শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১
The Daily Ittefaq

ইউক্রেনকে যুদ্ধবিমান দিচ্ছে ফ্রান্স 

আপডেট : ০৭ জুন ২০২৪, ১৭:৪৫

রাশিয়ার হামলার মোকাবিলা করতে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি দুই বছরেরও বেশি সময় ধরে পশ্চিমা বিশ্বের কাছ থেকে বারবার অস্ত্র, গোলাবারুদ ও সামরিক সরঞ্জাম চেয়ে আসছেন।  

অ্যামেরিকা ও ইউরোপের দ্বিধা-দ্বন্দ্বের কারণে তিনি দেরিতে হলেও কিছু অস্ত্র আদায় করতে পেরেছেন। বিশেষ করে আকাশপথে রাশিয়ার হামলার মোকাবিলা করতে উন্নত এউ-১৬ যুদ্ধবিমানের প্রতিশ্রুতি পেলেও এখনো সেই বিমান হাতে পায় নি ইউক্রেন। এবার ফ্রান্স ইউক্রেনকে ‘মিরাজ ২০০০-৫' মডেলের যুদ্ধবিমান সরবরাহের প্রতিশ্রুতি দিলো। 

নাৎসি জার্মানির হাত থেকে ইউরোপকে মুক্ত করার উল্লেখযোগ্য দিন ‘ডি-ডে’-র ৮০তম বার্ষিকী উপলক্ষ্যে ফ্রান্সে বিশ্বনেতাদের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন জেলেনস্কি। মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ও ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রোঁ-র সঙ্গে সাক্ষাতের সুযোগ পাচ্ছেন তিনি। ফ্রান্স সফরেও জেলেনস্কি পশ্চিমা বিশ্বের কাছে আরো সামরিক সহায়তার ডাক দিয়েছেন। 

শুক্রবার ফ্রান্সের সংসদের নিম্ন কক্ষে ভাষণের আগেই ম্যাক্রোঁ বৃহস্পতিবার এক টেলিভিশন সাক্ষাৎকারে তার দেশকে যুদ্ধবিমান সরবরাহের প্রতিশ্রুতি দিলেন। তবে বিমানের সংখ্যা, আর্থিক লেনদেন বা হস্তান্তরের সময় সম্পর্কে তিনি কিছু জানাননি। সেই বিমান চালাতে চলতি বছরের গ্রীষ্মেই ফ্রান্সে ইউক্রেনীয় পাইলটদের প্রশিক্ষণের প্রস্তাব দিয়েছেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট। 

তার মতে, সেই প্রশিক্ষণ শেষ করতে সাধারণত পাঁচ থেকে ছয় মাস সময় লাগে। উল্লেখ্য, গত জানুয়ারি মাসে ইউক্রেনের বিমানবাহিনীর প্রধান বলেছিলেন, যে মিরাজ যুদ্ধবিমান তার বাহিনীর শক্তি বাড়িয়ে তুলবে।

ইউক্রেনের জন্য সামরিক সহায়তার নিরিখে আমেরিকা ও জার্মানির তুলনায় ফ্রান্সের অবদান এখনো পর্যন্ত অনেক কম। জার্মানির চ্যান্সেলর ওলাফ শলৎস ইউরোপের অন্যান্য দেশগুলিকে ইউক্রেনের জন্য আরো সক্রিয় হওয়ার ডাক দিচ্ছেন। এমন চাপ ও জেলেনস্কির সফর উপলক্ষ্যেই ম্যাক্রোঁ বাড়তি সহায়তার অঙ্গীকার করছেন কিনা, তা স্পষ্ট নয়। 

তিনি ইউক্রেনের সৈন্যদের প্রশিক্ষণেরও প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। মাক্রোঁ বলেন, সৈন্যদের প্রশিক্ষণ ইউক্রেনের জন্য বিশাল চ্যালেঞ্জ হয়ে উঠেছে। ফ্রান্স তাই ৪,৫০০ সৈন্যের গোটা ব্রিগেডের প্রশিক্ষণের দায়িত্ব নিতে চায়। সেই সৈন্যদের প্রয়োজনীয় সরঞ্জামও দেওয়া হবে। তবে ইউক্রেনের বাইরেই সেই প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে বলে ম্যাক্রোঁ ইঙ্গিত দিয়েছেন। ফ্রান্সের প্রতিরক্ষা সরঞ্জাম উৎপাদনকারী কোম্পানি কেএনডিএস ইউক্রেনের ভূখণ্ডেই অস্ত্র উৎপাদন করতে কারখানা খুলতে চায় বলে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। শুক্রবার জেলেনস্কি প্যারিসের উপকণ্ঠে সেই কোম্পানি পরিদর্শন করছেন। 

ইত্তেফাক/এসআর