বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

ছোট দলের সঙ্গে জিতলে কৃতিত্বটা কম পাই: তাসকিন

আপডেট : ১০ মে ২০২৪, ১৬:০৬

আগামী মাসে যুক্তরাষ্ট্রে ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের যৌথ আয়োজনে বসতে যাচ্ছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের নবম আসর। যেহেতু বাংলাদেশ এই টুর্নামেন্টটিতে খেলতে তাই স্বাভাবিক ভাবে টাইগারদের এখন বিশ্বকাপের প্রস্তুতি নেওয়ারই কথা। তবে এই আসরটির আগে ঘরের মাটিতে পাঁচ ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলার বিষয়টি নিয়ে নানা আলোচনা-সমালোচনা চলছে। 

দেশসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান তো এক অনুষ্ঠানে বলেই দিয়েছেন যে, জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে খেলে বিশ্বকাপ প্রস্তুতি হয় না। যদিও পরে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন জানিয়ে দিয়েছিলেন, এটা বিশ্বকাপ প্রস্তুতির জন্য নয়, এফটিপির ম্যাচ। এবার এ নিয়ে কথা বললেন টাইগার তারকা পেসার তাসকিন আহমেদ। তিনি জানালেন, জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেললেও তাদের লক্ষ্য বিশ্বকাপের প্রস্তুতি।

মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজের চতুর্থ ম্যাচে মাঠে নামার আগে সংবাদ সম্মেলনে গতকাল দলের প্রতিনিধি হিসেবে এসে নিজেদের লক্ষ্য নিয়ে তাসকিন এ প্রসঙ্গে বলেন, ‘আমাদের মূল লক্ষ্য তো বিশ্বকাপকেন্দ্রিক। এখন আমরা যারা খেলোয়াড় আছি, আমাদের কাজ কিন্তু যেখানেই খেলতে নামি সর্বোচ্চ দিয়ে ভালো খেলার চেষ্টা করা। অনেক কিছু আমাদের নিয়ন্ত্রণে নেই। কন্ডিশন, প্রতিপক্ষ, কার সঙ্গে খেলতেছি, কখন খেলতেছি। আমরা যারা খেলোয়াড়, যখনই যেখানে খেলতে নামি সেরাটা দিয়ে এমনকি বিপিএলেও যখন খেলতে নামি ভালো খেলারই চেষ্টা করি। মেইন লক্ষ্য তো বিশ্বকাপকেন্দ্রিক। দল হিসেবে এবং যে যার জায়গা থেকে যদি ৫-১০ শতাংশ উন্নতি করে বিশ্বকাপে ঢুকতে পারি, ভালো ক্রিকেট খেলতে পারি। এবং আমাদের শুরুটা অনেক গুরুত্বপূর্ণ হবে।’ 

এসময় জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজ নিয়ে তাসকিন বলেন, ‘আসলে যতই কথা হচ্ছে জিম্বাবুয়ে নিয়ে, আবার যদি একটা ম্যাচ হেরে যাই তখন কিন্তু আবার অন্যরকম কথা হবে। যে জিম্বাবুয়ের সাথে হারছে। আসলে জিতলে কৃতিত্বটা কম পাই আমরা ছোট দলের সঙ্গে খেললে। কিন্তু হারলে কিন্তু সবাই বলবে জিম্বাবুয়ের সঙ্গে হেরে গেছে। দুর্ভাগ্যবশত আমাদের অনেক কথাই শুনতে হয়। কিন্তু যখন খেলতে নামি, যে প্রতিপক্ষই হোক সেরাটা দিয়ে চেষ্টা করি। হ্যাঁ, কখনো ভালো বা কখনো খারাপ হয়। কিন্তু এই উন্নতির ধারাটা রেখে সবাই খেলার চেষ্টা করি। সবার মধ্যে এটাই লক্ষ্য, বিশ্বকাপে কীভাবে ভালো করা যায়, এই লক্ষ্য নিয়েই এগোচ্ছি, অনুশীলন করছি।’

তবে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দুই ম্যাচ বাকি থাকতে সিরিজ জিতলেও টাইগারদের পারফরম্যান্স নিয়েছে হতাশা। ঘরের মাটিতে বোলাররা দাপট দেখালেও ব্যাট হাতে যেন নিষ্প্রাণ ব্যাটাররা। এমন অবস্থা দেখে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন জানিয়েছিলেন যে, টাইগারদের এমন ব্যাটিং দেখে বেশ ভয় পেয়েছেন তিনি। এ প্রসঙ্গে তাসকিন বলেন, ‘ব্যাটিং-বোলিং যেটাই যেদিন খারাপ যায়, সেদিন বাইরের সমর্থক কিংবা যারাই আছেন তাদের থেকে বেশি হতাশাগ্রস্ত কিন্তু আমরাই হই। কারণ, দিন শেষে আমাদেরই খেলতে হবে এবং আমরা কিন্তু ধারাবাহিক ভাবে কাজ করে যাচ্ছি, কীভাবে আমাদের খেলতে হবে বা ব্যাটিং বা বোলিং কীভাবে উন্নতি করা যায়। এটা আমরাও বুঝতে পারছি, আমাদের আশানুরূপ শুরু হচ্ছে না, তবে এটা নিয়ে কাজ করা হচ্ছে। আসলে সর্বোচ্চ চেষ্টা করা ছাড়া তো কোনো কিছু হাতে নেই, তো চেষ্টা করে যাচ্ছি। আশা করি, সামনে ভালো কিছু হবে।’

ইত্তেফাক/জেডএইচ