শুক্রবার, ১৯ আগস্ট ২০২২, ৪ ভাদ্র ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

দূষণ ঠেকাতে এক বার ব্যবহারযোগ্য প্লাস্টিকের পণ্য নিষিদ্ধ করলো ভারত

আপডেট : ০৩ জুলাই ২০২২, ০৪:৫৬

দূষণের বিপর্যয় ঠেকাতে কেবল এক বার ব্যবহারযোগ্য সব ধরনের প্লাস্টিক পণ্য নিষিদ্ধ করেছে ভারত। এর মধ্যে দেশটির পরিবেশ দূষণের জন্য দায়ী এমন ধরনের ১৯ প্লাস্টিক পণ্য নিষিদ্ধ করেছে সরকার। শুক্রবার এক বিবৃতিতে এ নিষেধাজ্ঞা জারি করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সরকার। নিষিদ্ধ পণ্যের তালিকায় প্লাস্টিকের স্ট্র, ছুরি, চামচ, ইয়ার বাড, মোড়ক, বেলুন, ক্যান্ডি এবং আইসক্রিমে ব্যবহার করা কাঠি, সিগারেটের প্যাকেটসহ আরো বেশকিছু পণ্য রয়েছে।

খাদ্য, পানীয় এবং ভোগ্যপণ্য তৈরির কোম্পানিগুলোর পক্ষ থেকে এ ধরনের প্লাস্টিকের ওপর বিধি-নিষেধ আরোপ না করার দাবির মধ্যেই এ নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হলো। বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহৎ জনসংখ্যার দেশ ভারতে দূষণের একটি বড় কারণ প্লাস্টিক বর্জ্য। অর্থনীতির দ্রুত প্রবৃদ্ধির মধ্যে দেশটিতে এক বার ব্যবহারযোগ্য প্লাস্টিকের চাহিদা বেড়েছে জানিয়ে রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, ভারতে বছরে ১ কোটি ৪০ লাখ টন প্লাস্টিক পণ্য ব্যবহার করা হয়। প্লাস্টিক বর্জ্র্য ব্যবস্হাপনায় কোনো শৃঙ্খলা না থাকার কারণে শহরের রাস্তাঘাটে পরিত্যক্ত প্লাস্টিক দেখা যায় এবং পরে সেগুলো নালায় আটকে থাকে নয়তো নদী ও সাগরে গিয়ে পড়ে।

নিষেধাজ্ঞার আওতা থেকে ‘স্ট্র’ বাদ দেওয়ার জন্য খাদ্য ও পানীয় তৈরির কোম্পানি পেপসিকো, কোকা-কোলা, পার্লে অ্যাগ্রা, ডাবর এবং আমুল এর পক্ষ থেকে তদবির চালানো হয় বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়। ভোক্তাদের কথা বিবেচনায় প্লাস্টিক ব্যাগের ওপর নিষেধাজ্ঞা না দিলেও সেসব যাতে বারবার ব্যবহার করা যায় সেজন্য উত্পাদনকারী কোম্পানি এবং আমদানিকারকদের প্রতি এর গুরুত্ব বাড়ানোর আহ্বান জানানো হয়েছে।

প্লাস্টিক পণ্য উত্পাদনকারীদের অভিযোগ, এসব বিধি-নিষেধ আরোপের আগে তাদের যথেষ্ট সময় দেওয়া হয়নি। এক বার ব্যবহারযোগ্য প্লাস্টিকের অবৈধ ব্যবহার, বিক্রি এবং বিতরণ ঠেকাতে নিয়ন্ত্রণ কক্ষ বসানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। তবে বিশেষজ্ঞদের কেউ কেউ মনে করছেন, এই নিষেধাজ্ঞা কার্যকর করা কঠিন হয়ে পড়বে।

ইত্তেফাক/টিএ