মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারি ২০২২, ৪ মাঘ ১৪২৮
দৈনিক ইত্তেফাক

মিরপুর টেস্ট: ফলোঅনের শঙ্কায় বাংলাদেশ

আপডেট : ০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ০৯:১৮

সাজিদ খানের বলটা ছিল অফ স্ট্যাম্পের বাইরে। সুইপ করতে গিয়ে বোল্ড হলেন মেহেদী হাসান মিরাজ। দৃশ্যটা দেখার পরপরই নন-স্ট্রাইকে দাঁড়ানো সাকিব আল হাসান প্রচণ্ড বিরক্তিতে ব্যাটটা সুইং করালেন। কারণ শান্ত আউট হওয়ার পর অনেকটা এগিয়ে গিয়ে মিরাজকে অনেক কিছু বুঝিয়েছিলেন সাকিব। কিন্তু এটা স্পষ্ট যে অগ্রজের কথার কিছুই তার মস্তিষ্কে প্রবেশ করেনি।

শুধু সাকিব নন গতকাল শেষ বিকালে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের আত্মাহুতির মিছিল দেখে মেজাজ সপ্তমে চড়তে পারে যে কারোরই। লিটন-শান্তদের জঘন্য ব্যাটিংয়ে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম ইনিংসে এখন ফলোঅনের দুয়ারে বাংলাদেশ দল। গতকাল চতুর্থ দিন শেষে স্বাগতিকদের সংগ্রহ ৭ উইকেটে মাত্র ৭৬ রান। সাকিব ২৩ ও তাইজুল শূন্য রানে ব্যাট করছেন। ফলোঅন এড়াতে আরও ২৫ রান লাগবে, প্রথম ইনিংসে ২২৪ রানে পিছিয়ে বাংলাদেশ।

ম্যাচের দুই দিনেরও বেশি সময় বৃষ্টিতে চলে গেছে। গতকালও আলোর স্বল্পতায় এক ঘণ্টা কম খেলা হয়। মাত্র দুই ঘণ্টা ব্যাটিং করে বাংলাদেশ। আলো কম থাকায় পেস বোলিংও করতে পারেনি সফরকারীরা। টেস্ট ইতিহাসের বিরল কাণ্ড মঞ্চস্থ করালেন ব্যাটসম্যানরা, যেখানে বৃষ্টিস্নাত কন্ডিশনের ফায়দা লুটলেন অফ স্পিনার সাজিদ খান। দিন শেষে তাকে বিজয়ীর আসনে নেওয়ার পেছনে মুশফিকদের ধারাবাহিক ব্যর্থতাই দায়ী।

ব্যাটিংয়ে নেমেই যেন কূল হারিয়ে বসে বাংলাদেশ। চা-বিরতির আগেই ২২ রানে নেই ৩ উইকেট। অভিষিক্ত মাহমুদুল হাসান জয় (০) স্লিপে ক্যাচ দেন সাজিদের বলে। কাট জাতীয় শর্ট খেলে সাদমানও (৩) একই স্পিনারের শিকার হন। অধিনায়ক মুমিনুল (১) প্রাণপণে ছুটে সিঙ্গেল নিতে গিয়ে রানআউট হন। যেন গতকালই প্রতিপক্ষের সংগ্রহটাকে টপকে যেতে হবে!

সাজিদকে স্লগ সুইপ করে মুশফিক (৫) ক্যাচ দেন। একই বোলারকে রিটার্ন ক্যাচ দেন লিটন (৬)। ব্যাকফুটে খেলতে গিয়ে এলবির ফাঁদে পড়েন শান্ত। তিনি করেন ৩০ রান। মিরাজ আউট হলে ৭১ রানে পড়ে ৭ উইকেট। পরে আরও ৬ ওভার তাইজুলকে নিয়ে কাটিয়ে দেন সাত নম্বরে নামা সাকিব। সাজিদ খান ৩৫ রানে ৬ উইকেট নেন।

এর আগে সকালে বৃষ্টির ধাক্কা কাটিয়ে সকাল ১০টা ৫০ মিনিটে খেলা শুরু হয়। দিনের দ্বিতীয় ওভারেই এবাদতের শর্ট বলে ক্যাচ দেন আজহার আলী। তিনি ৫৬ রান করেন। পরে খালেদ আহমেদের প্রথম টেস্ট শিকার হয়ে ফিরেন ৭৬ রান করা বাবর আজম। তারপর আর উইকেট পায়নি বাংলাদেশ। ফাওয়াদ আলম ও রিজওয়ান ১০৩ রানের জুটি গড়েন। লাঞ্চের পর ৪ উইকেটে ৩০০ রান ছুঁয়ে প্রথম ইনিংস ঘোষণা করে পাকিস্তান। ফাওয়াদ আলম ৫০, রিজওয়ান ৫৩ রানে অপরাজিত ছিলেন।

ম্যাচের শেষ দিন আজ। বৃষ্টির বদান্যতায় পঞ্চম দিনে আসা ম্যাচে হারের চোখরাঙানিও টের পাচ্ছে বাংলাদেশ দল। তাই ফলোঅনের সঙ্গে হার এড়ানোর কঠিন লক্ষ্যে সাকিবের পানেই চেয়ে থাকবে বাংলাদেশ।

ইত্তেফাক/এমআর

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

কোহলির জায়গায় পান্টকে চান গাভাস্কার

উইলিয়ামসের সেঞ্চুরিতেও রক্ষা পায়নি জিম্বাবুয়ে

সাকিবকে ঘিরেই আশাবাদী বরিশাল

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

প্রশংসার জোয়ারে ভাসছেন কোহলি

জাদুমন্ত্র নয় দলীয় চেষ্টায় সফলতা: মুমিনুল

যুবাদের শ্রেষ্ঠত্ব ধরে রাখার মিশন শুরু আজ

বরিশালকে শিরোপা এনে দিতে চান সাকিব