ডাক্তার পরিচয় দিয়ে করতেন অপারেশন, অবশেষে জেলে

ডাক্তার পরিচয় দিয়ে করতেন অপারেশন, অবশেষে জেলে
পুলিশের হাতে গ্রেফতার ভুয়া ডাক্তার হেদায়েত উল্লাহ। ছবি: ইত্তেফাক

একটি ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের ফার্মাসিস্ট হয়েও নিজেকে এমবিবিএস পাশ করা ডাক্তার পরিচয় দিয়ে আসছিলেন হেদায়েত উল্লাহ (৫৪)। তিনি গৌরনদী পৌর এলাকায় দীর্ঘ দিন যাবত আনোয়ারা নামে একটি ক্লিনিক পরিচালনা করে আসছেন। রবিবার রাতে এক প্রসূতির অপারেশন করাকে কেন্দ্র করে পুলিশের হাতে গ্রেফতার হন ওই ভুয়া ডাক্তার।

সোমবার বিকেলে পুলিশ তাকে বরিশাল চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করলে আদালত বরিশাল কেন্দ্রীয় কারাগারে প্রেরণ করেন।

গৌরনদী মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. মাহাবুবুর রহমান জানান, বাবুগঞ্জ উপজেলার আগরপুর স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের ফার্মাসিস্ট হিসেবে মো. হেদায়েত উল্লাহ কর্মরত আছেন। তার ক্লিনিকে আসা রোগীদের এমবিবিএস পাশ করা ডাক্তার পরিচয় দিয়ে প্রসূতিসহ অন্য রোগীদের অপারেশন করছিলেন।

ওই পুলিশ কর্মকর্তা আরও জানান, উপজেলার বাঘার গ্রামের বিমল রায় তার সন্তান সম্ভাবা স্ত্রী অনিতা রায়কে রবিবার রাত ১১টা দিকে তিনি আনোয়ারা ক্লিনিকে নিয়ে আসেন। এ সময় কর্তব্যরত চিকিৎসককে খুঁজতে থাকলে হেদায়েত উল্লাহ নিজেকে ডাক্তার পরিচয় দিয়ে ক্লিনিকে ভর্তি হতে পরামর্শ দেন।

রোগীর স্বজনরা হেদায়েত উল্লাহকে আগে থেকে চেনার কারণে অনিতাকে নিয়ে ক্লিনিক থেকে বের হয়ে অন্য ক্লিনিকে যাওয়ার জন্য চেষ্টা করেন। এ সময় হেদায়েত উল্লাহ ও তার ক্লিনিকের স্টাফরা ক্লিনিকের দরজা বন্ধ করে দেয়। এ নিয়ে রোগীর স্বজনদের সঙ্গে হেদায়েত উল্লাহ ও তার ক্লিনিকের স্টাফদের বাকবিতণ্ডা হয়।

আরও পড়ুন: সরকারীভাবে ধান সংগ্রহের তালিকায় ব্যাপারীরা

পরে এ ঘটনা গৌরনদী মডেল থানাকে মুঠোফোনে অবহিত করলে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে রোগী ও স্বজনদের উদ্ধার করে। এ সময় গ্রেফতার করা হয় অভিযুক্ত হেদায়েত উল্লাহকে। এ ঘটনায় বিমল রায় বাদী হয়ে গৌরনদী মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন।

ইত্তেফাক/অনি

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত