ঢাকা মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর ২০১৯, ৬ কার্তিক ১৪২৬
২৯ °সে


সোনাইমুড়িতে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে ওসিসহ আহত ৬

সোনাইমুড়িতে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে ওসিসহ আহত ৬
চাটখিল। ছবি: গুগল ম্যাপ থেকে

স্থানীয় রাজনীতিতে আধিপত্য বিস্তার ও আসন্ন মেয়র নির্বাচনকে সামনে রেখে নোয়াখালী জেলার সোনাইমুড়িতে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের মধ্যে ৫ দিন থেকে চলমান সহস্ত্র মহড়া বুধবার রাতে সংঘর্ষে পরিণত হয়। সংঘর্ষে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুস সামাদ, কন্সটেবল জসিম উদ্দিনসহ ৬ জন আহত হয়েছে।

এদের মধ্যে বিপ্লব (২৫) নামে একজন গুলিবিদ্ধ হয়েছে। সংঘর্ষ চলাকালে বাজারের পৌরসভার কাউন্সিলর জহিরুল ইসলাম ভূইয়ার কার্যালয়সহ ৭/৮টি দোকানের সাটার ভাংচুর করা হয়।

পরিস্থিত নিয়ন্ত্রনে আনতে পুলিশ কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলিবর্ষণ করে। এ সময় প্রায় ২ ঘন্টা সকল যান চলাচল বন্ধ থাকে। এতে যাত্রীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়। এ ঘটনায় পুলিশ রাতেই অভিযান চালিয়ে বিভিন্ন স্থান থেকে ৬ জনকে আটক করে। বর্তমানে সোনাইমুড়ি বাজারে সহস্রাধিক ব্যবসায়ীদের মধ্যে চরম আতঙ্ক ও ভীতি বিরাজ করছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সোনাইমুড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুস সামাদ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে বিরাজমান আবু সায়েদ ও সামসুল আলম গ্রুপকে নিয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগী সংগঠনের নেতা কর্মীদের নিয়ে বৈঠক করেন। বৈঠক শেষে যাওয়ার পথে দুই গ্রুপের সংঘর্ষ বাঁধে। সংঘর্ষে উপজেলা স্বেচ্ছসেবক লীগের আহবায়ক আবু সায়েমসহ (৪৮) আরও দুজন আহত হন।

এ সময় দুই গ্রুপ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়লে বাজারের ব্যবসায়ীরা দোকানপাট বন্ধ করে চলে যান। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে পুলিশ ফাঁকা গুলিবর্ষণ করে। এ সময় সোনাইমুড়ির উপর দিয়ে চলাচলকারী ঢাকা, চট্টগ্রাম, কুমিল্লা, লক্ষীপুর, মাইজদীর কয়েকশ গাড়ি আটকা পড়ে। চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয় যাত্রীদের। প্রায় দুঘন্টার পর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আসে এবং যানবাহন চলাচল শুরু করে।

আরও পড়ুন: শ্রীপুরে ট্রাকচাপায় স্কুলছাত্রের মৃত্যু

থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) এমদাদ হোসেন জানান, পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে পুলিশি টহল চলছে। অপরাধী যেই হোক তাদের আইনে আওতায় আনা হবে। সংঘর্ষের মামলা প্রক্রিয়াধীণ রয়েছে।

ইত্তেফাক/নূহু

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
২২ অক্টোবর, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন