বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২, ১৫ আষাঢ় ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

ঢাবি এলাকায় ছাত্রলীগ-ছাত্রদল সংঘর্ষ: কোনো পক্ষই মামলা করেনি

আপডেট : ২৮ মে ২০২২, ০১:১৩

রাজধানীর হাইকোর্ট ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্জন হল এলাকায় ছাত্রলীগ ও ছাত্রদলের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় শুক্রবার সন্ধ্যায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কোনো পক্ষই মামলা করেনি। এর আগে গত মঙ্গলবার ঢাবি ক্যাম্পাসে ছাত্রলীগ-ছাত্রদল সংঘর্ষের ঘটনায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ড. মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ হল ছাত্রলীগের সভাপতি জাহিদুল ইসলাম জাহিদ বাদী হয়ে শাহবাগ থানায় একটি মামলা করেন। মামলায় ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েল, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার আহ্বায়ক আক্তার হোসেন ও সদস্য সচিব আমান উল্লাহ আমানসহ ৯৪ জন নেতাকর্মীকে আসামি করা হয়েছে।

গত মঙ্গলবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিন থেকে রাজনৈতিক কর্মসূচি শেষ করে হলে ফেরার সময় হামলা করেছেন এমন অভিযোগ করা হয়েছে মামলায়। গতকাল এ বিষয়ে পুলিশের রমনা বিভাগের উপ-কমিশনার সাজ্জাদুর রহমান বলেন, বৃহস্পতিবারের ঘটনায় শুক্রবার পর্যন্ত কোনো পক্ষই মামলা করেনি।

শাহবাগ থানার ওসি মওদুত হাওলাদার বলেন, গত মঙ্গলবারের ঘটনায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদুল্লাহ হল ছাত্রলীগের সভাপতি জাহিদুল ইসলাম জাহিদ একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগের ভিত্তিতে আমরা  মামলা নিয়েছি। শাহবাগ থানার মামলা নং ০৭।

মামলার এজহারে বলা হয়েছে, মঙ্গলবার দোয়েল চত্বরসংলগ্ন কার্জন হলের সামনে পাকা রাস্তার ওপর বেআইনিভাবে সংঘবদ্ধ হয়। এ সময় তারা লাঠিসোঁটা নিয়ে বাদী ও তার সঙ্গে থাকা সাধারণ শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা এবং এলোপাতাড়ি মারধর করে। এ সময় শহীদুল্লাহ হলের শিক্ষার্থী মোমিনুল ইসলাম বিধান, মো. শরিফুল ইসলাম, ফয়সাল আহমেদ, মো. রায়হান, আশরাফুল ইসলাম আসফি, মুশতাক শাহরিয়ার সজীব, জাহিদুল ইসলাম, নাহিদুল ইসলাম শান্তসহ ফজলুল হক মুসলিম হল ও জগন্নাথ হলের অসংখ্য শিক্ষার্থী আহত হয়।

মামলার বাদী জাহিদুল ইসলাম জাহিদ বলেন, ‘নিয়মিত রাজনৈতিক কর্মসূচির অংশ হিসেবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে গিয়েছিলাম। সেখান থেকে হলে ফেরার পথে মোকাররম ভবন পর্যন্ত এলে ছাত্রদলের একটি গ্রুপ সাইফ মাহমুদ জুয়েলের নেতৃত্বে আমাদের ওপর হামলা চালায়। তিনি বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে দীর্ঘদিন যাবৎ কোনো ধরনের সংঘাত দেখা যায়নি। ছাত্রদলের তা পছন্দ না হওয়ায় তারা ক্যাম্পাসে সন্ত্রাসী কার্যক্রম পরিচালনা করতে চায়।

রিজভীসহ ৩০ জনের বিরুদ্ধে মামলা: মঙ্গলবার ঢাবি ক্যাম্পাসে ছাত্রদলের ওপর ছাত্রলীগের বর্বোরচিত হামলা দাবি করে বিএনপি বুধবার রাতে একটি মশাল মিছিল করে রাজধানীর বিজয়নগর এলাকায়। বিজয়নগরের বক্স কালভার্ট এলাকায় পুলিশের সঙ্গে বিএনপির মিছিলকারীদের সংঘর্ষ বাঁধে। এ সময় বিএনপির নেতাকর্মীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। পুলিশও লাঠিচার্জ করে। এ ঘটনার পরদিন বৃহস্পতিবার এসআই কামরুল হাসান বাদী হয়ে পল্টন থানায় একটি মামলা করেন। 

মামলায় বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীকে ১ নম্বর ও ছাত্রদল কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি রওনাকুল ইসলাম শ্রাবণকে ২ নম্বর আসামি করা হয়েছে। মামলায় ৩০ জনের নামোল্লেখ করে অজ্ঞাত ১০০ থেকে ১৫০ জনকে আসামি করা হয়। পল্টন থানার ওসি সালেহ উদ্দিন বলেন, অনুমতি ছাড়াই বিজয়নগরে বিএনপির মশাল মিছিল বের করার সময় পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ৯ জনকে আটক করে। এর মধ্যে আট জনকে রিমান্ডের আবেদন জানিয়ে আদালতে পাঠানো হয়। আদালত প্রত্যেকের এক দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। শুক্রবার তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। শনিবার তাদের আদালতে পাঠিয়ে দেওয়া হবে। 

ইত্তেফাক/এএইচপি

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

ডিজিটাল লেনদেন হবে ডিএনসিসির ৬ গরুর হাটে

দুর্নীতির অভিযোগে চাকরি গেলো ডিএসসিসির কর কর্মকর্তাসহ ৩৪ জনের

বিমানবন্দর স্টেশনে ৪ দিন থামবে না যেসব ট্রেন

বিপুল ইয়াবাসহ দুই কারবারি গ্রেফতার

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

শিক্ষককে পিটিয়ে হত্যা-গলায় জুতার মালা পরানো ঘটনায় ১৭ নাগরিকের উদ্বেগ

‘অর্থনৈতিক অগ্রগতি অব্যাহত রাখতে হবে’

শুদ্ধাচার পুরস্কারে ভূষিত হলেন আইজিপি

একদিনে আরও ১৭ ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে