শনিবার, ০১ অক্টোবর ২০২২, ১৫ আশ্বিন ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

রাজবাড়ীর শ্রেষ্ঠ প্রধান শিক্ষক হলেন রেজাউল করিম

আপডেট : ০৬ জুলাই ২০২২, ১৫:০৩

রাজবাড়ী জেলা পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠান প্রধান (মাধ্যমিক বিদ্যালয়) হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন শেরে বাংলা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. রেজাউল করিম। 

বুধবার (৬ জুলাই) সকালে জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ-২০২২ উপলক্ষ্যে রাজবাড়ীর অফিসার্স ক্লাবে আয়োজিত অনুষ্ঠানে শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠান প্রধান ক্যাটাগরিতে এ ঘোষণা দেওয়া হয়। 

শ্রেষ্ঠ প্রধান শিক্ষকের ক্রেস্ট নিচ্ছেন রেজাউল করিম। ছবি: সংগৃহীত

এসময় শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠান প্রধান হিসেবে মো. রেজাউল করিমের হাতে ক্রেস ও সনদপত্র তুলে দেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি জেলা প্রশাসক আবু কায়সার খান।

জেলা শিক্ষা অফিসার মো. হাবিবুর রহমানের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে রাজবাড়ী জেলা পরিষদ প্রশাসক ফকীর আব্দুল জব্বার, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) সূবর্ণা রানী সাহা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। 

জানা গেছে, শ্রেষ্ঠ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধান মো. রেজাউল করিম ১৯৭৭ সালে জন্ম গ্রহণ করেন। ২০০১ সালে রাজবাড়ী জেলার পাংশা উপজেলার মোহাম্মদ আলী একাডেমিতে প্রথম সহকারী শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন। ২০১২ সালে পাবনা জেলার মাশুমদিয়া ভবানীপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক এবং ২০১৫ সাল থেকে রাজবাড়ীর শেরে বাংলা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে সহকারী প্রধান শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন। যোগদান করে উক্ত বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক হিসেবে ৩০ জুন ২০১৯ সাল পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন। এরপর ১ জুলাই থেকে শেরে বাংলা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হিসেবে অদ্যবধি কর্মরত রয়েছেন।

আরো জানা গেছে, চারিত্রিক দৃঢ়তা, প্রশাসনিক দক্ষতা ও আর্থিক শৃঙ্খলা,অনলাইনে বিদ্যালয়ের শ্রেণী কার্যক্রম ও দাপ্তরিক কার্যক্রম পরিচালনা, পেশাগত/গবেষণামূলক সৃজনশীল প্রকাশনা, সবুজ ও পরিচ্ছন্ন ক্যাম্পাস ও স্বাস্থ্যবিধি অনুযায়ী বিদ্যালয় পুনঃসজ্জিকরণসহ মোট ১৩ বিষয়ে ভূমিকা রাখায় এ সম্মানে ভূষিত হয়েছেন তিনি। 

প্রধান শিক্ষক মো. রেজাউল করিম ইত্তেফাককে বলেন, ‘প্রতিষ্ঠান প্রধান হিসেবে সব সময় চেষ্টা করি নিজের সেরাটা দেওয়ার জন্য। আমাকে শ্রেষ্ঠ প্রধান শিক্ষক নির্বাচিত করায় সংশ্লিষ্টদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। আমি যেন বাংলাদেশ সরকারের সিডিজি বাস্তবায়নে সহায়তা ও বাংলাদেশকে একটি উন্নত রাষ্ট্র হিসেবে গড়ে তুলতে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সঠিক ভাবে তৈরি করতে পারি। আমার এ অর্জন আমার বিদ্যালয়ের সকলের জন্য উৎসর্গ করলাম।’

 

ইত্তেফাক/এসজেড