যক্তিগত উপার্জন ক্ষমতা বাড়ানোর ওপর বেশি গুরুত্বারোপ করেন।

গত ৬ই এপ্রিল, ২০২৪ প্রশিক্ষণের জন্য আগ্রহী প্রশিক্ষণার্থীদের আবেদন করার জন্য আহবান জানানো হয়। ১৮ থেকে ৪০ বছর বয়সী ন্যূনতম অষ্টম শ্রেণী পাশ নারী-পুরুষ প্রার্থীরা প্রশিক্ষণে অংশ  নেয়ার জন্য বিবেচিত হয়। এছাড়াও শারীরিক প্রতিবন্ধী, সমাজে পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠী এবং ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর অন্তর্ভুক্ত ব্যক্তিরাও এই প্রশিক্ষণের জন্য যোগ্য হিসেবে বিবেচিত হয়। সকল যোগ্যতা পূরণ সাপেক্ষে ২৪ জন প্রশিক্ষণার্থী রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করে উদ্বোধনী ক্লাসে অংশ নেওয়ার সুযোগ লাভ করে।

ইত্তেফাক/এআই