শুক্রবার, ২৭ মে ২০২২, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

টোঙ্গায় অগ্ন্যুৎপাতের পর ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি: জাসিন্ডা 

আপডেট : ১৬ জানুয়ারি ২০২২, ১৬:২৩

শক্তিশালী অগ্ন্যুৎপাতের পর সৃষ্ট সুনামিতে প্রশান্ত মহাসাগরীয় দ্বীপ রাষ্ট্র টোঙ্গার রাজধানী নুকু'আলোফায় উল্লেখযোগ্য ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। আজ রবিবার নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জাসিন্ডা আর্ডেন এই মন্তব্য করেছেন। 

তবে এখন পর্যন্ত কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি বলে আল জাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে টোঙ্গার সঙ্গে যোগাযোগ করতে অনেকটা হিমশিম খেতে হচ্ছে মানবিক সহায়তাকারী দলগুলো। 

গতকাল অগ্ন্যুৎপাতের জেরে টোঙ্গাতে সুনামি আঘাত হেনেছে। এর জেরে টেলিফোন, ইন্টারনেট সেবা বন্ধ হয়েছে, পাশাপাশি এক লাখের বেশি লোককে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।  

আর্ডেন বলেন, তার সরকার নুকুআলোফায় নিউ জিল্যান্ড দূতাবাসের সঙ্গে যোযাযোগ করছে। তিনি সাংবাদিকদের বলেন, নুকু’আলোফার উত্তর দিকের উপকূলীয় এলাকায় সুনামি ব্যাপকভাবে আঘাত হেনেছে। ঢেউয়ে সেখানকার নৌকা ও বড় বড় পাথর ভেসে গেছে।

তিনি আরও বলেন, সরকারিভাবে এখন পর্যন্ত টোঙ্গোতে কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। যদিও সেখানে যোগাযোগ ব্যবস্থা সীমিত।  

জাসিন্ডা বলেন, নিউজিল্যান্ড টোঙ্গায় সামরিক নজরদারি ফ্লাইট পাঠাতে সক্ষম হয়নি কারণ ছাই  ১৯ হাজার মিটার উঁচুতে পৌঁছেছে।  তবে আশা করা হচ্ছে সোমবার এই ফ্লাইট পাঠানো হবে। 

শনিবার সমুদ্রগর্ভে আগ্নেয়গিরি থেকে হঠাৎ অগ্ন্যুৎপাত শুরু হয়। এক টুইটে দেখা যায়, সমুদ্র থেকে বিরাট বিরাট ঢেউ আছড়ে পড়ছে সৈকতে।

জানা যায়, শুক্রবার (১৪ জানুয়ারি) ভোররাতে সমুদ্রগর্ভে ওই আগ্নেয়গিরি জেগে উঠে। টুইটারের ভিডিওতে দেখা যায়, আগ্নেয়গিরিতে অগ্ন্যুৎপাতের তীব্র শব্দ স্পষ্ট শোনা গেছে। তা বেশ ভয়ঙ্কর। তারপর সমুদ্রে ছাই-পাথর ছড়িয়ে পড়েছে, পুরো আকাশ লাভার ধোঁয়ায় অন্ধকার হয়ে যায়। 

উপগ্রহ চিত্রে ধরা পড়েছে ৫ কি.মি অঞ্চল জুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে লাভা। উদ্গীরণের ফলে নির্গত ছাইয়ের আস্তরণ। সেইসঙ্গে ধোঁয়া এবং গ্যাস সমুদ্রের উপর আকাশ ২০ কিমি পর্যন্ত উঠতে দেখা যায়। টোঙ্গার কাছে এই সমুদ্রগর্ভে এই আগ্নেয়গিরি থেকে প্রতিবেশি দেশ নিউজিল্যান্ডের দূরত্ব ২,৩০০ কিমি। সেখানেও ঝড়-বৃষ্টির সতর্কতা জারি করা হয়েছে। আল জাজিরা 

 

ইত্তেফাক/এসআর

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

সাগরের নিচে অগ্ন্যুৎপাত, টোঙ্গাতে আঘাত হেনেছে সুনামি