মঙ্গলবার, ০৫ জুলাই ২০২২, ২০ আষাঢ় ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

ভিনদেশি হয়ে আসলেন নিজ দেশে

আপডেট : ২১ মার্চ ২০২২, ১০:৩২

দেশটিতে ফুটবল, টেনিস বা ক্রিকেটের সঙ্গে হয়তো তুলনায় আসবে না। তবে কাবাডিতে ইংল্যান্ড খুবই পরিচিত দল। তবে স্থানীয় লোকেদের কাছে খেলাটি এখনো অচেনাই বলা যায়। তাই খেলাটির প্রসারের জন্য চেষ্টা করে যাচ্ছেন এশিয়ান বংশোদ্ভূত তরুণেরা। যারা চাকরির পাশাপাশি সময় দিচ্ছেন কাবাডিতেও।

বঙ্গবন্ধু কাপ আন্তর্জাতিক কাবাডিতে এবারই প্রথম খেলতে এসেছে ইংল্যান্ড। সেই দলের একজন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত তাহির কবির। বাবা জাহাঙ্গীর কবির ও মা সালেহা খান সিলেটের বিয়ানীবাজারের হলেও তারা লন্ডনে থিতু হয়েছেন তাহিরের জন্মের আগে। পাঁচ বছর বয়সে বাংলাদেশে এসেছিলেন তাহির, কিন্তু তখনকার স্মৃতি বলতে গেলে কিছুই মনে নেই তার। দীর্ঘ সময় বিরতির পর ২২ বছর বয়সে ‘নিজ দেশে’ ভিনদেশি হয়ে আসলেন তাহির, ‘বাবার ট্রাভেল এজেন্সি আছে লন্ডনে এবং মা বাড়িতে দর্জির কাজ করে। পাঁচ বছর বয়সে এক বার বাংলাদেশে এসেছিলাম। অনেক দিন পর এবার এলাম। সিলেটে যাওয়ার ইচ্ছা আছে। এখান থেকে পাঁচ-ছয় ঘণ্টা দূরত্ব। খুব বেশি দূরে না। এখন বায়োবাবলে থাকায় যেতে পারছি না। আমার নানা-নানি সিলেটে আছে। তাদের সঙ্গে দেখা করার ইচ্ছা আছে।’

সোজা বাংলায় ভাঙা ভাঙা গলায় কথা বললেও তাহির সিলেটের আঞ্চলিক ভাষা বলতে পারেন বাধা ছাড়াই। লন্ডন কিংস কলেজে ডেন্টালে ৪র্থ বর্ষের ছাত্র তিনি। কলেজ থেকেই কাবাডিতে উঠে আসা তার, ‘আমি তিন বছর ধরে কলেজ দলের অধিনায়ক। কিছু টুর্নামেন্ট জিতেছি। স্কাউটিংয়ের মাধ্যমে আমাকে খুঁজে বের করার পর ট্রায়াল দিতে বলে কোচ। কোচ বলল, বাংলাদেশে আমাদের টুর্নামেন্ট আছে, তুমি যদি চাও আমাদের সঙ্গে আসতে পারো।’

তাহিরের মতো ইংল্যান্ডের বেশির ভাগ খেলোয়াড়ই উঠে এসেছেন বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজ থেকে। চাকরি থাকায় একসঙ্গে অনুশীলন করার সময় হয় না, ‘অন্য সবার মতো আমিও পার্ট টাইমার। জব থাকা সত্ত্বেও আমরা খেলি। বেশির ভাগ সময় আমাদের একসঙ্গে অনুশীলন করাটা হয়ে ওঠে না। ইংল্যান্ডে কাবাডি প্রসারের জন্য আমাদের চেষ্টা করে যেতে হবে। আমরা প্রতিটি টুর্নামেন্টে উন্নতির চেষ্টা করছি।’

কাবাডিতে বাংলাদেশ দলকে আগে থেকেই অনুসরণ করেন তাহির। টিভি স্ক্রিনে খেলা দেখেছেন তুহিন তরফদারদের। কিন্তু পরশু ম্যাচে ৪৬-১৫ পয়েন্টে হারার পর দুই দলের মধ্যে বিস্তর ফারাকটা টের পান তিনি। তাই নিজেই বুঝছেন বাংলাদেশের হয়ে খেলার সুযোগটা হয়তো আসবে না, ‘আমার দেশের বিপক্ষে খেলাটা অসাধারণ এক অনুভূতি। ওদের সঙ্গে আমাদের পার্থক্যটা বিস্তর। অবাক করার মতো। আমরা যে কত পিছিয়ে সেটা এই ম্যাচ খেলে বুঝেছি। এই জন্য দলে ঢোকা কঠিন হবে আমার জন্য।’

ইত্তেফাক/ইআ

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

চ্যাম্পিয়ন ট্রফি কাউকে নিতে দেয়নি বাংলাদেশ

সেমিফাইনালে বাংলাদেশ-ইরাক মুখোমুখি আজ

যুব কাবাডিতে চ্যামিপয়ন মৌলভীবাজার ও ঝিনাইদহ

নারী প্রতিবন্ধকতা দূর করতে চান মাধবী ও রিয়া

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

 জাতীয় যুব কাবাডির জমকালো উদ্বোধন

কাবাডি লিগ শুরু