শুক্রবার, ১৯ আগস্ট ২০২২, ৪ ভাদ্র ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

ইউনিয়ন পরিষদ ভবনে ফাটল, ঝুঁকি নিয়ে চলছে কার্যক্রম 

আপডেট : ২৬ জুন ২০২২, ১২:২২

নওগাঁর রাণীনগরের ৩ নম্বর গোনা ইউনিয়ন পরিষদের প্রায় ৫০ বছরের পুরাতন ভবনে চলছে বিভিন্ন কার্যক্রম। এতে সবসময় আতঙ্কে থাকেন ভবনে কর্মরত কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। দ্রুত ভবনটি অপসারণ করে নতুন একটি বিকল্প ভবন তৈরি করতে সরকারের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। 

গোনা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল খালেক বলেন, ‘নতুন একটি ভবন নির্মিত হয়েছে। তবে, নতুন ভবনে স্থান সংকুলান না হওয়ায় অনেকটা বাধ্য হয়েই প্রায় ৫০-৬০ বছর আগে নির্মাণ করা ভবনটিকে বিভিন্ন সময় পরিষদে আসা অনুদান ও অন্যান্য উপকরণ মজুতখানা হিসেবে ব্যবহার করে আসা হচ্ছে।’

এদিকে চেয়ারম্যান জানান, এই ভবনের একটি কক্ষকে বর্তমানে ইউনিয়ন কমিউনিটি বিট পুলিশিং ক্যাম্পের কার্যালয় হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে। কিন্তু বর্তমানে ভবনের দরজা, জানালা, ছাদে ফাটল ধরেছে, চুনকাম খসে পড়ছে। যেকোনো সময় ভেঙে পড়ে জানমালের ক্ষতি হতে পারে। 

চেয়ারম্যান বলেন, ‘পরিষদ সংলগ্ন বেতগাড়ী বাজার রয়েছে, যেখানে মেয়েদের জন্য আলাদা কোনো মার্কেট নেই। যদি এই পুরাতন জরাজীর্ন ভবনটি অপসারণ করে শুধু মেয়েদের জন্য একটি আধুনিক মানের বহুতল মার্কেট নির্মাণ করা হয়, তাহলে পরিষদের জন্য একটি স্থায়ী আয়ের উৎসের পাশাপাশি এলাকার শতাধিক বেকার মানুষের নতুন করে কর্মসংস্থানেরও সৃষ্টি হতো।’ 

‘এই বিষয়ে আমি উপজেলা প্রশাসন ও স্থানীয় সরকার বিভাগ বরাবর একাধিক লিখিত আবেদনও দিয়েছি। তাই এমন জনগুরুত্বপূর্ণ কাজে জনবান্ধব সরকারের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করছি’, বলেন তিনি। 

পরিষদের সদস্য এসএম জাকারিয়া সরল বলেন, ‘দিন যাচ্ছে পরিষদের নিজস্ব আয় কমে যাচ্ছে। তাই পরিত্যক্ত এই ভবনটি অপসারণ করে বিকল্প আয়বর্ধক একটি মার্কেট নির্মাণ করা হলে পরিষদের স্থায়ী আয়ের উৎসের পাশাপাশি পাল্টে যাবে স্থানীয়দের জীবনমান। এই বিষয়ে আমি সরকার বাহাদুরের সুদৃষ্টি কামনা করছি।’   

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহাদাত হুসেইন বলেন, ‘আমি এই বিষয়ে একটি লিখিত আবেদন পেয়েছি। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানাবো।’

ইত্তেফাক/মাহি