শনিবার, ০১ অক্টোবর ২০২২, ১৫ আশ্বিন ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

গ্যাস-সংকটে দীর্ঘদিন যমুনা সার কারখানার উৎপাদন বন্ধ

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২২, ০৮:২১

জামালপুরের সরিষাবাড়ীর তারাকান্দিতে অবস্থিত দেশের সর্ববৃহৎ ইউরিয়া সার উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান যমুনা সার কারখানায় দীর্ঘ দিন যাবৎ গ্যাস-সংকটে সার উৎপাদন বন্ধ রয়েছে। দীর্ঘ সময় ইউরিয়া উৎপাদন বন্ধ থাকলে জামালপুর, শেরপুর, ময়মনসিংহ, টাঙ্গাইল, রাজবাড়ীসহ উত্তরবঙ্গের ১৬ জেলায় আসন্ন আমন-বোরো মৌসুমে সার সংকটের পাশাপাশি ফসল উৎপাদন ব্যাহত হওয়াসহ এলাকার কৃষক ও সার ব্যবসায়ীরা চরম ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার আশঙ্কা করছেন এলাকাবাসী।

চলতি বছরের ২১ জুন গ্যাস-সংকট এবং বিদ্যুতের লোডশেডিংয়ের কারণে সার উৎপাদন বন্ধ রয়েছে। ফলে সময় থাকতে সার উৎপাদনে যেতে না পারলে আসন্ন আমন-বোরো মৌসুমে কৃষকদের সার সরবরাহ ব্যাহত হবে। এতে করে ফসল উৎপাদন ব্যাহতের আশঙ্কা করছেন এলাকাবাসী। সার ব্যবসায়ীদের অভিযোগ, একটি অসাধু চক্র নিজেদের স্বার্থ হাসিলের জন্য প্রতি বছর নানা অজুহাতে যমুনা সার কারখানা উৎপাদন বন্ধ রেখে দেশকে সার আমদানিনির্ভর করে তোলেন। পরে তারা সুকৌশলে সার আমদানির নামে মোটা অঙ্কের সরকারি অর্থ হাতিয়ে নেন।

সার ব্যবসায়ী সরকার আবুল হোসেন, ফারুক হোসেন বলেন, আমরা লক্ষ্য করছি প্রতি বত্সর নানা অজুহাতে কারখানার উৎপাদন বন্ধ রেখে বিদেশ থেকে কয়েকগুণ বেশি মূল্যে নিম্নমানের সার আমদানি করা হয়ে থাকে। আমদানিকৃত সার প্রতি টনে সরকারকে ৮০ হাজার টাকা ভর্তুকি দিতে হয়। এতে করে একটি অসাধু দুষ্ট চক্র লাভবান হচ্ছে। এ বিষয়ে যমুনা সার কারখানার ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) প্রকৌশলী মো. জাকির হোসাইন তার বক্তব্য দিতে অপারগতা প্রকাশ করেছেন। যমুনা সার কারখানার মহাব্যবস্থাপক (অপারেশন) আব্দুল হাকিম জানান, গ্যাস-সংকট ও লোডশেডিংয়ের কারণে সার উৎপাদন বন্ধ রয়েছে। তিনি আরো বলেন, যমুনা সারকারখানায় প্রতিদিন ১ হাজার ৭০০ মেট্রিক টন ইউরিয়া সার উৎপাদন করতে হলে ৪৫ মিলিয়ন ঘন ফুট গ্যাসের প্রয়োজন হয়। নিয়মিত গ্যাস পেলে এবং লোডশেডিং না থাকলে আবারও সার উৎপাদন করা সম্ভব।

তারাকান্দি সার কারখানা ট্রাক মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম মানিক বলেন, সার কারখানা কেন্দ্রিক ৪২০টি ট্রাক রয়েছে। এসব ট্রাক সংশ্লিষ্ট প্রায় ৮৪০ জন চালক, হেলপারসহ ট্রাক মালিক আছেন। এছাড়া কারখানা কেন্দ্রীক বহু শ্রমিক জড়িত। কারখানা বন্ধ থাকলে তাদের আয়ও বন্ধ হয়ে যায়।

ইত্তেফাক/এএইচপি

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন