রোববার, ২৯ জানুয়ারি ২০২৩, ১৪ মাঘ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

খালেদা জিয়া জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে আর উল্লাস করছেন সরকার: রিজভী

আপডেট : ১২ জুন ২০২২, ২৩:২৮

জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে সাবেক প্রধানমন্ত্রী, বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া অথচ সরকার উল্লাস করছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ। তিনি বলেন, বেগম খালেদা জিয়ার জীবন বিপন্ন। ওরা উল্লাস করছেন। আদিমকালে শিকারকে আঘাত করে, তাকে কব্জায় নেয়ার পর শিকারি যেভাবে উল্লাস করত সেই আদিম উল্লাস করছেন। গোটা জাতীকে বন্দী করে, গোটা জাতীর বাক স্বাধীনতাকে বন্দী করে, গোটা জাতীর মৌলিক অধিকারকে বন্দি করে, শেখ হাসিনা এখন উল্লাস করছেন পদ্মা সেতু দেখিয়ে।

রবিবার (১২ জুন) বিকালে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের এক দোয়া মাহফিলে তিনি এ সব কথা বলেন। বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি, বিদেশে উন্নত সুচিকিৎসা ও সুস্থতা কামনায় এ দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

রিজভী বলেন, নেত্রী জটিল সমস্যায় ভুগছেন। লিভারের জটিল সমস্যা, কারাগারে নেওয়ার আগে চোখে অপারেশন হয়েছিল। সেই জরাজীর্ণ কারাগার, পুরনো বিল্ডিংয়ের ধুলোবালি তার অপারেশন করা চোখে পড়েছে। এটাও একটা নির্যাতন। তারপর করোনা আসলো, সেই করোনার মধ্যেই তাকে বাসায় নিয়ে আসা হয়। তারপর ভুগলেন ভয়াবহ করোনায়। এর মধ্যে গতকাল আমরা জানলাম তার হার্ট  অ্যাটাক হয়েছে। তাহলে বুঝুন কী চরম শারীরিক অসুস্থতার মধ্যে তিনি পড়েছেন। আমি গতকাল দেখতে গিয়েছিলাম, দূর থেকে দেখেছি। নেত্রীকে চেনা যায় না। এ সময় রিজভী আবেগ আক্রান্ত হয়ে পড়েন।

পদ্মা সেতুর প্রসঙ্গে রিজভী বলেন, মনে হচ্ছে দক্ষিণ-পশ্চিম অঞ্চলের জন্য যে সেতুটি, সেটি একবারে নিজের পৈত্রিক টাকা থেকে তিনি বানিয়ে দিচ্ছেন। কিন্তু একবারও তিনি বললেন না যে এটা অল্প টাকায় বানানো যেত। বিশ্ব ব্যাংক যে উদ্যোগ নিয়েছিল সেখানে তার মন্ত্রী, তার উপদেষ্টারা ঘুষ চাওয়াতে বিশ্ব ব্যাংক সেটা বাতিল করেছে। বিশ্ব ব্যাংক সবচেয়ে অল্প সুদে প্রকল্পে অর্থায়ন করে। এখন চীনের কাছ থেকে চড়া সুদ নিয়ে এতদিনে পদ্মা সেতু তিনি করেছেন। এই চড়া সুদের কারণে প্রায় ১ লাখ টাকা ঋণ নিয়ে নবজাতক শিশু তার মায়ের পেট থেকে জন্ম নিচ্ছে। এটা এই সরকারের অবদান। গোটা জাতীকে, নবজাতক শিশুকে তিনি ঋণগ্রস্ত করেছেন।

সংগঠনের সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে দোয়া মাহফিলে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব হাবীব উন নবী খান সোহেল, স্বেচ্ছাসেবকদলের সাধারণ সম্পাদক আবদুল কাদের ভূঁইয়া জুয়েল, সিনিয়র সহ-সভাপতি গোলাম সরোয়ার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে সকালে প্রেসক্লাবের সামনে সমাবেশে রিজভী  সরকারের উদ্দেশে বলেন, আপনি বলেছেন পদ্মা সেতু উদ্বোধনের সময় দেশ-বিদেশ থেকে যারা আসবে সবাই কে উপহার দেওয়া হবে। আর বাজেটে কি করছেন? একজন ছাত্র একটা ল্যাপটপ কিনতে গেলে তাকে শুল্ক দিতে হবে। মধ্যবিত্তরা একটা ফ্রিজ কিনতে গেলে শুল্ক দিতে হবে। আপনি জনগণের গলায় ফাঁসির দড়ি দিয়ে পদ্মা সেতু দেখাচ্ছেন। আর অন্যদিকে সাবেক প্রধানমন্ত্রী যে ৯ বছর সংগ্রাম করে দেশে গণতন্ত্র ফিরিয়ে দিয়েছেন তিনি হাসপাতালে জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে তাকে সুচিকিৎসা নিতে দিচ্ছেন না। কারণ বিচার আপনার হাতে,আইন আপনার হাতে,আপনি গোটা দেশকে নিজের বাড়ি মনে করেন।প্রধানমন্ত্রী আপনাকে বলতে চাই এভাবে আর চলবে না। 

ইত্তেফাক/এমআর