শুক্রবার, ১৯ আগস্ট ২০২২, ৪ ভাদ্র ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

নারীর চুল কেটে দেওয়ার অভিযোগে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা

আপডেট : ১৬ জুন ২০২২, ২০:১৩

ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে সালিশ বৈঠকে এক নারীর চুল কেটে দেওয়ার অভিযোগে বৈরচুনা ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যান টেলিনা সরকার হিমুর বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। এছাড়া এ ঘটনায় ৯ জনের নাম উল্লেখ করে আরও অজ্ঞাত ৫-৭ জনের নামে মামলা করা হয়েছে। বুধবার (১৫ জুন) ভুক্তভোগী ওই নারী বাদী হয়ে পীরগঞ্জ থানায় এ মামলা করেন।

মামলার এজাহারে জানা যায়, গত রবিবার রাত ১০টার দিকে উপজেলার ভারত সীমান্তবর্তী ইন্দ্রইল মোল্লাপাড়া গ্রামে ভুক্তভোগী ওই নারীর বাড়ির আশপাশে চান্দহোর এলাকার এক অজ্ঞাত যুবক ঘোরাফেরা করতে থাকে। এ সময় ভুক্তভোগী নারীর সঙ্গে ওই যুবকের অনৈতিক সম্পর্ক আছে এমন অভিযোগ তুলে একই গ্রামের আব্দুর রাজ্জাক, রবিউল, ফারুক, শরিফুলের বাড়িতে ডেকে নিয়ে যাওয়া যায়। সেখানে ডেকে নিয়ে আসা হয় ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান টেলিনা সরকার হিমুকে। শুরু হয় বিচার সালিশ বৈঠক। বিচারের এক পর্যায়ে ওই নারীকে মারপিট ও পরনের কাপড় টেনে বিবস্ত্র করে শ্লীনতাহানি ঘটায় বলে এজাহারে উল্লেখ করা হয়। এ সময় বৈঠকে উপস্থিত দুই নারী আম্বরী ও আনছারীর সহায়তায় ইউপি চেয়ারম্যান টেলিনা সরকার ভুক্তভোগীর মাথার চুল কেটে দেন। এরপর ওই নারী অসুস্থ হলে তার স্বামী তাকে পীরগঞ্জ হাসপাতালে ভর্তি করেন। বুধবার ভুক্তভোগী ওই নারী বাদী হয়ে ইউপি চেয়ারম্যান টেলিনা সরকার হিমুসহ ৯ জনের নাম উল্লেখ করে আরও অজ্ঞাত ৫-৭ জনের নামে পীরগঞ্জ থানায় মামলা করেন।

ইউপি চেয়ারম্যান টেলিনা সরকার হিমু তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ‘এলাকাবাসীর অনুরোধে আমি সেখানে যাই। কিন্তু সেখানে কোন নারীর চুল কাটার কোন ঘটনা ছিল না।’ এটি তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র বলে উল্লেখ করেন তিনি। 

এ ব্যাপারে থানায় মামলা হয়েছে উল্লেখ করে পীরগঞ্জ থানার ওসি জাহাঙ্গীর আলম জানান, আসামিদের গ্রেফতারের প্রক্রিয়া চলছে। 

ইত্তেফাক/এএএম