সোমবার, ১৫ আগস্ট ২০২২, ৩১ শ্রাবণ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

জরাজীর্ণ ক্রীড়া সংস্থার ভবন যেন মরণ ফাঁদ

আপডেট : ২৯ জুন ২০২২, ২১:১০

প্রায় চার দশক ধরে অত্যন্ত জরাজীর্ণ ও ঝুঁকিপূর্ণ টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার ভবন (স্টেডিয়াম) মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। অর্থ বরাদ্দ না আসায় প্রয়োজনীয় রক্ষণাবেক্ষণ ও সংস্কারের অভাবে ভবনটি (স্টেডিয়াম ভবনটি) যেকোনো সময় ভেঙে পড়ে বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রীর আশ্বাসের পরও নতুন ভবন নির্মাণ হচ্ছে না। 

নিরাপত্তার স্বার্থে টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসকের নির্দেশনায় উপজেলা প্রশাসন ভবনটি পরিত্যক্ত ও ঝুঁকিপূর্ণ ঘোষণা করে ভবনে প্রবেশ না করার জন্য সাইনবোর্ড দেওয়া হয়েছে। মির্জাপুর উপজেলা সদরের বাইমহাটি এলাকায় উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার ভবনে গিয়ে দেখা গেছে খুবই করুন অবস্থা। আজ বুধবার (২৯ জুন) উপজেলা ক্রীড়া সংস্থা ভবনে গিয়ে দেখা গেছে, ভবনটি খুবই ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় দাঁড়িয়ে আছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয় সূত্র জানায়, উপজেলা সদরের বাইমহাটি মৌজায় জে. এল. নং-১৪৩ এবং ৩৩৯ নম্বর দাগে ৮ দশমিক ২৮ শতাংশ জমির উপর ক্রীড়া সংস্থার ভবন (স্টেডিয়াম) নির্মাণ করা হয়। মহামান্য রাষ্ট্রপতির প্রতিশ্রুতি প্রকল্প ঢাকা বিভাগীয় উন্নয়ন বোর্ডের অর্থে ১৯৭৯ সালে টাঙ্গাইলের তৎকালীন জেলা প্রশাসক মো. রেজাউল ইসলাম ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের পাশে মনোরম পরিবেশে ক্রীড়া সংস্থার স্টেডিয়াম ভবনটির ভিত্তি প্রস্তর করেন। 

উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার স্টেডিয়াম ভবনের পাশে রয়েছে বিশাল একটি মাঠ। এই ভবনে বসেই খেলাধুলা পরিচালিত হয়ে আসছে। খেলাধুলার পাশাপাশি উপজেলা প্রশাসনের বিভিন্ন জাতীয় অনুষ্ঠান এই ক্রীড়া সংস্থার ভবনের মাঠে (স্টেডিয়ামে) অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে।

৪৩ বছর আগে উপজেলা ক্রীড়া সংস্থা ভবন নির্মিত হলেও এটি এখন অর্থের অভাবে সংস্কার না হওয়ায় মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। ভবনের উপরের ছাদে গাছপালা, আগাছা ও লতাপাতা জন্মে বেহাল অবস্থা। ছাদ দিয়ে ও চার পাশের দেয়াল চুঁইয়ে পানি পড়ায় ইট-সুরকি-বালি ও রড ধসে পড়ছে। ভবনটি যেকোনো সময় ভেঙে পড়ার আশঙ্কায় উপজেলা প্রশাসন ও পৌরসভা ২০১৬ সালে পরিত্যক্ত ঘোষণা করে লাল অক্ষরে লিখে সাইনবোর্ড ঝুলিয়ে দিয়েছেন। 

ঝুঁকিপূর্ণ ভবনের মধ্যেই উপজেলার ক্রীড়া সংস্থার সব কার্যক্রমসহ কয়েকটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা নিরাপত্তাহীনতার মধ্যে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে তাদের কাজ করে আসছেন। খেলোয়াড়দের মধ্যে আবু কাওসার চপল, সজিব ও সাধারণ জনগণের দাবি, মির্জাপুর উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার ভবন সংস্কার ও খেলার মাঠের দ্রুত উন্নয়ন প্রয়োজন।

উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক মো. মনিরুজ্জামান মনির বলেন, ‘উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার ভবনটি (স্টেডিয়াম) চার দশক ধরে খুবই ঝুঁকিপূর্ণ। ভবনটি নতুনভাবে তৈরি করার জন্য স্থানীয় এমপি, ডিসি, ইউএনও এবং উপজেলা চেয়ারম্যানের সঙ্গে পরামর্শক্রমে অর্থ বরাদ্দ চেয়ে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ে আবেদনসহ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। ২০১৯ সালে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল মির্জাপুরে উপজেলা ক্রীড়া সংস্থা ভবন ও স্টেডিয়াম পরিদর্শনে এসে জরাজীর্ণ অবস্থা দেখে একটি নতুন ভবন নির্মাণের প্রতিশ্রুতি দেন। যুব ও ক্রীড়া প্রতি মন্ত্রীর সেই প্রতিশ্রুতি ও অর্থ বরাদ্দ এখনও আলোর মুখ দেখেনি। উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার ভবনটি নতুনভাবে নির্মাণ ও অর্থ বরাদ্দ সাপেক্ষে সংস্কার অতি জরুরি হয়ে পড়েছে।’ তিনি প্রধানমন্ত্রী, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রীসহ উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সার্বিক সহযোগিতা চেয়েছেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি মো. হাফিজুর রহমন বলেন, ‘যুব সমাজকে সঠিক পথে পরিচালনার জন্য খেলাধুলার কোনো বিকল্প নেই। সেজন্য তাদের জন্য প্রয়োজন একটি ক্রীড়া সংস্থা ভবন ও ভালো একটি খেলার মাঠ। উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার ভবনটি দীর্ঘ দিন ধরে জরাজীর্ণ ও ঝুঁকিপূর্ণ। স্থানীয় এমপি, জেলা প্রশাসক এবং যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়সহ বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ে যোগাযোগ করা হচ্ছে অর্থ বরাদ্দ সাপেক্ষে দ্রুত সময়ের মধ্যে উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার ভবন নির্মাণের জন্য। সহযোগিতা পেলে অল্প সময়ের মধ্যেই ক্রীড়া সংস্থার ভবন নির্মাণ হবে।’

ভূমি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ও এফবিআইসিসির পরিচালক এবং টাঙ্গাইল চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের সভাপতি খান আহমেদ শুভ এমপি বলেন, ‘যুব সমাজকে খেলাধুলার প্রতি মনোনিবেশ এবং উৎসাহিত করার জন্য ক্রীড়া সংস্থার ভবনটি নির্মাণ ও সংস্কার অতি জরুরি হয়ে পড়েছে। মির্জাপুর উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার ৮ শতাংশ জমির উপর ভবন নির্মাণের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এবং যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ও সচিবসহ বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ে যোগাযোগ করা হচ্ছে। অর্থ বরাদ্দ পেলে দ্রুত সময়ের মধ্যে ক্রীড়া সংস্থার ভবন নির্মাণসহ সামনের মাঠটি ভরাট করে উঁচু করা হবে।’

ইত্তেফাক/মাহি

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

শিক্ষক খাইরুনকে লাথি মেরে বাইরে চলে যান মামুন: পুলিশ

শোক দিবসের অনুষ্ঠানে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ

তালাবদ্ধ বাথরুম থেকে ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রীর লাশ উদ্ধার 

সিরাজগঞ্জে প্রাথমিকের ১৭৯ শিক্ষকের পদ শূন্য, পাঠদান ব্যাহত 

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

বেনাপোল-পেট্রাপোল বন্দর দিয়ে আমদানি-রফতানি বন্ধ

নাজিরপুরে পানিবন্দি মানুষের দুর্ভোগ

রাজশাহীর শিরোইল থেকে সরানো হচ্ছে বাসস্ট্যান্ড

শিক্ষিকার ‘রহস্যজনক মৃত্যু’: স্বামী মামুনকে আদালতে পাঠানো হচ্ছে