শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ১৮ আষাঢ় ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

কাপ্তাই হ্রদে ‘রাঙ্গাতরী’র শুভযাত্রা 

আপডেট : ১৬ মার্চ ২০২২, ১৫:২৪

রাঙ্গামাটিতে পর্যটকদের কাপ্তাই হ্রদ ভ্রমণের পরিপূর্ণতা দিতে রাঙ্গাতরী নামে নতুন একটি হাউস বোট প্রমোদতরী কাপ্তাই হ্রদে যাত্রা শুরু করেছে। রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মিজানুর রহমান বুধবার (১৬ মার্চ) সকালে শহীদ মিনার এলাকায় পর্যটন নৌ অবতরণ ঘাটে রাঙ্গাতরী নামে হাউস বোটটি উদ্বোধন করেন।

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মিজানুর রহমান বলেন, ‘সবুজ পাহাড়ে ঘেরা রাঙ্গামাটির কাপ্তাই হ্রদের অতুলনীয় সৌন্দর্য উপভোগ করতে রাঙ্গাতরী পর্যটকদের মাঝে রাঙ্গামাটি ভ্রমণের আনন্দ যোগাবে।’ কাপ্তাই হ্রদে নৌ-ভ্রমণে রাঙ্গাতরী পাহাড়ের পর্যটন উন্নয়নে সহায়ক ভূমিকা রাখবে বলেও তিনি আশা প্রকাশ করেন।

উদ্যোক্তারা জানান, নির্দিষ্ট প্যাকেজে নৌ-ভ্রমণের রাঙ্গাতরীর মাধ্যমে কাপ্তাই হ্রদে ঘুরতে পারবেন বেড়াতে আসা পর্যটকরা। সুভলং ঝর্ণাসহ হ্রদবেষ্টিত প্রাকৃতিক পাহাড়ি এলাকা ভ্রমণসহ হ্রদে রাঙ্গাতরীতে রেস্টুরেন্টে মধ্যাহ্ন ভোজের জন্য খাওয়ার টেবিল ও রাত্রিযাপনে উন্নত ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। রাঙ্গাতরীতে রয়েছে জেনারেটরের মাধ্যমে বিদ্যুৎ সুবিধা, দুইজন করে থাকার জন্য ৬টি রুমে ৬টি খাট, দুইটি টয়লেটসহ সামনে রয়েছে বসে প্রকৃতিকে উপভোগ করার জন্য উন্নতমানের সোফাসেট। 

রাঙ্গামাটি ভ্রমণে পর্যটকদের স্বল্প বাজেটের মধ্যে সবচেয়ে মানসম্মত সার্ভিস দেওয়া হবে বলে জানান উদ্যোক্তারা।

এ সময় রাঙ্গামাটি জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট মোকতার আহমেদ, রাঙ্গামাটি প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার আল হক, উদ্যোক্তা তোফায়েল আহমেদসহ রাঙ্গামাটি ট্যুরিস্ট পুলিশের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। উদ্বোধনের পর রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক প্রমোদতরীতে চড়ে বিভিন্ন দিক ঘুরে দেখেন।

ইত্তেফাক/এসজেড

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

পদ্মা সেতু: বাগেরহাটে ঘুরে দাঁড়াবে পর্যটন শিল্প

ত্রিপুরাপাড়ায় সন্ত্রাসীদের এলোপাথাড়ি গুলি, নিহত ৩

রাঙ্গামাটির বাঘাইছড়ি-জুরাছড়ি-বরকলের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত

টানা বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে বাঘাইছড়ির নিম্নাঞ্চল প্লাবিত

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

চন্দ্রঘোনায় ডুবে গেছে ঘাটের পাটাতন, বন্ধ হতে পারে ফেরি চলাচল

ভারী বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে বাঘাইছড়ির নিম্নাঞ্চল প্লাবিত

ভারী বর্ষণে রাঙ্গামাটি শহরের প্রবেশ পথে ভাঙন 

বিশেষ সংবাদ

রাঙ্গামাটির ভূমিধসের ৫ বছর, এখনো সেই ঝুঁকিপূর্ণ পাহাড়েই বসবাস