ঢাকা সোমবার, ২৫ মে ২০২০, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
২৮ °সে

তরুণ উদ্যোক্তাদের জন্য ‘স্টার্টআপ কিংডম’ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন

তরুণ উদ্যোক্তাদের জন্য ‘স্টার্টআপ কিংডম’ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন
তরুণ উদ্যোক্তাদের জন্য ‘স্টার্টআপ কিংডম’ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন। ছবি: সংগৃহীত।

পেগাসাস টেক ভেঞ্চারস এর জেনারেল পার্টনার ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ড. আনিস উজ্জামান এবং ভেঞ্চার ক্যাপিটাল অ্যান্ড প্রাইভেট ইক্যুইটি অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ভিসিপিয়াব) ও ইজেনারেশনের চেয়ারম্যান শামীম আহসান লিখিত স্টার্টআপ বিষয়ক বই ‘স্টার্টআপ কিংডম’ এর উন্মোচন করা হয়েছে।

শনিবার (৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০) রাজধানীর রেডিসন ব্লু ওয়াটার গার্ডেনে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে বইটির মোড়ক উন্মোচন করা হয়। গাইড লাইনমূলক বইটিতে ছয়টি অধ্যায়ে প্রচুর রিসোর্স রয়েছে, যা স্টার্টআপ প্রতিষ্ঠাতাদের সম্ভাব্য বাজারগুলোতে তার ব্যবসাকে প্রতিষ্ঠিত করতে সুযোগ করে দেবে।

বইটির উন্মোচন করেন পররাষ্ট্র মন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন ও আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। এসময় উপস্থিত ছিলেন কুয়েস্ট ভেঞ্চারস এর ব্যবস্থাপনা অংশীদার জেমস টান, ডেফটা পার্টনারস এর প্রিন্সিপাল মাসা ইসোনো, উইমেন ইন টেক এশিয়ার প্রতিষ্ঠাতা জেনি রিসকু, ওপেনস্পেস ভেঞ্চারস এর পরিচালক ইয়ান সিকোরা, আইআইএম এর গভর্নেন্স বোর্ড সদস্য ড. সৌগত রায়, আইএফসির কান্ট্রি ম্যানেজার ওয়েন্ডি ওয়ার্নার প্রমুখ।

বইটির প্রকাশনায় রয়েছে ইউনিভার্সিটি প্রেস লিমিটেড, যারা বাংলাদেশসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বইটি সরবরাহ করবে। অনলাইনে রকমারি ডটকম এবং একুশে বই মেলায় ইউনিভার্সিটি প্রেস লিমিটেডের স্টল থেকে বইটি প্রি-অর্ডার করা যাবে। প্রি-অর্ডারের ক্ষেত্রে ৩০ শতাংশ ছাড় পাবেন ক্রেতারা।

বইটিতে টিম তৈরির বেসিক থেকে শুরু করে পণ্য তৈরি, বাণিজ্য গোপনীয়তা প্রযুক্তি বা কোম্পানির মেধাস্বত্ব রক্ষা, দেশে ও বিদেশে বিপণন কৌশল এবং সফলভাবে এক্সিট কৌশলের পরিকল্পনাসহ প্রয়োজনীয় কৌশলগত বিষয়গুলো সুনিপুনভাবে তুলে ধরা হয়েছে। পাঠকরা যাতে সহজে বিষয়গুলো বুঝতে পারেন সেজন্য সিলিকন ভ্যালিসহ জাপান, ইন্দোনেশিয়া, বাংলাদেশসহ এশিয়ার অন্যান্য অঞ্চলের সফল স্টার্টআপদের বাস্তবিক উদাহরণ তুলে ধরা হয়েছে।

আনিস উজ্জামান বলেন, আমি প্রতিবছর শত শত স্টার্টআপের সাথে কথা বলি ও দিকনির্দেশনা দিই। আমি তাদের সফলতা ও ব্যর্থতা দেখেছি এবং এই বইয়ে সেসব অভিজ্ঞতাকে তুলে ধরেছি। আমি নিজেই বেশকিছু স্টার্টআপ গড়ে তুলেছি এবং অবশ্যই আমার সফলতা ও ব্যর্থতা থেকে শিখতে পেরেছি। এই বইটিতে সেসব কিছুর প্রতিফলন ঘটেছে। আমি প্রত্যাশা করি, এই বইটি উদ্যোক্তা ও উদ্ভাবকদের জন্য একটি জ্ঞানের ভান্ডার হবে, যারা আগামী দিনগুলোতে চ্যালেঞ্জ প্রস্তুত।

শামীম আহসান বলেন, স্টার্টআপ কিংডম বইটি ব্যবসায় উদ্যোক্তাদের নিজস্ব ব্যবসায় পরিকল্পনা তৈরি করতে এবং সহজ ও দ্রুততম উপায়ে কাঙ্খিত লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে সঠিক কৌশল গ্রহণে সহায়তার জন্য লেখা হয়েছে। আমরা লেখকদ্বয় ভেঞ্চার ক্যাপিটালিস্ট এবং অ্যাঞ্জেল বিনিয়োগকারী হিসেবে আমাদের অভিজ্ঞতাকে তুলে ধরেছি এবং দক্ষিণ এশিয়া ও গ্লোবাল স্টার্টআপ ইকোসিস্টেমের স্টার্টআপ প্রতিষ্ঠাতাদের জন্য একটি বিস্তৃত হ্যান্ডবুক হিসেবে রূপ দেয়ার চেষ্টা করেছি।

বইটি নিয়ে বিশেষ উৎসাহ করেছে, কারণ লেখকরা দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলের অনেক নতুন কেস স্ট্যাডি ও সফল স্টার্টআপদের গল্প তুলে ধরেছেন। পাশাপাশি স্টার্টআপের প্রতি ভেঞ্চার ক্যাপিটাল বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ তৈরির গোপন রহস্য উন্মোচন করেছেন। লেখকদ্বয় যৌথভাবে ১৭০টির বেশি কোম্পানিতে বিনিয়োগ করেছেন এবং তাদের অভিজ্ঞতাকে বইটি বিস্তারিতভাবে সজ্জিত করেছেন, যা হাজারো উচ্চাকাঙ্খী উদ্যোক্তাদের প্রয়োজনীয় জ্ঞানের ভান্ডার হিসেবে কাজ করবে।

ইত্তেফাক/আরএ

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
২৫ মে, ২০২০
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন