বৃহস্পতিবার, ২০ জানুয়ারি ২০২২, ৫ মাঘ ১৪২৮
দৈনিক ইত্তেফাক

স্বপদেই বহাল থাকছেন শিক্ষক ফারহানা 

আপডেট : ২৯ নভেম্বর ২০২১, ১২:৫৭

সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরের রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ে ১৪ শিক্ষার্থীর চুল কাটার ঘটনায় অভিযুক্ত শিক্ষক ফারহানা ইয়াসমিনকে স্বপদে বহাল রেখে তিনটি শিক্ষাবর্ষের কার্যক্রম থেকে বিরত থাকার নির্দেশ দিয়েছে প্রশাসন।

রবিবার (২৯ নভেম্বর) বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাকাডেমিক ভবনের নোটিস বোর্ডে রেজিস্ট্রার সোহরাব আলী স্বাক্ষরিত অফিস আদেশে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য ও বাংলাদেশ অধ্যয়ন বিভাগের ২০১৭-১৮, ২০১৮-১৯ ও ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষা কার্যক্রম শেষ না হওয়া পর্যন্ত ওই শিক্ষার্থীদের পাঠদান, পরীক্ষাসহ অন্যান্য যাবতীয় অ্যাকাডেমিক ও প্রশাসনিক কার্যক্রম থেকে অভিযুক্ত ফারহানা ইয়াসমিনকে বিরত থাকতে নির্দেশ দেওয়া হলো।

অফিস আদেশটি গতকাল অ্যাকাডেমিক ভবনের নোটিস বোর্ডে টানানো হলেও তাতে রেজিস্ট্রার এতে স্বাক্ষর করেছেন ২১ নভেম্বর। চুল কাটার ঘটনায় শিক্ষার্থীরা শিক্ষক ফারহানা ইয়াসমিনের বরখাস্তের দাবিতে ক্যাম্পাসে লাগাতার আন্দোলন করেন। তবে সে দাবি উপেক্ষা করে চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তাকে স্বপদে বহাল করলো।

ফারহানা ইয়াসমিন। ছবি: ইত্তেফাক

এ সিদ্ধান্তের প্রতিক্রিয়ায় গতকাল আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা বলেন, ‘এ সিদ্ধান্ত অ্যাকাডেমিক কাউন্সিলে অনেক আগেই নেওয়া যেত। শুধু শুধু সময়ক্ষেপণ করেছে প্রশাসন। মূলত শিক্ষিক ফারহানার পক্ষ নিতেই এমন টালবাহানা করা হয়েছে।’ 

উল্লেখ্য, ২৬ সেপ্টেম্বর রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষিকা ফারহানা ইয়াসমিন পরীক্ষার হলে ঢুকে প্রথমবর্ষের ১৪ ছাত্রের মাথার চুল কাচি দিয়ে কেটে দেন বলে অভিযোগ ওঠে। এ ঘটনার প্রতিবাদ ও শিক্ষিকা ফারহানার অপসারণ দাবিতে শিক্ষার্থীরা লাগাতার আন্দোলন শুরু করলে তাকে সাময়িক বরখাস্ত ও পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করে প্রশাসন।

গত ২১ অক্টোবর তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয় কমিটি। কিন্তু শিক্ষিকা ফারহানার বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত ছাড়াই সিন্ডিকেট সভা মুলতবি করা হলে ফের শিক্ষার্থীরা আন্দোলন শুরু করেন।

এরপর প্রশাসনের আশ্বাসে ২৮ নভেম্বর পর্যন্ত আন্দোলন স্থগিতের ঘোষণা দেন শিক্ষার্থীরা।

ইত্তেফাক/এএএম

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

১৮ মাস বেতন পাচ্ছেন না ৭৮৬ কারিগরি শিক্ষক

সব সুযোগ-সুবিধা বঞ্চিত আত্তীকৃত কলেজ শিক্ষকরা