মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারি ২০২২, ১১ মাঘ ১৪২৮
দৈনিক ইত্তেফাক

চাপে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী 

বিধিনিষেধ ভেঙে বরিসের কার্যালয়ে আরও মদ-নাচের পার্টি 

আপডেট : ১৪ জানুয়ারি ২০২২, ১৭:২৭

দেশজুড়ে লকডাউনের সময় ২০২০ সালের ২০ মে মদের পার্টি আয়োজন করে ব্যাপক চাপের মুখে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। এরমধ্যে এলো আরও নতুন খবর। ব্রিটিশ রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের স্বামী ও ডিউক অব এডিনবরা প্রিন্স ফিলিপের শেষকৃত্যের আগের সন্ধ্যায় বরিসের সরকারি বাসভবনের ১০ নম্বর ডাউনিং স্ট্রিটে আরো দুই পার্টি হয়েছিল বলে প্রতিবেদনে এসেছে।  

টেলিগ্রাফের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০২১ সালের ১৬ মে করা হয় সেই আয়োজন। তাতে অন্তত ৩০ জন অংশ নিয়েছিলেন। পার্টি ছিল মদ ও নাচের। 

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সে সময় করোনার কারণে জারি করা বিধিনিষেধ অনুযায়ী ভিন্ন ভিন্ন বাড়িতে বসবাসরত মানুষেরা একত্রে এমন আয়োজন করতে পারবে না।  

১০ নম্বর ডাউনিং স্ট্রিটের পক্ষ থেকে এ নিয়ে বিদায়ী ভাষণের কথা স্বীকার করলেও পার্টির বিষয়ে কোন মন্তব্য করেনি। তবে বরিস এই পার্টিতে ছিলেন না বলে খবরে বলা হয়েছে। 

এদিকে গতকাল বুধবার ২০২০ সালের মে মাসে ১০ নম্বর ডাউনিং স্ট্রিটে পার্টিতে যোগদানের ব্যাপার স্বীকার করে ক্ষমা চেয়ে বরিস বলেন, আমি জনগণের ক্ষোভ বুঝতে পেরেছি।  

বুধবার পার্লামেন্টে বরিস বলেন, আমি বুঝি আমার নেতৃত্বের সরকারকে নিয়ে তারা আমার প্রতি ক্ষুব্ধ, কেননা তারা ভাবছে যখন ডাউনিং স্ট্রিটে নিয়মগুলো যারা তৈরি করে তারাই তা সঠিকভাবে মানছে না। 

বরিসের এমন কর্মকাণ্ডে দেশটির প্রধান বিরোধী দলগুলো বরিসের পদত্যাগের আহ্বান জানিয়েছেন। অন্যদিকে স্কটল্যান্ডের কনজারভেটিভ দলের প্রথম কেউ বরিসের পদত্যাগ চেয়েছেন।   

লেবার পার্টির নেতা কেইর স্টারমার বলেন, ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে ব্রিটেনকে বের করে নিবেন এমন অঙ্গীকারের পর জনগণ ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে জনসনকে বিপুল ভোটে বিজয়ী করেন। তবে এখন জনগণ মনে করেন তিনি একজন মিথ্যাবাদী। বিবিসি 

ইত্তেফাক/এসআর

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

ব্রিটেনে ইসলামবিদ্বেষ বিতর্কে নাজেহাল ক্ষমতাসীন দল  

রাশিয়াকে কড়া হুঁশিয়ারি বরিসের 

যুদ্ধের দামামা, সামরিক শক্তি বাড়াচ্ছে ন্যাটো 

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

ইংল্যান্ডে টিকাপ্রাপ্ত ভ্রমণকারীদের জন্য কোভিড টেস্ট বাধ্যতামূলক না

মুসলিম হওয়ায় মন্ত্রিত্ব গেছে: ব্রিটিশ এমপি

রুশপন্থী নেতাকে ইউক্রেনে ক্ষমতায় বসানোর চক্রান্ত চলছে: যুক্তরাজ্য 

অনাস্থা ভোটে জয়ের আশা বরিস জনসনের