শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১
The Daily Ittefaq

বিভিন্ন স্থানে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৬

আপডেট : ০৫ জুন ২০২৪, ০৪:০০

বিভিন্ন স্থানে সড়ক দুর্ঘটনায় দুই সহোদরসহ ছয় জন নিহত হয়েছেন। সোমবার রাত থেকে মঙ্গলবার দুপুর পর্যন্ত এসব দুর্ঘটনা ঘটে।

চৌদ্দগ্রাম (কুমিল্লা) সংবাদদাতা জানান, চৌদ্দগ্রামে সড়ক দুর্ঘটনায় ট্রাকচালক মো. সাগর ও হেলপার বেলাল হোসেন নিহত হয়েছেন। তারা দুই ভাই কুড়িগ্রাম জেলার রাজারহাট থানার ঝিনাইহাট এলাকার বড়গ্রামের আশরাফুল ইসলামের ছেলে। মঙ্গলবার ভোরে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কালিকাপুর ইউনিয়নের ছুপুয়া এলাকার লালারপুল নামক স্থানে ঢাকাগামী কাভার্ড ভ্যানের ইঞ্জিন বিকল হয়ে রাস্তায় দাঁড়িয়ে ছিল। গাড়িটিকে পেছন থেকে ধাক্কা দিয়ে চালু করার জন্য অপর একটি ট্রাক প্রস্তুতি নেওয়া অবস্থায় দ্রুতগতিতে আসা আরেকটি কাভার্ড ভ্যান ধাক্কা দেয়। এ সময় সামনে দাঁড়িয়ে থাকা কাভার্ড ভ্যানের চালক ও হেলপার দুই গাড়ির মাঝখানে আটকে যায়। স্থানীয় জনগণ ও চৌদ্দগ্রাম ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা তাদেরকে ঘটনাস্থল থেকে  মৃত অবস্থায় উদ্ধার করে। মিয়াবাজার হাইওয়ে থানার উপ-পরিদর্শক আনোয়ারুল ইসলাম  বলেন, আইনি প্রক্রিয়া শেষে নিহত কাভার্ড ভ্যান চালক ও হেলপারের লাশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

বেনাপোল (যশোর) সংবাদদাতা জানান, বেনাপোলের সীমান্তবর্তী উপজেলা শার্শার বেনাপোল-যশোর মহাসড়কের নাভারন ফরেস্ট অফিসের সামনে সড়ক দুর্ঘটনায় দুই জন নিহত হয়েছেন। এক জন  নাভারন ডিগ্রি কলেজের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক আলহাজ নাসির উদ্দীন (৬২) এবং অপর জন জাপান-বাংলাদেশ এনজিও নাভারন শাখার নৈশপ্রহরী আলী বকস্ (৬৬)। মঙ্গলবার ভোরে নাভারন ফরেস্ট অফিসের পাশের মসজিদে ফজরের নামাজ পড়তে যাওয়ার পথে এ দুর্ঘটনা ঘটে। তারা মসজিদে যাওয়ার জন্য রাস্তা পার হচ্ছিলেন। এ সময় বেনাপোলগামী একটি কাভার্ড ভ্যান নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে তাদেরকে চাপা দেয়। স্থানীয়রা উদ্ধার করে যশোর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন। নাভারন হাইওয়ে পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ সিদ্ধার্থ জানান, নিহত শিক্ষকের ও নৈশপ্রহরীর লাশ যশোর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে রয়েছে। পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

মহেশপুর (ঝিনাইদহ) সংবাদদাতা জানান, মহেশপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় এক মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার দুপুরে কালিগঞ্জ-জীবননগর সড়কের মহেশপুর উপজেলার বজরাপুর মাইক সার্ভিসের কাছে বাসের সঙ্গে সংঘর্ষে মোটরসাইকেল আরোহী কালীগঞ্জ উপজেলার দুধরাজপুর গ্রামের হেলার উদ্দিনের ছেলে মোশারফ (৪০) গুরুতর আহত হন। তাকে উদ্ধার করে কোটচাঁদপুর হাসপাতালে নিলে ডাক্তার মৃত ঘোষণা করেন। মহেশপুর থানার এসআই পুনরোদ্দোন জানান, বাস জব্দ করা হয়েছে তবে চালক পালিয়ে গেছে। আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

চন্দনাইশ (চট্টগ্রাম) সংবাদদাতা জানান, চন্দনাইশে সোমবার রাত ১১টায় সড়ক দুর্ঘটনায় এডিশন (গাম) ফ্যাক্টরির এক শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। তার নাম তাপস দাশ (৩৫)। তিনি চন্দনাইশ পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ড জোয়ারা এলাকার দয়াল দাশের ছেলে। তাপস দাশ ফ্যাক্টরির কাজ শেষে বাড়ি ফেরার পথে নতুন ব্রিজে রাস্তার পারাপারের সময় দ্রুতগামী বাস চাপা দেয়। তাকে উদ্ধার করে চমেক হাসপাতালে নিলে ডাক্তার মৃত ঘোষণা করেন। স্থানীয় কাউন্সিলর শাহেদুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।

ইত্তেফাক/এমএএম