বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১
The Daily Ittefaq

স্তন ক্যান্সার সচেতনতা দিবস আজ

দ্রুত শনাক্ত না হওয়ায় বাড়ছে স্তন ক্যান্সারে মৃত্যু

আপডেট : ১০ অক্টোবর ২০২১, ১০:১৩

শুধু দ্রুত শনাক্ত না হওয়ার কারণে স্তন ক্যানসারে মৃত্যুঝুঁকি বাড়ছে। রোগটি সম্পর্কে রয়েছে অজ্ঞতা ও অসচেতনতা। আন্তর্জাতিক সংস্থা ‘আইএআরসি’র ২০২০ সালের হিসাবমতে, বাংলাদেশে প্রতি বছর ১৩ হাজার নারী নতুন করে স্তন ক্যানসারে আক্রান্ত হন। এর মধ্যে মারা যান সাড়ে ৬ হাজারের বেশি। নারীরা সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত হন এই ক্যানসারে। তৃণমূলের নারীদের এই রোগ সম্পর্কে এখনো সচেতন করা সম্ভব হয়নি। তবে স্তন ক্যানসারের ঝুঁকি সম্পর্কে সচেতন হলে এই রোগ প্রতিরোধ করা সম্ভব বলে জানান সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞরা।

এমন পরিস্থিতিতে দেশে আজ ১০ অক্টোবর রবিবার পালিত হচ্ছে ‘স্তন ক্যানসার সচেতনতা দিবস’। এ বছর স্তন ক্যানসার সচেতনতা দিবসের প্রতিপাদ্য নির্ধারিত হয়েছে ‘স্ক্রিনিং জীবন বাঁচায়’।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, পর্যবেক্ষণমতে, এখন সময় হয়েছে সচেতনতার পাশাপাশি ঝুঁকিপূর্ণ নারীদের লক্ষণ না থাকলেও স্ক্রিনিং, অর্থাৎ কিছু সহজ পরীক্ষার মাধ্যমে গোপন থাকা স্তন ক্যানসার নির্ণয়ে উদ্বুদ্ধ করা।

বাংলাদেশ স্তন ক্যানসার সচেতনতা ফোরামের সমন্বয়কারী ডা. মো. হাবিবুল্লাহ তালুকদার রাসকিন ইত্তেকাককে বলেন, ‘আমরা গত ১৫ বছরে যাদের সচেতন করতে পেরেছি, তাদের স্ক্রিনিংয়ের আওতায় আনতে পারিনি। তারা কথা শোনেন, কিন্তু আক্রান্ত না হলে চিকিত্সকের শরণাপন্ন হন না। অথচ স্ক্রিনিংটা স্তন ক্যানসার শনাক্তের জন্য অতি গুরুত্বপূর্ণ। এ জন্য এবার আমরা বলেছি, ‘শোনেন, জেগে ওঠেন এবং পরীক্ষা করতে আসেন।’ ২০ বছর বয়স থেকে প্রতি মাসে নিজে নিজের স্তন পরীক্ষা করবেন। আর বছরে একবার দক্ষ স্বাস্থ্যকর্মীকে দিয়ে স্তন পরীক্ষা করাতে হবে।

বিআরবি হাসপাতালের ব্রেস্ট ইউনিটের কনসালটেন্ট ডা. আলী নাফিসা বলেন, যুক্তরাষ্ট্রে নিয়মিত স্বাস্থ্য পরীক্ষার মাধ্যমে ৩০ শতাংশ স্তন ক্যানসারে মৃত্যু প্রতিরোধ করেছে দেশটি। ৩৫ বছর বয়সি নারীদের নিয়মিত স্তন পরীক্ষা এবং ম্যামোগ্র্যাফির মাধ্যমে স্তন ক্যানসার প্রতিরোধ করা সম্ভব। মানুষের মধ্যে সচেতনতা বাড়াতে কাজ করতে হবে। কারণ দ্রুত শনাক্ত হলে ৯৫ শতাংশ স্তন ক্যানসার নিরাময় সম্ভব।

দিবসটি উপলক্ষ্যে মাসব্যাপী কর্মসূচি হাতে নেওয়া হয়েছে। প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত নারী চিকিৎসক দিয়ে ফ্রি প্রাথমিক পরীক্ষা ও বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ, আলট্রাসনোগ্রাম, ম্যামোগ্রামসহ প্রয়োজনীয় পরীক্ষা সবার জন্য অর্ধেক খরচে এবং অসচ্ছল নারীদের জন্য বিনা মূল্যে করানোর ব্যবস্থা থাকছে এই কর্মসূচিতে।

২০১৩ সালে স্তন ক্যানসার সচেতনতা নিয়ে কাজ করে এমন সংগঠনগুলো বেসরকারিভাবে ১০ অক্টোবর স্তন ক্যানসার সচেতনতা দিবস পালন শুরু করে। আজ সকাল সাড়ে ৯টায় রাজধানীর মানিক মিয়া অ্যাভিনিউর পশ্চিম প্রান্তে আড়ংয়ের সামনে প্রতীকী গোলাপি শোভাযাত্রা ও তথ্যসমৃদ্ধ লিফলেট বিতরণ করা হবে। বেলা ১১টায় মাসব্যাপী কর্মসূচি ঘোষণা ও ফ্রি স্ক্রিনিং উদ্বোধন হবে লালমাটিয়ায় কমিউনিটি অনকোলজি সেন্টারে (৭/৯, ব্লক-বি, আড়ংয়ের গলি)। বাংলাদেশ স্তন ক্যানসার সচেতনতা ফোরামের উদ্যোক্তা ও প্রধান সমন্বয়কারী ডা. মো. হাবিবুল্লাহ তালুকদার রাসকিন মূল বক্তব্য উপস্থাপন করবেন। উপস্থিত থাকবেন অধ্যাপক ডা. লতিফা শামসুদ্দিন, অধ্যাপক সাবেরা খাতুনসহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতারা। ঢাকার বাইরে রাজশাহী, দিনাজপুর, পঞ্চগড়, ঝিনাইদহ, বগুড়া, শেরপুর, জামালপুর, কুমিল্লাসহ বিভিন্ন স্থানে দিবসটি পালনে নানা কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে।

ইত্তেফাক/কেকে