শনিবার, ২০ আগস্ট ২০২২, ৪ ভাদ্র ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

মোহাম্মদপুরে ৬৮ ওয়াকিটকি সেট ও যন্ত্রাংশ জব্দ, গ্রেফতার ১

আপডেট : ০৩ আগস্ট ২০২২, ০০:১৫

রাজধানীর মোহাম্মদপুর থেকে বিপুল পরিমাণ অবৈধ ওয়াকিটকি সেট এবং যন্ত্রাংশ উদ্ধার করেছে র‌্যাব। এ সময় একজনকে গ্রেফতার করা হয়। 

র‌্যাব-৩-এর পুলিশ সুপার বিনা রানী দাস জানান, সোমবার রাতে মোহাম্মদপুর থানা এলাকায় একটি ভবনে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে অবৈধভাবে ওয়াকিটকি সেট এবং যন্ত্রাংশ মজুত রেখে বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের কাছে বিক্রয়কারী রাকিবুল ইসলামকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় সেখান থেকে ওয়াকিটকি সেট ৬৮টি, ওয়াকিটকি সেটের ব্যাটারি ১৫টি, চার্জার ৫২টি, ওয়াকিটকি সেটের হেডফোন ৫৩টি এবং মোবাইল ফোন দুটি উদ্ধার করা হয়।

র‌্যাব জানায়, রাকিবুল একজন ঠিকাদার হিসেবে বৈধ লাইসেন্স দিয়ে অবৈধভাবে বেতার যন্ত্র ওয়াকিটকি সেট নিজেদের হেফাজতে রেখে বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের কাছে বিক্রয় করে আসছে। কিন্তু উদ্ধারকৃত এসব ওয়াকিটকি এবং যন্ত্রাংশ ব্যবহার সংক্রান্ত লাইসেন্স ও কারিগরি গ্রহণযোগ্যতা সংক্রান্ত সনদ বা কোনো ধরনের বৈধ কাগজপত্র তার নেই। তার কাছ থেকে উদ্ধারকৃত এসব ওয়াকিটকি সেটের ফ্রিকোয়েন্সি ২৪৫-২৪৬ মেগাহার্জ। এসব ওয়াকিটকি ব্যবহার করে রিপিটার ছাড়া অর্ধ কিলোমিটার পর্যন্ত যোগাযোগ করা সম্ভব। এছাড়া বহুতল ভবনের মধ্যে ওপরতলা থেকে নিচতলায় যোগাযোগ করা সম্ভব। এসব ওয়াকিটকির দাম ৫ হাজার থেকে ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত। এছাড়া সে ওয়াকিটকি সেট বিক্রয় করেছে কি না এ বিষয়ে কোন সন্তোষজনক জবাব দিতে পারেনি।

দেশের সাধারণ জনগণ ওয়াকিটকি বহনকারী একজন ব্যক্তিকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য হিসেবে বিবেচনা করে থাকে। এ সুযোগকে কাজে লাগিয়ে ওয়াকিটকি সেট ব্যবহার করে অপরাধীরা ডিবি, র‌্যাব সদস্য, ডিজিএফআই সদস্য, এনএসআই সদস্য এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পরিচয় দিয়ে ডাকাতি, ছিনতাই, অপহরণ করে মুক্তিপণ আদায়সহ বিভিন্ন অপরাধ করে আসছে। এতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ হচ্ছে।

‘সাধারণ জনগণ ওয়াকিটকি বহনকারী একজন ব্যক্তিকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য হিসেবে বিবেচনা করে। এ সুযোগকে কাজে লাগিয়ে অপরাধীরা ডিবি, র‌্যাব সদস্য পরিচয় দিয়ে ছিনতাই, অপহরণ করে মুক্তিপণ আদায় করে’

ইত্তেফাক/এমএএম