বৃহস্পতিবার, ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৬ মাঘ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

আখাউড়ায় ট্রেন দাঁড় করিয়ে রেল সচিবের প্রকল্প পরিদর্শন, যাত্রীদের ক্ষোভ

আপডেট : ১১ জুন ২০২২, ১৭:৪৫

আখাউড়ায় যাত্রীবাহী ট্রেন দাঁড় করিয়ে রেখে রেলওয়ে জংশন এলাকা পরিদর্শন করেছেন রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সচিব ড.মো. হুমায়ুন কবির। এতে যাত্রীদের ক্ষোভের সৃষ্টি হয়

শনিবার সকালে তিনি ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা আন্তঃনগর মহানগর প্রভাতি এক্সপ্রেস ট্রেনে আখাউড়া রেলওয়ে জংশন স্টেশনে আসেন সচিব ড. মো. হুমায়ুন কবির। সময় তিনি যাত্রীবাহী আন্তঃনগর মহানগর প্রভাতি এক্সপ্রেস ট্রেন ২০ মিনিট দাঁড় করিয়ে রেখে আখাউড়া রেলওয়ে জংশন এলাকা পরিদর্শন করেন।

ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা প্রভাতি এক্সপ্রেস ট্রেন আখাউড়া রেলওয়ে জংশন স্টেশনে যাত্রা বিরতির পর নির্ধারিত সময়ে সকাল ১০টা ১৫ মিনিটে ছেড়ে যাওয়ার কথা থাকলেও ২০ মিনিট বিলম্বে ১০টা ৩৫ মিনিটে রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. হুমায়ুন কবিরকে নিয়ে চট্টগ্রামের উদ্দেশ্যে যাত্রা করেন। এ সময় যাত্রীবাহী আন্তঃনগর মহানগর প্রভাতি ট্রেনের যাত্রীরা চরম ক্ষোভ প্রকাশ করেন। বিলম্বে ট্রেন ছাড়ার কারণে যাত্রীরা ভোগান্তির শিকার হন।

রেলপথ মন্ত্রণালয়ের এক চিঠি সূত্রে জানা গেছে, সকাল ৭টা ৪৫ মিনিটে ঢাকার কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন থেকে চট্টগ্রামগামী আন্তঃনগর মহানগর প্রভাতি এক্সপ্রেস ট্রেনে আখাউড়া রেলওয়ে জংশন স্টেশনে ১০টা ১৫ মিনিটে উপস্থিত হওয়ার কথা রেলপথ মন্ত্রণালয়ে সচিব ড. হুমায়ুন কবিরের। এ সময় তিনি আখাউড়া জংশন স্টেশন এলাকায় চলমান প্রকল্পের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজ পরিদর্শন করবে। পরে বেলা ১১টায় আখাউড়া রেলওয়ে জংশন স্টেশন থেকে গ্যাংকার যোগে কুমিল্লা ও লাকসামের উদ্দেশ্যে ডাবল রেললাইন প্রকল্প কাজের পরিদর্শনে যাওয়ার পথে বেলা সাড়ে ১১ টায় রেলসচিব কসবা রেলওয়ে স্টেশনে চলমান কাজ পরিদর্শন করার কথা। তাছাড়াও চিঠিতে আরও উল্লেখ রয়েছে, গ্যাংকার যোগে কুমিল্লা ও লাকসাম রেলওয়ে জংশন স্টেশনে যাওয়ার পথে তিনি বেলা ১১টা ৪০ মিনিটে কুমিল্লার সালদানদী রেলওয়ে স্টেশনসহ সালদানদী রেল সেতু এবং সালদানদী স্টেশন এলাকায় রেলপথ উন্নয়নমূলক নির্মাণাধীন কাজ পরিদর্শন করবেন। এছাড়া দুপুর ১২টা ১৫ মিনিটে এ রেলপথ প্রকল্পের র‌্যাংক কটন জোন সরজমিন পরিদর্শনের কথা ছিল।

কিন্তু তাকে বহন করা আন্তঃনগর মহানগর প্রভাতি ট্রেনের সংরক্ষিত বিলাসবহুল সেলুন কোচ থেকে সকাল ১০টা ১৭ মিনিটে আখাউড়া রেলওয়ে জংশন স্টেশনে নামেন। এ সময় রেল সচিব ড. হুমায়ুন কবির যাত্রীবাহী আন্তঃনগর মহানগর প্রভাতি ট্রেনটি দাঁড় করিয়ে রেখে আখাউড়া রেলওয়ে জংশন স্টেশন এলাকা ঘুরে দেখেন। পরে তিনি রেলওয়ে কর্মকর্তাদের নিয়ে ২০ মিনিট বিলম্বে আন্তঃনগর মহানগর প্রভাতি ট্রেন যোগে সকাল ১০টা ৩৫ মিনিটে আখাউড়া রেলওয়ে জংশন স্টেশন ছেড়ে যায়।

 রেলওয়ে জংশন এলাকা পরিদর্শন করছেন রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সচিব ড.মো. হুমায়ুন কবির।

অভিযোগ উঠেছে, রেলপথ মন্ত্রণালয়ে সচিব ড. হুমায়ুন কবির আখাউড়া রেলওয়ে জংশন স্টেশন থেকে গ্যাংকার যোগে কসবা রেলওয়ে স্টেশন ও সালদা নদী রেলওয়ে স্টেশন এলাকায় চলমান প্রকল্পের নির্মাণ কাজ সরেজমিনে পরিদর্শনের কথা থাকলেও তিনি প্রকল্প কাজ পরিদর্শন করেননি।

আখাউড়া রেলওয়ে জংশন স্টেশন পরিদর্শনের সময় তিনি সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন। ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর বাধায় কসবা রেলওয়ে স্টেশনের নির্মাণ কাজ দীর্ঘ দিন বন্ধ রয়েছে- এ ব্যাপারে জানতে চাইলে রেল সচিব বলেন, বিষয়টি দুই দেশের মধ্যে আলোচনা চলছে। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব এটা চালু করা হবে। আশা করছি খুবই শিগগিরই কাজ শুরু হবে।

আখাউড়া-লাকসাম রেলপথ নির্মাণ কাজ কবে নাগাদ শেষ হবে জানতে চাইলে তিনি বলেন, কাজ পরিদর্শন করছি। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব তা চালু করা হবে। পরে রেল সচিব ড. মোঃ হুমায়ুন কবীর মহানগর এক্সপ্রেস ট্রেনে কুমিল্লা যান।

এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আখাউড়া-লাকসাম রেলপথ ডুয়েলগেজ প্রকল্প পরিচালক শহীদুল ইসলাম, রেলওয়ের অতিরিক্ত পরিচালক কামরুল হাসান প্রমুখ।

ইত্তেফাক/ইউবি