ঢাকা সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১ আশ্বিন ১৪২৬
২৮ °সে


বৃষ্টিবিঘ্নিত ম্যাচে ভারতের একপেশে জয়

বৃষ্টিবিঘ্নিত ম্যাচে ভারতের একপেশে জয়
ছবি : সংগৃহীত

চলতি ইংল্যান্ড এন্ড ওয়েলস ক্রিকেট বিশ্বকাপের এই ম্যাচ ঘিরে মাঠের বাইরে যতটা ঢাকঢোল বাজলো তার কিছুই ঘটলো না মাঠে। দুই দেশের টেলিভিশনে একে অপরকে বিদ্রুপ করে বিজ্ঞাপন, স্যোশাল মিডিয়ায় সমর্থকদের ট্রল, সম্প্রচার টেলিভিশনগুলোর রেকর্ড বিজ্ঞাপন মূল্য কিংবা রেকর্ড দর্শকের দৃষ্টি আকর্ষণের খবর থাকলেও মাঠে তার প্রতিফলন দেখা যায়নি একবিন্দুও। একপেশে ম্যাচে পাকিস্তানকে উড়িয়ে তৃতীয় জয় তুলে নিলো ভারত। অন্যদিকে পাঁচ ম্যাচের তিনটিতেই পরাজয়ের স্বাদ পাওয়া পাকিস্তানের বিশ্বকাপ বলতে গেলে প্রায় শেষ!

প্রথমে ব্যাট করে রোহিত শর্মার ১৪০ ও অধিনায়ক বিরাট কোহলির ৭৭ রানের দায়িত্বশীল ইনিংসে পাকিস্তানকে ৩৩৭ রানের বড় লক্ষ্য দেয় ভারত। জবাবে খেলতে নেমে ৩৫ ওভার শেষে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৬৬ রান সংগ্রহ করে পাকিস্তান। এরপর বৃষ্টি হলে খেলা নেমে আসে ৪০ ওভারে। ৩০২ রানের নতুন লক্ষ্য পায় পাকিস্তান। ৪০ ওভার শেষে নতুন সেই লক্ষ্য থেকে ৯০ রান দূরে থাকতেই থেমে যায় পাকিস্তানের ইনিংস। পাকিস্তানের সংগ্রহ দাঁড়ায় ২১২/৬। পুরো ম্যাচে কোনো ধরনের প্রতিদ্বন্দ্বিতায় গড়তে পারেননি সরফরাজের দল। সেই সাথে বিশ্বকাপ আসরে ভারতের কাছে পরাজয়ের বৃত্তেই থাকলো পাকিস্তান। সাতবারের দেখায় সাতবারই পরাজয় হলো তাদের।

এর আগে আজ রবিবার ম্যানচেস্টারের ওল্ড ট্রাফোর্ডে টস জিতে ভারতকে ব্যাটে পাঠান পাকিস্তানের অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ। ভারতকে ব্যাটিংয়ে পাঠালেও সুবিধা আদায় করতে ব্যর্থ পাকিস্তানি বোলাররা। ভারতের উদ্বোধনী জুটিতে আসে ১৩৬ রান। লোকেশ রাহুলকে আউট করে দীর্ঘ এই জুটি ভাঙেন ওয়াহাব রিয়াজ। বাবর আজমের হাতে ক্যাচ দেয়ার আগে ৭৮ বল থেকে ৫৭ রান করেন শেখর ধাওয়ানের বদলে ওপেনিংয়ে নামা এই ব্যাটসম্যান। এরপর অধিনায়ক বিরাট কোহলিকে সঙ্গে করে ৯৮ রানের আরো একটি বড় জুটি গড়ে আউট হন রোহিত শর্মা। ১১৩ বল খেলে ব্যক্তিগত ১৪০ রানে হাসান আলীর শিকার হন এই ওপেনার। দলীয় রান তখন ২৩৪। নিজের তৃতীয় স্পেলে বলে এসেই দুই উইকেট তুলে নেন মোহাম্মদ আমির। পরপর ফেরান মারকুটে হার্দিক পাণ্ডিয়া ও মাহেন্দ্র সিং ধোনিকে। দলীয় ২৯৮ রানের মাথায় ধোনি আউট হওয়ার কিছুক্ষণ পরেই বাগড়া দেয় বৃষ্টি। ৪৬ ওভার ৪ বলের খেলা শেষে ভারতের স্কোর তখন চার উইকেটে ৩০৫ রান। বেশ কিছুক্ষণ খেলা বন্ধ থাকার পর বৃষ্টি থামলে ফের ব্যাটে নামে ভারত। নির্ধারিত ওভার শেষে তারা পাঁচ উইকেটে ৩৩৬ রান করে তারা। কোহলি ৭৭ রান করে আউট হন। আমির তিনটি এবং হাসান আলী ও ওয়াহাব রিয়াজ একটি করে উইকেট নেন।

জবাবে খেলতে নেমে ১৩ রানের মাথায় প্রথম উইকেট হারায় পাকিস্তান। বিজয় শংকরের বলে এলবিডব্লিউ হয়ে সাজঘরে ফেরেন ইমাম উল হক। আরেক উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান ফখর জামানের সঙ্গে যোগ দেন বাবর আজম। দুজনে ১০৪ রানের জুটি গড়ে ভালো প্রতিরোধ গড়ে তোলেন। ভারতের পক্ষে দ্বিতীয় আঘাত হানেন কুলদীপ যাদব। পরপর দুই ওভারে ফেরত পাঠান বাবর আজম ও ফখর জামানকে। দলীয় ১২৯ রানের মাথায় পরপর দুই বলে মোহাম্মদ হাফিজ ও শোয়েব মালিকের উইকেট তুলে নেন হার্দিক পান্ডিয়া। এরইসঙ্গে ম্যাচ থেকে ছিটকে পড়ে পাকিস্তান। জয় দেখতে থাকে কোহলির ভারত। পাকিস্তানের ইনিংসের ৩৫ ওভারে আবারো বৃষ্টি নামে ওল্ড ট্রাফোর্ডে। দলটির সংগ্রহ তখন ১৬৬/৬।

ইত্তেফাক/কেআই/এএম

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন