শনিবার, ২৮ মে ২০২২, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

অযত্ন-অবহেলায় পড়ে আছে সৈয়দপুরের গণকবর 

আপডেট : ১৪ ডিসেম্বর ২০২১, ২১:৩৫

অযত্ন-অবহেলায় পড়ে আছে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর অপারেশন খরচা খাতার গণহত্যার শিকার শহিদদের গণকবর। শহিদ মুক্তিযোদ্ধা আর সাধারণ বাঙালিদের রক্তে স্নাত বধ্যভূমিগুলো ঐ এলাকার মানুষের কাছে স্বজন হারানোর বেদনা জাগানো স্মৃতি। স্বাধীনতা যুদ্ধের পাক সেনা ও তাদের দোসররা যে হত্যাযজ্ঞ চালিয়েছিল তার নাম দিয়েছিল অপারেশন খরচা খাতা। 

সেদিনের গণহত্যা থেকে বেঁচে যাওয়া সৈয়দপুরের তপন কুমার দাস বলেন, ১৯৭১ সালের ১৩ জুন নারীসহ আমাদের ৪১৩ জনকে রেলস্টেশনে এনে চারটি বগিতে তোলা হয়। আমরা তখন অনুমান করলাম কী হতে যাচ্ছে। ট্রেন গোলাহাটে আসলে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টির মধ্যে আমাদের নামতে বাধ্য করে। ওরা কিলঘুসি মেরে বলে, নামো সবাই। আমরা তখন বললাম, আমাদের গুলি করে মারো। তখন তারা বলল, গুলির অনেক দাম। তখন তারা একে একে নামিয়ে তলোয়ার দিয়ে কাটতে শুরু করল। 

আমি জানালার সাটার ভেঙে লাফিয়ে পড়ি পূর্ব পাশের নিচু জায়গায়। হত্যা চলছিল পশ্চিম পাশে। ঐদিন আমরা ২১ জন পালিয়ে পারি। বাকিদের এই বধ্যভূমিতে হত্যা করা হয়। তিনি আক্ষেপ করে বলেন, স্বাধীনতার ৫০ বছরেও গোলাহাটে নির্মিত স্মৃতিস্তম্ভ এখনো পূর্ণতা পায়নি। 

ইত্তেফাক/এএইচপি

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

চিকিৎসক সংকটে খুমেক ক্যানসার ইউনিট, সেবা থেকে বঞ্চিত রোগীরা

জোয়ার এলেই ডুবে যায় রাস্তা

বগুড়ায় বোরোর ভালো দাম পেয়েও মলিন কৃষকের মুখ!

দিনাজপুরে লিচুর ফলন কমার আশঙ্কা, দুশ্চিন্তায় চাষিরা

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

নির্বাচনের পর ম্লান হয় সেতুর স্বপ্ন

নেদারল্যান্ডসে প্রশিক্ষণে গিয়ে দুই পুলিশ সদস্য ‘নিখোঁজ’ 

উদ্বোধনের আগেই সেতু পার হলো বরযাত্রীর গাড়ি!

ন্যায্য দাম নেই, গাছেই পচছে কাঁঠাল