রোববার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

নুরের গ্রেফতারের দাবিতে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের প্রতিবাদ সমাবেশ

আপডেট : ১৩ আগস্ট ২০২২, ১৩:৩৯

গণভবন ও বঙ্গভবন দখলের হুমকি দেওয়ার অপরাধে গণ অধিকার পরিষদের সদস্য-সচিব নুরুল হক নুরকে দ্রুত গ্রেফতারের দাবিতে শুক্রবার (১২ আগস্ট) বিকাল ৪টায় ঢাবির রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ কর্মসূচি পালন করেছে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ। 

সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আল মামুনের সঞ্চালনায় ওই মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুল।আরও বক্তব্য রাখেন- সংগঠনের উপদেষ্টা বীর মুক্তিযোদ্ধা রুহুল আমিন মজুমদার, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি সনেট মাহমুদ ও ঢাকা মহানগর উত্তর শাখার সাধারণ সম্পাদক মাকসুদ হাওলাদার। 

মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আল মামুন বলেন, গণভবন ও বঙ্গভবন দখল করার হুমকি দিয়ে বিকাশ অধিকার পরিষদের দালাল নুরুল হক নুর দেশের প্রচলিত আইন ও সংবিধান লঙ্ঘন করেছে। নির্বাচিত সরকার ও রাষ্ট্র প্রধানের সরকারি বাসভবনে হামলার হুমকি দিয়ে নুরুল হক নুর রাষ্ট্রদ্রোহের অপরাধ করেছে। একটি দেশের প্রতিষ্ঠিত সরকারের বিরুদ্ধে এধরণের উস্কানিমূলক বক্তব্য সমাজ ও রাষ্ট্রে বিশৃঙ্খলা তৈরির নতুন ষড়যন্ত্র। নুরুল হক নুর ও রেজা কিবরিয়াকে দ্রুত গ্রেফতার করে রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করলে রাষ্ট্র বিরোধী সব ষড়যন্ত্র জাতির সামনে উন্মোচিত হবে।

তিনি আরও বলেন, ভুঁইফোঁড় সংগঠন গণ অধিকার পরিষদের নামে বিভিন্ন ফেসবুক পেজে বিকাশ একাউন্ট নম্বর দিয়ে চাঁদাবাজি করে সাধারণ মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করাই এদের মূল উদ্দেশ্য। পাকিস্তানের পেইড এজেন্ট নুরাকে গতকাল প্রোগ্রামস্থল থেকে গ্রেফতার করা উচিত ছিল। শুধু গতকাল নয়, প্রতিনিয়ত নুরুল হক নুর গংরা দেশ ও জনগণের বিরুদ্ধে গভীর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। গণতন্ত্র মঞ্চ নামে নতুন রাজনৈতিক দোকান খুলে রব-মান্না গংরা চাঁদাবাজি করে জনগণের সঙ্গে প্রতারণা করে যাচ্ছে। মান্না, সাকী, রেজা, নুরা গংরা এদেশকে শ্রীলঙ্কা ও পাকিস্তান বানানোর দিবাস্বপ্নে মতে উঠেছে।এসব স্বাধীনতা বিরোধী অপশক্তির দালালদেরকে পার্সেল করে শ্রীলঙ্কা ও পাকিস্তানে পাঠাতে হবে। কারণ এদের মধ্যে নূন্যতম দেশপ্রেম নাই। বৈশ্বিক করোনা ভাইরাস সংকট ও রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে বিশ্বের প্রতিটি দেশ সাময়িক সমস্যায় পড়েছে। বাংলাদেশ শিগগিরই এই সাময়িক সমস্যা কেটে উঠবে। এই সাময়িক সংকটকে পুঁজি করে যারা গুজব ছড়িয়ে দেশে ও জনগণের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে তাদের এদেশে থাকার কোনো নৈতিক অধিকার নেই। 

আল মামুন বলেন, বিদেশি শক্তির ওপর ভর করে তারা অবৈধভাবে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় আসতে চায়। কারণ বিএনপি ও বিকাশ অধিকার পরিষদের নেতারা এখন সম্পূর্ণ জনবিচ্ছিন্ন। এলাকায় এদের ইউপি মেম্বার হওয়ার যোগ্যতা নেই। এদের ধান্দাবাজি ও প্রতারণা জনগণ ইতিমধ্যে বুঝে গেছেন। জনবিচ্ছিন্ন হয়ে তারা এদেশের উন্নয়ন, অগ্রযাত্রা ও সমৃদ্ধি ব্যাহত করার জন্য তারা একের পর এক মিথ্যাচার ও গুজব ছড়িয়ে জনমনে বিভ্রান্তি তৈরির চেষ্টা চালাচ্ছে। এদেরকে জনগণ অবশ্যই রুখে দেবে। এদেশের জনগণ এখন অনেক সচেতন। অতীতের মতো ভবিষ্যতেও জনগণকে সঙ্গে নিয়ে স্বাধীনতা বিরোধী অপশক্তি নুরা গংদেরকে উপযুক্ত জবাব দেবে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ। গণভবন ও বঙ্গভবন দখল করার হুমকি দেওয়ার অপরাধে আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে নুরুল হক নুর ও রেজা কিবরিয়াকে গ্রেফতার করে রিমান্ডে এনে ষড়যন্ত্রের নীলনকশা প্রকাশ করতে হবে। অন্যথায় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণসহ সমগ্র দেশে কঠোর আন্দোলন গড়ে তুলবে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ।

সংগঠনের সভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুল নলেন, রাজাকারের বাচ্চাদের সাহস দিন দিন বেড়ে যাচ্ছে। এদের বিষদাঁত উপড়ে ফেলবে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ। পাকিস্তানের দালাল নুরুল হক নুরের আস্তানা ভেঙ্গে গুড়িয়ে দিয়ে তাদের সবাইকে ধরে ধরে পাকিস্তানে পাঠাতে হবে। তারা দেশ ও জাতির শত্রু। এধরনের রাষ্ট্রদ্রোহী বক্তব্য দেওয়ার পরেও নুরকে কেন গ্রেফতার করা হচ্ছে না? সরকারের ভেতর ঘাপটি মেরে বসে থাকা বিএনপি-জামায়াতের দোসররাই নুরকে আশ্রয়-প্রশ্রয় দিচ্ছে। শিগগিরই তাদের মুখোশ উন্মোচন করা হবে। দেশের সংবিধান ও রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে অবস্থান নেওয়ার অপরাধে আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে নুরুল হক নুর জাতির কাছে নিঃশর্ত ক্ষমা না চাইলে যেখানে পাওয়া যাবে সেখানেই প্রতিহত করবে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ।

ইত্তেফাক/কেকে