শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১
The Daily Ittefaq

স্বপ্নের ক্লাবে যোগ দিতে পেরে আমি গর্বিত: এমবাপ্পে 

আপডেট : ০৫ জুন ২০২৪, ২২:৩৮

গুঞ্জন, নাটকীয়তা, প্রতি পরতে পরতে উত্তেজনা! রিয়ালের সঙ্গে এমবাপ্পের চুক্তি সেটা কোনো থ্রিলার মুভির একশন দৃশ্যের চেয়ে কত রোমাঞ্চিত ছিল না। গেল কয়েক বছর ধরেই চলছে এটি। অবশেষে এ দলবলের নাটকীয়তার অবসান হলো। সমর্থকরা হাফ ছেড়ে বাঁচল। কেননা ফরাসি তারকাকে নিজেদের ডেরায় ভিড়িয়েছে স্প্যানিশ জায়েন্ট রিয়াল মাদ্রিদ। সেইসঙ্গে নিজের স্বপ্নের ক্লাবের অংশ হতে পেরে নিজেকে গর্বিত মনে করে এই বিশ্বকাপ জয়ী তারকা।

গেল পরশু বাংলাদেশ সময় রাত ১১টা নিজেদের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলোতে একটি বিবৃতি প্রকাশ করে সর্বোচ্চ ১৫ বারের চ্যাম্পিয়ন লিগ জয়ী দল রিয়াল মাদ্রিদ। এই বিবৃতি প্রকাশ হওয়ার মুহূর্তের মধ্যে সেটা ‘ভাইরাল’ হয়ে যায়। কেননা এই বিবৃতির মধ্যে দিয়ে রিয়াল সমর্থকদের দীর্ঘদিনের অপেক্ষার অবসান ঘটেছে। সমর্থকদের চাপে মুহূর্তে বন্ধ হয়ে যাওয়ার উপক্রম হয় লস ব্লাঙ্কোদের ওয়েব সাইটে। তাতেই বোঝা যায় সমর্থকরা কতটা অপেক্ষা করছিল এই সংবাদের জন্য। 

রিয়ালের প্রকাশিত সেই বিবৃতিতে বলা হয়, ‘রিয়াল মাদ্রিদ এফসি এবং কিলিয়ান এমবাপ্পে একটি চুক্তিতে পৌঁছেছে। তিনি আগামী পাঁচ মৌসুমের জন্য রিয়াল মাদ্রিদের সঙ্গে চুক্তি সম্পূর্ণ করেছেন।’ যদিও কত টাকার বিনিময় এই ফরাসি তারকাকে নিজেদের ডেরায় ভিড়িয়েছে সেটা প্রকাশ করেনি ক্লাবটি। তবে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলোর বদলোতে জানা যায় ১৮০ মিলিয়ন ইউরোতে রিয়ালের সঙ্গে চুক্তি সম্পূর্ণ করেন কিলিয়ান এমবাপ্পে।

এর আগে ২০২১ সালে এমবাপ্পেকে ১৮০ মিলিয়ন ইউরোর প্রস্তাব দেয় রিয়াল মাদ্রিদ। তবে তখন এই তারকা পিএসজির সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ থাকায় রিয়ালের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে দেয় ফরাসি ক্লাবটি। সেই মৌসুমে এই তারকাকে দলে ভেড়াতে মোট ২০০ মিলিয়ন ইউরো পর্যন্ত খরচ করতে রাজি ছিল স্প্যানিশ জায়েন্টরা। যদিও তখন সেটা সম্ভব হয়নি। তবে ‘পাপা পেরেস’ খ্যাত রিয়াল মাদ্রিদের প্রেসিডেন্ট ফ্লোরেন্তিনো পেরেসের নজরে সবসময় ছিলেন এই ফরাসি তারকা। রিয়াল মাদ্রিদ অফিসিয়াল বিবৃতি দেওয়ার পর নিজের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলোতে একটি পোস্ট শেয়ার করেন এমবাপ্পে। 

সেই পোস্টে নিজের স্বপ্নের ক্লাব নিয়ে তিনি বলেন, ‘আমার একটি স্বপ্ন সত্যি হলো। আমার স্বপ্নের ক্লাবের অংশ হতে পেরে খুব খুশি এবং গর্বিত। আমি এই মুহূর্তে কতটা খুশি ও খুবই রোমাঞ্চিত বোধ করছি।  তা ব্যাখ্যা করা অসম্ভব।’ সেইসঙ্গে নিজের স্বপ্নের ক্লাব ও ক্লাবটির সমর্থকদের নিয়ে এই ফরাসি তারকা বলেন, ‘আমি আপনাদের সঙ্গে দেখার করার জন্য আর অপেক্ষা করতে পারছি না। মাদ্রিদিস্তাস, আপনাদের অবিশ্বাস্য সমর্থনের জন্য ধন্যবাদ। আমি এই মুহূর্ত কতটা উত্তেজিত সেটা কাউকে বোঝাতে পারব না। হালা মাদ্রিদ।’

এর আগে সালটা ২০১৩ সালে সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে সাধারণ একজন দর্শক হয়ে যান কিলিয়ান এমবাপ্পে। তখন এই বিশ্বকাপজয়ী তারকার বয়স ছিল মাত্র ১৩ বছর। তখন তার প্রিয় খেলোয়াড় সাবেক রিয়াল মাদ্রিদ তারকা ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর সঙ্গে দেখা করেন এমবাপ্পে। এই ফরাসি তারকা তার প্রিয় ক্লাব নিয়ে নিজের অনুভূতি প্রকাশ করার সেই পোস্টে মন্তব্য করেন তারই প্রিয় খেলোয়াড় রোনালদো। এ যেন স্বপ্নের চেয়ে বড় কিছু। এমবাপ্পের পোস্টে রোনালদো লিখেন, ‘এবার আমার পালা। বার্নাব্যুতে তোমার খেলা দেখতে মুখিয়ে আছি।’

এই ফরাসি তারকা রিয়ালের নাম লিখানোর আগে থেকে সমর্থকদের মনে প্রশ্ন ছিল। রিয়াল মাদ্রিদে আসলে তিনি কত নম্বর জার্সি পড়ে মাঠে নামবেন?  কেননা পিএসজিতে তিনি ৭ নম্বর জার্সি গায়ে দিয়ে মাঠ মাতাতেন এবং জাতীয় দলের খেলায় গায়ে চাপালেন ১০ নম্বর জার্সি। তবে রিয়াল মাদ্রিদে ৭ নম্বর জার্সি গায়ে খেলছেন ভিনিসিয়ুস জুনিয়র এবং ১০ নম্বর জার্সি গায়ে খেলছেন লুকা মদ্রিচ। যেহেতু রিয়ালের সঙ্গে আরও এক মৌসুম চুক্তি আছে এই ক্রোশিয়ার তারকার। সেজন্য ১০ নম্বর জার্সি পাচ্ছেন না এই ফরাসি তারকা।

ইত্তেফাক/জেডএইউচ

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন