বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৪ আশ্বিন ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

বঙ্গবন্ধুকে চিরকাল শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করতে হবে: আনোয়ার হোসেন মঞ্জু

আপডেট : ০৯ আগস্ট ২০২২, ২২:৩৩

জাতীয় পার্টি-জেপি’র চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন মঞ্জু এমপি বলেছেন, যে দল যখনই ক্ষমতায় থাকুক বা ভবিষ্যতে ক্ষমতায় আসুক না কেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে তাদের অবশ্যই স্মরণ করতে হবে। বঙ্গবন্ধুর প্রতি সত্যিকার ভালোবাসা সেদিনই প্রকাশ পাবে যে দিন বাংলাদেশ একটি উন্নত দেশে পরিণত হবে। কাজের মাধ্যমে,  সফলতার মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুকে আমরা স্মরণ করবো। আর বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন সেদিন সফল হবে, যেদিন মানুষ কাজ পাবে, কর্মসংস্থান অর্জন করবে, উন্নত জীবনের আস্বাদন গ্রহণ করতে পারবে।   

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে জাতীয় পার্টি (জেপি) আয়োজিত এক শোক সভা ও দোয়া মাহফিলে মঙ্গলবার (৯ আগস্ট) পিরোজপুরের ভাণ্ডারিয়া উপজেলা সদরে শেখ কামাল পৌর মিলনায়তনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত এক শোক সভা ও দোয়া মাহফিলে জাতীয় পার্টি-জেপি’র চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন মঞ্জু এমপি। ছবি- ইত্তেফাক

তিনি আরও বলেন, গণতন্ত্রের জন্য শিক্ষার প্রয়োজন, অর্থনৈতিক মুক্তির প্রয়োজন। অশিক্ষিত বা মূর্খ লোক দিয়ে আন্দোলন-সংগ্রাম করা যেতে পারে কিন্তু দেশ গঠনে শিক্ষিত লোকের বিকল্প নাই। 

বঙ্গবন্ধুর সাথে আনোয়ার হোসেন মঞ্জু তাঁর বিভিন্ন ঘটনার স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে আবেগ আপ্লুত কণ্ঠে তিনি বলেন, ষাটের দশকের শেষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্র রাজনীতিতে সাহসী হতে ও অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে বঙ্গবন্ধু নির্দেশ দিয়ে ছিলেন। জীবন দিয়ে হলেও নিজের অধিকার বাস্তবায়ন করতে বঙ্গবন্ধু শিখিয়েছেন। 

তিনি আরও বলেন, তাঁর কাছ থেকেই নিয়মতান্ত্রিক আন্দোলন করা শিখেছি। যারা বঙ্গবন্ধু সময় জন্মগ্রহণ করেননি এই নতুন প্রজন্মের কাছে বঙ্গবন্ধু যে আদর্শবাদী নেতা ছিলেন তা আমাদের জানাতে হবে। তিনি একটি জাতি সৃষ্টি করেছিলেন, একটি নতুন দেশ গঠন করেছিলেন। তাঁর চারিত্রকে অনুসরণ করে আমাদের দেশ চালানো প্রয়োজন। বিগত ৩৫/৩৬ বছর ধরে আমরা অনেক মৌলিক কাজ করেছি। এ সময় যে রাস্তা-ঘাট, স্কুল-কলেজ, বিদ্যুৎ ইত্যাদি অবকাঠামোগত কাজ করেছি তার মধ্যদিয়ে অর্থনৈতিক ভিত সৃষ্টি হয়েছে। দেশ স্বাধীন না হলে এই পরিবর্তন সাধিত হতো না। ৫৪ সালে নির্বাচনে জিতেও এদেশের মানুষের ভাগ্য উন্নয়ন করা সম্ভব হয়নি। ২৩ বছর ধরে পাকিস্তান আমলে আমরা শোষিত হয়েছি। বঙ্গবন্ধু আমাদের এই শোষণ থেকে মুক্ত করে একটি স্বাধীন দেশ  উপহার দিয়েছেন। এই স্বাধীনতাকে অর্থবহ করে তুলতে হলে একটি স্বচ্ছ নির্বাচনি প্রক্রিয়া অব্যাহত রাখতে হবে।   

ভাণ্ডারিয়া উপজেলা জেপি’র সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মাহিবুল হোসেন মাহিমের সভাপতিত্বে এ শোক সভায় প্রধান বক্তা পিরোজপুর জেলা পরিষদের প্রশাসক ও জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মহিউদ্দিন মহারাজ, ভাণ্ডারিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ফাইজুর রশীদ খসরু জোমাদ্দার, উপজেলা জেপি’র যুগ্ম আহ্বায়ক ও পৌর কাউন্সিলর গোলাম সরওয়ার জোমাদ্দার, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও জেপি’র উপজেলা যুগ্ম আহ্বায়ক মশিউর রহমান মৃধা, উপজেলা জেপি’র সদস্য সচিব ও ধাওয়া ইউপি চেয়ারম্যান সিদ্দিকুর রহমান টুলু, টুঙ্গীপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক হাফিজুর রশীদ তারিক, জেপি নেতা ইউসুফ আলী আকন, ভাণ্ডারিয়া উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি এনামুল কবির তালুকদার টিপু ও উপজেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক আব্দুল হালিম হাওলাদার। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন শিক্ষক সফিকুল ইসলাম আজাদ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ভাণ্ডারিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাসুমুর রহমান বিশ্বাস, উপজেলা জেপি’র যুগ্ম আহ্বায়ক ও গৌরীপুর ইউপি চেয়ারম্যান মজিবুর রহমান চৌধুরী, ইকড়ি ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল হাই হাওলাদার, ভিটাবাড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান খান এনামুল করিম পান্না প্রমুখ।   

বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের শাহাদাত বরণকারী সদস্যদের রুহের মাগফিরাত কামনা করে দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন মাওলানা জাকারিয়া আল ফরিদ।

ইত্তেফাক/এমএএম