বৃহস্পতিবার, ১৮ আগস্ট ২০২২, ২ ভাদ্র ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

পর্যটক সেজে ১৯ দালাল ধরলো পুলিশ

আপডেট : ০৫ আগস্ট ২০২২, ১৪:৩০

সমুদ্র শহর কক্সবাজারে শুক্রবার ভোর ৫টায় প্রবেশ করতে শুরু করে দূরপাল্লার বাস। এসব বাসের যাত্রী হয়েই শহরের একটু বাইরে থেকেই পর্যটক বেশ ধরে উঠে আসে কক্সবাজার ট্যুরিস্ট পুলিশের সদস্যরা। গাড়ি থেকে নামতেই পর্যটক ভেবেই তাদেরকে নিয়েই টানাহ্যাচড়া শুরু করে পর্যটন জোনের দালাল চক্রের সদস্যরা। তখনই ট্যুরিস্ট পুলিশ কক্সবাজার শহরের কলাতলীর হোটেল মোটেল জোনের বিভিন্ন পয়েন্ট থেকে ১৯ জন দালালকে আটক করে। এসময় ১৪টি ইজিবাইকও (টমটম) জব্দ করা হয়েছে। 

ধৃতরা হলেন, জাফর আলম (৩৮), মো. আব্দুলাহ (১৮), ইসমাইল (২৪), ইব্রাহীম (৩৭), নুর আলম (২৬), চাঁদ মিয়া (১৯), নজু আলম (৩৫), রুবেল (২৬), জুয়েল মিয়া (৩২), সাদেকুর (২৬), সৈয়দ নুর (৩০), সাহিদ (২৬), হেলাল উদ্দিন (৪০), সাগর (২৩), গিয়াস উদ্দিন (৩৩), সৈয়দ আলম (৩৬), মো. হোসেন (৪৭), রবিউল হাসান (২০), ও ইমরান (২১)।

কক্সবাজার ট্যুরিস্ট পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রেজাউল করিম বলেন, দীর্ঘদিন ধরে অটোরিকশার চালকের বেশ ধরে একটি চক্র পর্যটকদের হয়রানি করে আসছে। তারা পর্যটকদের অল্প ভাড়ায় ভালো হোটেলে নিয়ে যাবে বলে মৌখিক চুক্তি করা হোটেলে নিয়ে যেত এবং অতিরিক্ত ভাড়া আদায়সহ ব্ল্যাকমেইল করতো। পর্যটকদের মালামাল ছিনতাই করা, ইভটিজিং করা, এমনকি ধর্ষণের মত ঘটনার সাথেও তারা জড়িত। এই চক্রের কিছু সদস্য পর্যটকদের ফাঁদে ফেলে আপত্তিকর ছবি তুলে টাকা হাতিয়ে নিত। এমন অভিযোগ দীর্ঘদিনের।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রেজাউল করিম আরও বলেন, অভিযোগের বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে অভিযান চালাতে শুক্রবারকে বেছে নেওয়া হয়। পরিকল্পনা মতো পর্যটক বেশী পুলিশের হাতে আটকরা প্রাথমিকভাবে স্বীকার করেছেন তারা দীর্ঘদিন ধরে এ কাজ করছেন। তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। ট্যুরিস্ট পুলিশের এ ধরণের অভিযান নিয়মিত চলবে। কক্সবাজারে পর্যটকদের নানাভাবে হয়রানি করা কাউকেই ছাড় দেওয়া হবে না বলে উল্লেখ করেন এ পুলিশ কর্মকর্তা।

ইত্তেফাক/এমএএম