মঙ্গলবার, ০৫ জুলাই ২০২২, ২০ আষাঢ় ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

ফের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আগুন, পুড়ে গেছে লার্নিং সেন্টার

আপডেট : ১১ মার্চ ২০২২, ২৩:১৯

উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আবারও অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। এপিবিএন ও রোহিঙ্গাদের প্রচেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে এলেও বেসরকারি সংস্থা ‘মুক্তি কক্সবাজার’র একটি লার্নিং সেন্টার ও একাধিক রোহিঙ্গা বসতি পুড়ে গেছে। শুক্রবার (১১ মার্চ) বিকেলে কুতুপালং ক্যাম্প-৪–এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেন শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার মো. সামছুদ্দৌজা।

ক্যাম্পের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) সদস্যরা জানান, বিকেল সাড়ে চারটার দিকে ক্যাম্প-৪-এর এফ-ব্লকের একটি রোহিঙ্গা বসতির রান্নাঘর থেকে আগুনের সূত্রপাত। এরপর আগুন আশপাশের বসতিতে ছড়িয়ে পড়ে। এপিবিএনসহ রোহিঙ্গাদের চেষ্টায় বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে।

মো. সামছুদ্দৌজা বলেন, আগুনে সাতটি রোহিঙ্গা বসতি ও বেসরকারি সংস্থার একটি লার্নিং সেন্টার পুড়ে গেছে। আগুন দ্রুত নিয়ন্ত্রণ করার ক্ষয়ক্ষতি কম হয়েছে। আগুন লাগার কারণ অনুসন্ধান করা হচ্ছে বলে জানান তিনি।

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আগুন

রোহিঙ্গা মাঝিরা জানায়, চলতি বছরের গত দুই মাসে আশ্রয়শিবিরগুলোতে সাত দফা অগ্নিকাণ্ড ঘটেছে, যা আগে কখনো ঘটেনি। হঠাৎ করে আগুন লাগার পেছনে অন্য কোনও কারণ বা নাশকতার বিষয় আছে কি না, অনুসন্ধান করা জরুরি।

রাজাপালং ইউনিয়নের কুতুপালং এলাকার মেম্বার প্রকৌশলী হেলাল উদ্দিন বলেন, অধিকাংশ রোহিঙ্গা বসতি বাঁশ ও ত্রিপল দিয়ে বানানো এবং একটির সঙ্গে আরেকটি লাগানো। একটি শেডে ৪০ থেকে ৫০টি পরিবার থাকে। কোনো একটি ঘরে আগুন লাগলে অন্য ঘরগুলো রক্ষার উপায় নেই। এ ছাড়া শিবিরগুলোতে ফায়ার সার্ভিস বাহিনীর কোনো স্টেশন নেই। ২০ থেকে ৪০ কিলোমিটার দূরে উখিয়া ও টেকনাফ সদর থেকে ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি পৌঁছাতে পৌঁছাতে সবকিছু পুড়ে শেষ হয়ে যায়। 

গত মঙ্গলবার বিকেলে প্রায় দুই ঘণ্টার আগুনে বালুখালী ক্যাম্প-৫-এর ৫৫৩টি রোহিঙ্গা বসতি পুড়ে যায়। এর মধ্যে ৪৬০টি বসতি সম্পূর্ণ এবং বাকিগুলো আংশিক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। গৃহহীন হয়ে পড়েন অন্তত তিন হাজার রোহিঙ্গা শরণার্থী। এর বাইরে আরও তিনটি মক্তব, তিনটি মসজিদ, ছয়টি এনজিও স্কুল ও একটি ফিল্ড হাসপাতাল পুড়ে গেছে। আগুনে মো. আয়াছ (৩) নামের এক রোহিঙ্গা শিশুর মৃত্যু হয়েছে। আশ্রয়শিবিরের বি ব্লকের মোছরাবাজার এলাকার পাহাড়ের ঢালুর একটি রোহিঙ্গা বাড়ির রান্নাঘরের গ্যাসের চুল্লি থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছিল।

ইত্তেফাক/এএইচপি

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

ইউপি সদস্যকে গণধর্ষণের অভিযোগ 

সুনামগঞ্জে বন্যার্তদের মধ্যে ত্রাণ বিতরণ

অধ্যক্ষ লাঞ্ছিতের ঘটনায় আরও ১ গ্রেফতার, ফাঁড়ি ইনচার্জ প্রত্যাহার

ব্যাঙ হত্যার দায়ে দুই শিকারিকে অর্থদণ্ড

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

বন্যায় সিরাজগঞ্জে ৬৫ হাজার কৃষকের ফসল নষ্ট

সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতালে চিকিৎসক-নার্স সংকট, দুর্ভোগ চরমে  

নদী থেকে জীবিত হরিণ উদ্ধার করলেন কৃষক বাচ্চু

টুং টাং শব্দে মুখরিত কামার পল্লী