শুক্রবার, ১৯ আগস্ট ২০২২, ৪ ভাদ্র ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

কাজে গিয়ে লাশ হয়ে ফিরলেন গৃহকর্মী মাহিনুর

আপডেট : ০১ জুলাই ২০২২, ১১:৪৫

কাজে গিয়ে লাশ হয়ে বাড়ি ফিরলেন গৃহকর্মী মাহিনুর আক্তার (১৯)। তিনি নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার ছয়ানী ইউনিয়নের তালিবপুর গ্রামের বড় মোল্লা বাড়ির মো. নুরুল হকের মেয়ে। 

বৃহস্পতিবার (৩০ জুন) রাতে সুধারাম থানার পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। স্বজনদের অভিযোগ মাহিনুরকে হত্যা করে গৃহকর্তা আত্মহত্যা বলে প্রচার করছেন।

এদিকে, শুক্রবার (১ জুলাই) সকালে নিহত মাহিনুরের ভাই মামুন অভিযোগ করে বলেন, ‘গত এক বছর আগে শহরের উত্তর ফকিরপুর এলাকার শান্তনালয় নামক বাসায় গৃহকর্মী হিসেবে যোগ দেয় মাহিনুর। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বাসার মালিক নাছিম উদ্দিন বাবুর ফোন পেয়ে আমি হাসপাতালে গিয়ে বোনের লাশ দেখতে পাই।’ মাহিনুরের গলায় ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে বলেও জানান মামুন।

মামুনের ধারণা, বৃহস্পতিবার যেকোনো সময় বাবু ও তার পরিবারের লোকজন কোনো কারণে মাহিনুরকে নির্যাতন করে হত্যা করে আত্মহত্যা বলে প্রচার চালাচ্ছে।  

বাসার মালিক নাছিম উদ্দিন বাবু হত্যার অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ‘গৃহকর্মী মাহিনুর আত্মহত্যা করেছে। আমরা তাকে বাঁচাতেই হাসপাতালে নিয়ে গিয়েছিলাম।’

সুধারাম মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, ‘আমরা লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছি। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তবে ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে পেলে মাহিনুর হত্যার শিকার হয়েছেন না কি আত্মহত্যা করেছেন তা বিস্তারিত জানা যাবে। পরবর্তী সময়ে এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

ইত্তেফাক/মাহি