শুক্রবার, ১৯ আগস্ট ২০২২, ৪ ভাদ্র ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

স্বপ্নের পদ্মা সেতুর উদ্বোধনকে ঘিরে শরীয়তপুরে ‘পদ্মা সেতু দেয়ালে-খেয়ালে’  

আপডেট : ২৩ জুন ২০২২, ১৯:৪১

স্বাধীনতা পরবর্তী বাংলাদেশের অন্যতম আনন্দের উপলক্ষ স্বপ্নের পদ্মা সেতু। পদ্মা সেতুর উদ্বোধনকে ঘিরে শরীয়তপুরে ব্যতিক্রম আয়োজন ‘পদ্মা সেতু দেয়ালে-খেয়ালে’।

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মনদীপ ঘরাইয়ের উদ্যোগে শিক্ষার্থীদের ভাবনায় পদ্মা সেতু কেমন তা শরীয়তপুর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের পশ্চিম পাশের সীমানা প্রাচীরে ও শরীয়তপুর-ঢাকা মহাসড়কের পাশে উন্মুক্ত দেয়ালে লাগানো হয়েছে শিক্ষার্থীদের আঁকা পদ্মা সেতুর ছবি ও পদ্মা সেতু নিয়ে কবিতা।

২৫ জুন পদ্মা সেতু উদ্বোধন হবে। তাই সদর উপজেলার ২১টি বিদ্যালয়ের ৪২ পিলারের স্মরণে পদ্মা সেতু নিয়ে ৪২টি কবিতা ও ৪১ টি স্প্যানের স্মরণে ৪১ জন শিক্ষার্থীর আঁকা সেতুর ছবি ও দেয়ালে লাগানো হয়। আর এর নাম রাখা হয়েছে ‘পদ্মা সেতু দেয়ালে-খেয়ালে’ ।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টায় দেয়াল লিখন ও ছবি প্রদর্শনী ‘পদ্মা সেতু দেয়ালে খেয়ালে’ উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক মো. পারভেজ হাসান।

শরীয়তপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মনদীপ ঘরাই বলেন, যে শিশু শিক্ষার্থীর কৈশোরের সঙ্গে তিলে তিলে গড়ে উঠলো পদ্মা সেতু তাদের ভাবনায় এ সেতু কেমন সেটা ফুটিয়ে তোলার জন্য এই কবিতা ও ছবির আয়োজন। পদ্মা সেতু যে সমৃদ্ধির স্বপ্ন দেখায় সেটা যেন প্রতিটি হৃদয়ে ছড়িয়ে যায়। শিক্ষার্থীদের ভাবনা ও পদ্মা সেতুর ছবি প্রদর্শনের জন্য সকল শ্রেণি-পেশার মানুষের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়েছে। প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত উন্মুক্ত থাকবে। ২৩ থেকে ২৫ জুন তিন দিনব্যাপী দেয়াল লিখন ও ছবি প্রদর্শন চলবে। পদ্মা সেতু উদ্বোধনের পরে অংশগ্রহণকারী সকল শিক্ষার্থীদের পুরস্কৃত করা হবে।

শিক্ষার্থী শরীফুল ইসলাম মুন্না ও আব্দুল্লাহ আনসারী বলেন, পদ্মা সেতু আমাদের গৌরব ও অহংকারের প্রতীক। পদ্মা সেতু কেমন, আমাদের কি সুবিধা দেবে সেটা ফুটিয়ে তোলার জন্য এই কবিতা ও ছবিগুলো এঁকেছি।

পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে এক শিক্ষার্থীর আঁকা ছবি।

শরীয়তপুরের জেলা প্রশাসক মো. পারভেজ হাসান বলেন, ২৫ জুন পদ্মা সেতু উদ্বোধনকে আরও বর্ণিল করতে এ আয়োজন। উদ্বোধন করবেন শেখ হাসিনা, যিনি পদ্মা সেতুর স্বপ্নদ্রষ্টা ও রূপকার। যার অপার দেশপ্রেম এবং সাহসিকতায় পদ্মার বুকে আজ ১৮ কোটি বাঙালির উন্নয়নের বাতিঘর। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এই অবদানকে শরীয়তপুরবাসী কৃতজ্ঞচিত্তে স্মরণ করে করবে এবং আজীবন লালন করবে। এরই প্রেক্ষিতে আজকে আমরা এখানে ‘পদ্মা সেতু দেয়াল-খেয়ালে’ এই নামে আমরা পদ্মা সেতুকে নিয়ে আমাদের শিশু শিক্ষার্থীদের নিয়ে এই আয়োজন। যারা মূলত আগামী দিনে পদ্মা সেতু’র  সুবিধাভোগী।

ইত্তেফাক/ইউবি