শনিবার, ২১ মে ২০২২, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

যে কারণে শ্রীলঙ্কায় হঠাৎ ভেঙে পড়লো অর্থনীতি, রাজনীতি ও সরকার

আপডেট : ১৫ মে ২০২২, ১০:৪৭

দক্ষিণ এশিয়ার দ্বীপরাষ্ট্র শ্রীলঙ্কা এখন নজিরবিহীন অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক সংকট মোকাবিলা করছে। বিশ্লেষকরা বলছেন, সর্বগ্রাসী দুর্নীতি আর ধারাবাহিক অর্থনৈতিক অব্যবস্হাপনা দেশটিকে তিলে তিলে ধ্বংসের কিনারায় নিয়ে গেছে। খবর বিবিসি বাংলার।

যদিও তিন বছর আগেও সবার ধারণা ছিল যে শতভাগ শিক্ষিত মানুষের এ দেশটির অর্থনীতি স্হিতিশীল। এর মূল ভিত্তি ছিল পর্যটন থেকে আসা আয়, যা থেকে ক্রমশ বাড়ছিল রেমিট্যান্স। কিন্তু সব ধারণাকে পাল্টে দিয়ে বর্তমান শ্রীলঙ্কায় এখন চলছে নজিরবিহীন সংকট। একটা দেশের অর্থনীতি যখন ভেঙে পড়ে তখন আর রাজনীতিও ঠিক থাকে না। ধীরে ধীরে ভেঙে পড়ে সব ব্যবস্হা। মানুষ তখন বাধ্য হয়ে রাজপথে নামে। আর তেমনটিই হচ্ছে শ্রীলঙ্কায়।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা দেশটির এই বর্তমান পরিস্হিতির জন্য রাজাপাকসের সরকারকেই দায়ী করেছেন। তারা সরকারের একের পর এক ভুল নীতি, দুর্নীতি আর আর্থিক অব্যবস্হাপনাকে এর মূল কারণ বলে অভিহিত করেছেন। দাতা দেশ ও সংস্হাগুলোর ঋণ পরিশোধে নিজের অক্ষমতা প্রকাশের পরই দেশটির এই করুণ অবস্হা বিশ্লেষকদের কাছে উন্মোচিত হতে থাকে। একদিকে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ শূন্যের কোঠায় নেমে আসা, অন্যদিকে খাদ্যপণ্য, জ্বালানি ও ওষুধ সংকটসহ নানা সমস্যা তাদের পঙ্গু করতে থাকে।

দেশটিকে ১৯৪৮ সালের স্বাধীনতা লাভের পর থেকে এমন সংকট আর দেখতে হয়নি। অথচ ২৬ বছরের গৃহযুদ্ধের অবসানের পর প্রাণ ফিরে এসেছিল অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে, জমজমাট হয়ে উঠছিল পর্যটনসহ সেবা খাত। তাহলে মাত্র দুই বছরের কোভিড মহামারির পর এভাবে ভেঙে পড়ল কেন শ্রীলঙ্কা? কলম্বোয় সিলন চেম্বার অব কমার্সের এক অনুষ্ঠানে সম্প্রতি সেখানকার কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. ইন্দ্রজিত কুমার স্বামী বলেন, এ সংকট হুট করে জন্ম হয়নি বরং এ সংকটের উৎসের দিকে তাকাতে হলে অনেক আগে যেতে হবে। ফিরে যেতে হবে সেই পঞ্চাশের দশকে। তার মতে, আর্থিক ব্যবস্হাপনায় দুর্বলতার কারণে দেশটির অর্থনীতি কখনোই নিরাপদ থাকার মতো স্হিতিশীলতা পায়নি। গত কয়েক বছরে এর সঙ্গে যোগ হয়েছে সরকারের একের পর এক ভুল সিদ্ধান্ত।

তিনি বলেন, এর সঙ্গে খাপ খাওয়ানোর জন্য যা করার দরকার ছিল তা কখনোই হয়নি। কিন্তু যা হয়েছে তা হলো নিয়মিত বার্ষিক বাজেট ঘাটতির কারণে রাজস্ব কমেছে নাটকীয়ভাবে। কমেছে রপ্তানি আর বেড়েছে ঘাটতি। তবে সমস্যাটা ব্যাপক বেড়েছে গত ১০-২০ বছরে। কুমারাস্বামী বলেন, আগেও বিশ্বব্যাংক কিংবা আইএমএফের কাছে যেতে হয়েছে বারবার।

ইত্তেফাক/টিএ

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

বেশি দামের আশায় পাঞ্জাবে গম মজুত করছে কৃষকরা!

দক্ষিণ কোরিয়ায় জো বাইডেন

শ্রীলঙ্কায় ভয়াবহ খাদ্য সংকটের হুঁশিয়ারি

আফগানিস্তানে টিভিতে নারী উপস্থাপকদের মুখ ঢেকে রাখার নির্দেশ

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

শ্রীলঙ্কায় স্কুল বন্ধ, জ্বালানি ঘাটতির কারণে কার্যক্রম সীমিত

শিগগিরই পুরোপুরি মুক্ত হবে লুহানস্ক: রুশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী

রাশিয়া ও ইউক্রেনের কৃষি পণ্য বিশ্ব বাজারে ফের সরবরাহের আহ্বান জাতিসংঘ প্রধানের

ইতিহাসে প্রথমবারের মতো ঋণখেলাপিতে শ্রীলঙ্কা