নরসিংদীতে বন্যার পানি বৃদ্ধির সাথে ব্যাপক নদী ভাঙন

নরসিংদীতে বন্যার পানি বৃদ্ধির সাথে ব্যাপক নদী ভাঙন
নরসিংদীতে বন্যার পানি বৃদ্ধির সাথে ব্যাপক নদী ভাঙ্গন।ছবি: ইত্তেফাক

নরসিংদীতে গত কয়েক দিনের বৃষ্টিপাত ও বন্যার পানি ব্যাপকভাবে বৃদ্ধি পাওয়ায় জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। এর সাথে দেখা দিয়েছে ব্যাপক নদী ভাঙন। নরসিংদীতে মেঘনা ও সুরমার পানি ব্যাপকভাবে বৃদ্ধি পাচ্ছে। এর সাথে মুষলধারে বৃষ্টির পানিতে সয়লাব হয়ে গেছে বিভিন্ন নদ-নদী। তবে এখনো বন্যার পানি নরসিংদীতে বিপৎসীমা অতিক্রম করেনি।

বর্তমানে সুরমা-মেঘনা নদীর পানি নরসিংদী পয়েন্টে বিপৎসীমার ৪৮ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে বলে জানান গ্যাজ পাঠক ইকবাল হোসেন।

পানি বৃদ্ধির সাথে সাথে নদী তীরবর্তী গ্রামগুলো ব্যাপক ভাঙনের সম্মুখীন হয়েছে। ফলে শত শত মানুষ নিঃস্ব হয়ে পড়ছে। মেঘনার করাল গ্রাসে রায়পুরা উপজেলার চাঁনপুর ইউনিয়ন এবং চরমধুয়া ইউনিয়নের কালিকাপুর ও ইমামদিরকান্দি গ্রামের শত বছরের বসত ভিটা গাছপালা, সদাগরকান্দি লঞ্চঘাট বাজারসহ অনেক ফসলি জমি নদী গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে।

আরও পড়ুন: রাজশাহীর অগ্রণী ব্যাংক কর্পোরেট শাখা থেকে ১৭ লাখ টাকা চুরি

এ ব্যাপারে চাঁনপুর ইউনিয়নের ক্ষতিগ্রস্ত লোকজনের দাবি, অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের ফলে মেঘনায় ব্যাপক খরস্রোত দেখা দিয়েছে। স্রোতের পানির প্রচণ্ড ধাক্কায় এ ভাঙনের সৃষ্টি হয়েছে। ভাঙনের আশঙ্কায় এলাকার লোকজন তাদের ঘর থেকে আসবাবপত্র, তৈজসপত্রসহ বিভিন্ন মালামাল নিরাপদ স্থানে সরাতে শুরু করেছে এবং তাৎক্ষণিকভাবে ঘরগুলো ভেঙে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নিয়ে যাচ্ছে।

চাঁনপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোমেন সরকার বলেন, ‘ঘটনাস্থল সরজমিনে পরিদর্শন করে নদী ভাঙন পরিবারগুলোর মধ্যে শুকনো খাবার বিতরণ করেছি এবং সরকারি সাহায্য সহযোগিতার জন্য তালিকা প্রস্তুত করছি।’

এব্যাপারে নরসিংদী পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী বিজয় ইন্দ্র শংকর চক্রবর্তী জানান, চাঁনপুর ইউনিয়নের ভাঙ্গন কবিলিত ৯’শ মিটার এবং চরমধুয়া ইউনিয়নের ১ হাজার ৬৯৫ মিটার এলাকায় প্রতিরক্ষা ব্লক দিয়ে নদী ভাঙনের হাত থেকে এলাকাবাসীকে রক্ষার জন্য গত রবিবার প্ল্যানিং কমিশনের সভায় উপস্থাপন করা হয়েছে। আশা করা যায় এ ব্যাপারে খুব দ্রুত কাজ শুরু করা হবে।

ইত্তেফাক/এএএম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x