শনিবার, ০১ অক্টোবর ২০২২, ১৫ আশ্বিন ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

আঘাত এলে পালটা আঘাতের জন্য প্রস্তুত আওয়ামী লীগ

আপডেট : ০৯ জুন ২০২২, ০১:৪৭

আওয়ামী লীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনাকে কেউ হুমকি দিলে কাউকে রেহাই দেওয়া হবে না বলে বিএনপি-জামায়াতের প্রতি কঠোর হুঁশিয়ারি দিয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক। 

গতকাল বুধবার (৮ জুন) দুপুরে রাজধানীতে ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগ আয়োজিত এক বিশাল বিক্ষোভ সমাবেশে তিনি আরো বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশে শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে হুমকি দিলে, শেখ হাসিনাকে হত্যার হুমকি দিলে কাউকে রেহাই দেওয়া হবে না। মির্জা ফখরুল সাহেব, মনে রাখতে হবে, ইট মারলে পাটকেলটি খেতে হবে। কেউ যদি আঘাত করে, তাহলে পালটা আঘাতের জন্য আমরা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে প্রস্তুত রয়েছি।’

দুপুর দেড়টার পর থেকে তেজগাঁও সাতরাস্তা মোড় হয়ে হোটেল সোনারগাঁওয়ের সামনে নেতাকর্মীরা মিছিল নিয়ে জমায়েত হতে শুরু করেন। সোনারগাঁও হোটেলসংলগ্ন প্রান্তে ট্রাকের অস্থায়ী মঞ্চে বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয়সহ মহানগর নেতারা। তেজগাঁও সাতরাস্তা মোড় হয়ে সোনারগাঁও হোটেলের সামনে থেকে পাম্হপথ হয়ে ধানমন্ডির-৩২ নম্বরে গিয়ে বিক্ষোভ সমাবেশ শেষ হয়। ‘পঁচাত্তরের হাতিয়ার গর্জে ওঠো আরেকবার’ এমন স্লোগানকে বিএনপি-জামায়াতের পঁচাত্তরের হত্যাকাণ্ডের পুনরাবৃত্তি ঘটানো এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার হুমকির সমতুল্য অভিহিত করে এর প্রতিবাদে এই বিক্ষোভ সমাবেশের আয়োজন করে ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগ। বিক্ষোভ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি শেখ বজলুর রহমান। সমাবেশ পরিচালনা করেন মহানগর উত্তরের সাধারণ সম্পাদক এস এম মান্নান কচি। সমাপনী বক্তব্যে সমাবেশ সফল করার জন্য নেতাকর্মীদের ধন্যবাদ জানান ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি শেখ বজলুর রহমান। যানজটে ভোগান্তির কারণে ঢাকাবাসীর কাছে দুঃখ প্রকাশ ও ক্ষমা প্রার্থনা করে তিনি বলেন, ‘রাজপথে জবাব দেওয়ার জন্য একটু নেমেছি। আপনাদের একটু সময় নষ্ট হয়েছে। যানজটে কষ্ট হয়েছে। এজন্য আমরা কড়জোড়ে ক্ষমা প্রার্থনা করছি।’

কেন্দ্রীয় নেতাদের মধ্যে বিক্ষোভ মিছিল-পূর্ব সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, উপদপ্তর সম্পাদক সায়েম খান, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সদস্য শাহাবুদ্দিন ফরাজি, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলামসহ মহানগরের নেতারা।

এদিকে কর্মদিবসে বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হওয়ার কারণে রাজধানীতে যানজটের কারণে ব্যাপক ভোগান্তি দেখা দেয়। বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হওয়ার কারণে কিছু কিছু এলাকায় গাড়ি চলাচল থমকে যায়। বিক্ষোভ সমাবেশের আগে জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন, ‘বাংলাদেশকে সোনার বাংলাদেশ হিসেবে বিনির্মাণে লাগাতার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তার নেতৃত্বে আমরা সহনশীলতার রাজনীতি করে যাচ্ছি। কিন্তু আমাদের সহনশীলতাকে দুর্বলতা ভাবার কোনো কারণ নেই। আজকের সমাবেশ এটাই প্রমাণ করে।’

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, আজকের এই বিক্ষোভ সমাবেশে লাখ লাখ লোকের উপস্থিতি প্রমাণ করে আওয়ামী লীগ সব ষড়যন্ত্রের জাল ছিন্ন করে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাবে। এটাই আজকের দিনে আমাদের প্রত্যয়। ধানমন্ডি ৩২ নম্বর বঙ্গবন্ধু জাদুঘর ভবনের সামনে গিয়ে বিক্ষোভ সমাবেশের সমাপনী ঘোষণা করেন ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি শেখ বজলুর রহমান।

ইত্তেফাক/ ইআ