শুক্রবার, ১৯ আগস্ট ২০২২, ৪ ভাদ্র ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

পদ্মা সেতুর উদ্বোধন: যুক্তরাষ্ট্রে উৎসবের আমেজ

আপডেট : ২৫ জুন ২০২২, ১৫:৫১

স্বপ্নের পদ্মা সেতু নিয়ে বাঙালির উৎসবের ঢেউ আছড়ে পড়েছে সুদূর প্রবাসেও। নিউইয়র্কসহ যুক্তরাষ্ট্রের বাংলাদেশিরা স্থানীয় সময় শুক্রবার বিকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত মেতেছিলেন উৎসবের আনন্দে। পদ্মা সেতুর উদ্বোধনকে স্মরণীয় করে রাখতে বিভিন্ন স্থানে প্রবাসী বাংলাদেশিরা বের করেন শোভাযাত্রা। কাটা হয়েছে কেক। নিউইয়র্কের বাংলাদেশ কনস্যুলেটে বড় পর্দায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠান দেখার সুযোগ করে দেন প্রবাসীদের। সব মিলিয়ে উৎসবমুখর ছিল নিউইয়র্কের বাংলাদেশি অধ্যুষিত এলাকাগুলো।

উদ্বোধন উপলক্ষে নিউইয়র্কে গড়ে তোলা হয়েছিল পদ্মা সেতুর রেপ্লিকা। শিল্পীর তৈরি রেপ্লিকা ঘিরে ছিল প্রবাসীদের আনন্দ-উচ্ছ্বাস। সন্ধ্যায় নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসের ডাইভারসিটি প্লাজায় পদ্মা সেতুর রেপ্লিকা প্রদর্শন করে বাংলাদেশ ক্লাব ইউএসএ। এরপর সংগঠনটি আয়োজন করে আনন্দ শোভাযাত্রার। এসময় সংক্ষিপ্ত সমাবেশে শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন বাংলাদেশ ক্লাব সভাপতি নুরুল আমিন বাবু। তিনি বলেন, স্বপ্নের পদ্মা সেতু এখন বাস্তব। আর এই উন্নয়নের অভিযাত্রায় অংশীদার বাংলাদেশিরাও। তাই এ দিনটিকে স্মরণীয় করে রাখতে বাংলাদেশ ক্লাবের এ আয়োজন।

শোভাযাত্রার নেতৃত্ব দেন মাহফুজুল হক হায়দার, এম উদ্দিন আলমগীর, শিবলী ছাদেক শিবলু, সুমন মাহমুদ, গোপাল সান্যাল প্রমুখ।

পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের আনন্দ সমাবেশ। ছবি ইত্তেফাক।

পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে শুক্রবার সন্ধ্যায় যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ আয়োজন করে আনন্দ সমাবেশের। জ্যাকসন হাইটসের ৭৩ স্ট্রিটে আয়োজিত সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সামসুদ্দিন আজাদ।

সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদের সঞ্চালনায় সমাবেশে আরও উপস্থিত ছিলেন ডা. টমাস দুলু রায়, আব্দুল হাছিব মামুন, দুলাল মিয়া এনাম, মো. সোলায়মান আলী, দেওয়ান বজলু, খোরশেদ খন্দকার, আব্দুল মালেক, তারিকুল হায়দার চৌধুরী, হোসেন সোহেল রানা, সাখাওয়াত বিশ্বাস, জাহাঙ্গীর এইচ মিয়া, আশ্রাফ আলী, নূরুল ইসলাম নজরুল, জাসদ নেতা নূরে আলম জিকু প্রমুখ।

পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে নিউইয়র্কে বাংলাদেশ কনস্যুলেটে বিশেষ অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন কনসাল জেনারেল ড. মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম। ছবি ইত্তেফাক।

‘পদ্মা সেতু’র শুভ উদ্বোধনের ঐতিহাসিক মুহূর্ত যথাযথভাবে উদযাপনের জন্য নিউইয়র্কের বাংলাদেশ কনস্যুলেট শুক্রবার সন্ধ্যায় এক বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। নিউইয়র্কে বসবাসরত বীর মুক্তযোদ্ধা, রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, মিডিয়া নেতৃবৃন্দ ও কমিউনিটির বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গসহ উল্লেখযোগ্যসংখ্যক প্রবাসী বাংলাদেশিদের অংশগ্রহণে কনস্যুলেটে এক আনন্দঘন পরিবেশের  সৃষ্টি হয়। উপস্থিত সবাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক পদ্মা সেতু’র শুভ উদ্বোধন অনুষ্ঠানের সরাসরি সম্প্রচার উপভোগ করেন। এ ঐতিহাসিক মুহূর্ত সবাই মিলে একযোগে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা ও আনন্দের সঙ্গে উদযাপন করেন।

পরে কনসাল জেনারেল ড. মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক স্বপ্নের পদ্মা সেতু উদ্বোধনের ঐতিহাসিক মুহূর্ত উদযাপনে উপস্থিত সকল প্রবাসীকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও উষ্ণ অভিনন্দন জানান।

পদ্মা সেতুকে আত্মবিশ্বাস ও প্রেরণার প্রতীক হিসাবে আখ্যায়িত করে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর সাহসী ও দূরদর্শী নেতৃত্বে নিজেদের অর্থায়নে পদ্মা সেতুর বাস্তবায়ন জাতি হিসেবে আমাদের এক অনন্য অর্জন, যা শুধুমাত্র আমাদের অর্থনৈতিক সক্ষমতার পরিচয়ই বহন করে না, তা আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি আরও উজ্জ্বল করেছে।

পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে ওয়াশিংটন ডিসির বাংলাদেশ দূতাবাস। ছবি- সংগৃহীত।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন নিউইয়র্কে বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল ড. মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম। কনস্যুলেটের কনসাল আয়েশা হক, প্রথম সচিব ও হেড অব চ্যান্সেরি ইশরাত জাহান, জাতিসংঘে বাংলাদেশের প্রথম সচিব (প্রেস) নূরেএলাহী মিনা এসময় উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানী ওয়াশিংটন ডিসিতে বাংলাদেশ দূতাবাস ব্যাপক উৎসাহ ও উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে জাতির দীর্ঘ প্রতীক্ষিত স্বপ্নের পদ্মা সেতুর জাকজমকপূর্ণ উদ্বোধন উদযাপন করে। এ উপলক্ষে স্থানীয় সময় শুক্রবার রাতে দূতাবাসের বঙ্গবন্ধু মিলনায়তনে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মো. সহিদুল ইসলাম বলেন, পদ্মা সেতু আমাদের অহংকার এবং এটি আমাদের গৌরব ও আত্মমর্যাদার প্রতীক।

এর আগে ডেপুটি চিফ অব মিশন ফেরদৌসী শাহরিয়ার স্বাগত বক্তব্য দেন। বিশেষ অতিথি হিসাবে আলোচনায় অংশ নেন বিশ্বব্যাংকের ভাইস প্রেসিডেন্ট জুনাইদ কামাল আহমেদ এবং নর্থ ক্যারোলিনা সেন্ট্রাল ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক ড. এবিএম নাসির।

বিশ্বব্যাংকের ভাইস প্রেসিডেন্ট জুনাইদ আহমেদ বলেন, নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মাণ দেশের জন্য বিশাল গৌরবের ব্যাপার। তিনি আশা প্রকাশ করেন যে পদ্মা সেতু বাংলাদেশের মধ্যম আয়ের দেশের মর্যাদা অর্জনের পাশাপাশি উচ্চ আয়ের দেশে পরিণত করার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে।

দূতাবাসের কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা টেলিভিশনে পদ্মা সেতুর জাঁকজমকপূর্ণ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের সরাসরি সম্প্রচার প্রত্যক্ষ করেন।

পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে ভার্জিনিয়ায় মেট্রো ওয়াশিংটন আওয়ামী লীগের আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। ছবি সংগৃহীত।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক বহুল প্রত্যাশিত পদ্মা সেতু উন্মুক্ত উপলক্ষে মেট্রো ওয়াশিংটন আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের যৌথ আয়োজনে এক আনন্দোৎসব শুক্রবার সন্ধ্যায় ভার্জিনিয়ার স্প্রিংফিল্ডের রেসিডেনস ইন হোটেল বলরুমে অনুষ্ঠিত হয়।

মেট্রো ওয়াশিংটন আওয়ামী লীগ সভাপতি সাদেক এম খানের সভাপতিত্বে এবং ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক নুরুল আমীন নুরু ও যুগ্ম সম্পাদক কামাল হোসেনের সঞ্চালনায় সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন বীর মুক্তিযাদ্ধা ও লেখক-সাংবাদিক হারুন চৌধুরী।

সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক শিব্বীর আহমেদ, জিআই রাসেল, আনোয়ার হোসেন, জুয়েল বড়ুয়া, নাজমুল হাসান, জীবক বড়ুয়া, কামাল হোসেন, আবুল আযাদ, শামীম হায়দার, আবুল শিকদার, সিরাজুল হক, শোয়েব রহমান, জনি হোসেন প্রমুখ।

আলোচনা সভায় বক্তারা প্রমত্তা পদ্মা নদীর উপর নির্মিত দেশের সর্ববৃহৎ ‘পদ্মা সেতু’ যান চলাচলের জন্য খুলে দেওয়ার দিনকে বাংলাদেশের জন্য এক গৌরবোজ্জ্বল ঐতিহাসিক দিন হিসাবে অভিহিত করেছেন। 

ইত্তেফাক/এমআর