বুধবার, ১৭ আগস্ট ২০২২, ১ ভাদ্র ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

স্টার্টআপ প্রতিষ্ঠানকে পুঁজিবাজারে আসতে হলে ১০ শতাংশ শেয়ার ছাড়তে হবে

আপডেট : ০৫ আগস্ট ২০২২, ০৫:৩৫

বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম বলেছেন, যেসব স্টার্টআপ কোম্পানির অ্যাকাউন্স ও গ্রোথ ভালো তাদের আইনের ফাঁকফোকর দিয়ে হলেও পুঁজিবাজার থেকে অর্থায়নে সাহায্য করব। এক্ষেত্রে যোগ্যরাই সুযোগ পাবে। অযোগ্যদের সুযোগ দিয়ে পরিবেশ নষ্ট করব না। তবে কোম্পানিগুলোকে ন্যুনতম ১০ শতাংশ শেয়ার ছাড়তে হবে। 

গতকাল বৃহস্পতিবার রাজধানীর নিকুঞ্জের ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ভবনে ‘ক্যাপিটাল মার্কেট অব বাংলাদেশ প্রসপেক্টস অ্যান্ড অপরচুনিটিস ফর টেক স্টার্টআপ অ্যান্ড গ্রোথ স্টেজ কোম্পানিজ’ শীর্ষক সম্মেলনে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

বিএসইসি চেয়ারম্যান বলেন, স্টার্টআপ কোম্পানিকে সহযোগিতা করলে যদি দেশ লাভবান হয়, তাহলে কেন সহযোগিতা করব না। তবে এ জাতীয় কোম্পানিগুলো পুঁজিবাজারে আসতে চাইলে কমপক্ষে ১০ শতাংশ শেয়ার ইস্যু করতে হবে। তা না হলে পুঁজিবাজার থেকে অর্থ উত্তোলনের সুযোগ দেব না। প্রয়োজনে স্টার্টআপ কোম্পানিগুলোর জন্য নতুন বোর্ড গঠন করা বিবেচনা করা হবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, আইসিটি বিভাগ প্রযুক্তিগত সহায়তা দিয়ে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)-কে বিশ্বের নেতৃত্বদানকারী প্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে তুলবে। এ লক্ষ্যে ৭০ থেকে ১ কোটি ডলার ব্যয় করে বিএসইসির জন্য বেশ কিছু ডিজিটাল সল্যুশন তৈরি করা হচ্ছে। আইসিটি বিভাগ থেকে সাড়ে ৩০০ স্টার্টআপকে অফেরতযোগ্য ১০ লাখ টাকা করে অনুদান দেওয়া হয়েছিল। এদের মধ্যে কিছু কিছু স্টার্টআপ কোম্পানি পাঁচ বছরেই শত মিলিয়ন ডলারের কোম্পানিতে রূপান্তরিত হয়েছে। 

দেশে বর্তমানে ২ হাজার ৫০০ সফল স্টার্টআপ কোম্পানি ১৫ লাখ তরুণ-তরুণীর কর্মসংস্থান সৃষ্টি করেছে। গত পাঁচ বছরে বাংলাদেশ স্টার্টআপে ৭৫ কোটি ডলার বিনিয়োগ এসেছে। ২০২৫ সালের মধ্যে ৫০০ কোটি টাকা দেশের স্টার্টআপ কোম্পানিতে বিনিয়োগ করা হবে। ডিএসই চেয়ারম্যান ইউনুসুর রহমানের সভাপতিত্বে সভায় সম্মানিত অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিএইসির কমিশনার অধ্যাপক ড. শেখ শামসুদ্দিন আহমেদ। এর আগে এক অনুষ্ঠানে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হওয়ার লক্ষ্যে ডিএসই ব্যবস্থাপনা পরিচালক তারিক আমিন ভূঁইয়া ও স্টার্টআপ বাংলাদেশ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সাদি আহমেদ একটি চুক্তি স্বাক্ষর করেন।

ইত্তেফাক/এএইচপি