ভাঙ্গায় চাচির সহায়তায় স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ, থানায় মামলা

ভাঙ্গায় চাচির সহায়তায় স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ, থানায় মামলা
ভাঙ্গায় চাচির সহায়তায় স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ, থানায় মামলা।প্রতীকী ছবি

ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলার আলগী ইউনিয়নের গুলপানদী গ্রামে আপন চাচির সহায়তায় তৃতীয় শ্রেণির এক ছাত্রী (১২) ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার ভাঙ্গা থানায় ধর্ষণের শিকার ওই স্কুলছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে ৪ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেছেন।

থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সফিকুর রহমান জানায়, স্কুলছাত্রীটি তার পিতাকে নিয়ে থানায় এসে অভিযোগ দায়ের করে। ধর্ষণে অভিযুক্ত ওই গ্রামের আলমগীর মুন্সির ছেলে সাব্বির মুন্সি(১৯), ধর্ষণে সহায়তাকারী চাচি জাহিদ মিয়ার স্ত্রী রূপালী বেগম(২৮), ইমান শেখের ছেলে ইব্রাহীম শেখ(১৭) ও স্বপন মাতুব্বরের ছেলে আব্দুল্লাহ মাতুব্বর (১৮) এই ৪ জনের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে এবং ধর্ষণে সহায়তা করার অপরাধে মামলা হয়েছে।

আরও পড়ুন: মহানবী ( সা.) এর কার্টুন প্রকাশে জাতিসংঘের উদ্বেগ

মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়, গত ৮ সেপ্টেম্বর আপন চাচি রূপালী বেগমের কাছে রাতে ঘুমাতে যায় ঐ স্কুলছাত্রী। গভীর রাতে চাচি তার মোবাইল ফোন দিয়ে ধর্ষণে অভিযুক্তসহ তার সমমনা কয়েকজনকে ডেকে এনে রাত ২টার দিকে স্কুল ছাত্রীটিকে ধর্ষণে সহায়তা করে। বিষয়টি যাতে কেউ না জানে সেজন্য অভিযুক্তসহ চাচি স্কুলছাত্রীকে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। পরবর্তীতে মেয়েটির অস্বাভাবিক আচরণে মেয়েটির বাবা-মাসহ পরিবারের অন্য সদস্যরা জানতে চাইলে সে বিষয়টি খুলে বলে। উক্ত বিষয়টি নিয়ে এলাকার গণ্যমান্যদের কাছে সে বিচার প্রার্থনা করলে কালক্ষেপণ করে মাতুব্বরেরা। অবশেষে উপান্তর না দেখে মেয়েকে সাথে নিয়েই সরাসরি থানায় হাজির হয় বাবা।

এ ঘটনার পর এলাকায় গা ঢাকা দিয়েছে অভিযুক্তসহ তার সহযোগীরা।

ধর্ষণের শিকার ওই স্কুলছাত্রীর পিতা বলেন, আমি গরীব ফেরিওয়ালা, দিনের পর দিন বাহিরে ফেরি করে কোন রকমে সংসার চালাই। সাব্বির ও তার সহযোগীদের দৃষ্টান্তমূলক বিচার আমি চাই।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা থানার উপ-পরিদর্শক শওকত হোসেন জানান, আসামিদের আটক করতে পুলিশ মাঠে কাজ করছে।

ইত্তেফাক/এএএম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত