শুক্রবার, ০৭ অক্টোবর ২০২২, ২২ আশ্বিন ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

ক্রিমিয়ায় অন্তত চারটি বিস্ফোরণ

আপডেট : ১৯ আগস্ট ২০২২, ২২:৫০

ফের বিস্ফোরণ ক্রিমিয়ায়। রাশিয়ার দাবি ইউক্রেনের ড্রোন ধ্বংস করা হয়েছে। খারকিভে গোলাবর্ষণ অব্যাহত।বুধবারের পর বৃহস্পতিবারও বিস্ফোরণের শব্দ পাওয়া গেছে ক্রিমিয়া থেকে। রাশিয়ার দখলে থাকা ক্রিমিয়ার সেভাসটোপলে বিস্ফোরণ হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। ওই অঞ্চলেই আছে রাশিয়ার সেনাঘাঁটি বেলবেক। বেলবেকে একটি বড় আকাশসেনার ঘাঁটি বানিয়ে রেখেছে রুশ সেনা।

প্রাথমিকভাবে মনে করা হচ্ছে, বৃহস্পতিবারের বিস্ফোরণে ওই সেনাঘাঁটির ক্ষতি হয়েছে। তবে রাশিয়ার মুখপাত্র তা মানতে নারাজ। তাদের বক্তব্য, বিস্ফোরণ হলেও তাতে সেনাঘাঁটির কোনো ক্ষতি হয়নি। সেভাসটোপলের গভর্নর জানিয়েছেন, বৃহস্পতিবার রাশিয়ার বিমানধ্বংসকারী বাহিনী ইউক্রেনের একটি ড্রোন ধ্বংস করেছে। ড্রোনটি ক্রিমিয়ায় কী করছিল, ওই ড্রোন বিস্ফোরণ ঘটিয়েছিল কি না, কোনো তথ্যই দেয়নি রাশিয়া। ইউক্রেনও এবিষয়ে কোনো মন্তব্য করেনি।

বিস্ফোরণের কথা বললেও কীভাবে বিস্ফোরণ হয়েছে সে বিষয়ে ইউক্রেনের সেনা কোনো তথ্য দেয়নি। ক্রিমিয়া এবং ইউক্রেনের সীমান্তে অবস্থিত কার্চ শহরেও বিস্ফোরণ হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। কার্চে একটি গুরুত্বপূর্ণ ব্রিজ আছে। যে ব্রিজ ক্রিমিয়ার সঙ্গে রাশিয়াকে জোড়ে। ওই রাস্তা দিয়ে রাশিয়া ইউক্রেন যুদ্ধের রসদ সংগ্রহ করছে বলে জেলেনস্কি প্রশাসনের ধারণা। বৃহস্পতিবারের আক্রমণে ওই ব্রিজের ক্ষতি হয়েছে বলে ইউক্রেনের অনুমান। এদিন সবমিলিয়ে মোট চারটি বিস্ফোরণ হয়েছে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। 

এর আগেও ক্রিমিয়ায় একাধিক বিস্ফোরণ হয়েছে। তবে রাশিয়া জানিয়েছে, বিস্ফোরণগুলি অন্তর্ঘাতের ফলে হয়েছে। ইউক্রেনও কোনো বিস্ফোরণের দায় নেয়নি। খারকিভে আরো গোলাবর্ষণ খারকিভে লাগাতার গোলাবর্ষণ করছে রাশিয়া, জানিয়েছেন খারকিভের গভর্নর। তিনি বলেছেন, বৃহস্পতিবারের হামলায় অন্তত ১৮ জন বেসামরিক মানুষ আহত হয়েছে। একজনের মৃত্যু হয়েছে। আহতদের মধ্যে অন্তত দুইটি শিশু আছে। 

বুধবারও খারকিভে আক্রমণ চালিয়েছিল রাশিয়া। ওইদিন ছয়জন বেসামরিক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছিল। আহত হয়েছিলেন ১৬ জন। খারকিভ থেকে মানুষ আবার পালাতে শুরু করেছেন বলে জানিয়েছে ইউক্রেনের প্রশাসন। ফিনল্যান্ডের আকাশসীমায় রাশিয়া বৃহস্পতিবার ফিনল্যান্ডের আকাশসীমায় রাশিয়া ঢুকে পড়েছিল বলে অভিযোগ ফিনল্যান্ডের। রাশিয়ার দুইটি যুদ্ধবিমান ফিনল্যান্ডের আকাশসীমা লঙ্ঘন করে ঢুকে পড়ে বলে অভিযোগ। দুইটি ফাইটারই ছিল মিগ-৩১। দক্ষিণ ফিনল্যান্ডের পোলভুর উপর দিয়ে তা উড়ে যায় বলে অভিযোগ। ফিনল্যান্ডের আকাশসীমায় বিমান দুইটি অন্তত দুই মিনিট ছিল বলে মনে করা হচ্ছে। এদিনই রাশিয়ার সংবাদমাধ্যম ইন্টারফ্যাক্স সেনাবাহিনীকে উদ্ধৃত করে লিখেছে, তিনটি যুদ্ধবিমানে হাইপারসোনিক মিসাইল লোড করে অন্য বেসে পাঠানো হয়েছে। ফিনল্যান্ডের আকাশসীমায় ঢুকে পড়া মিসাইলগুলি সেই বিমানই কি না, তা অবশ্য এখনো স্পষ্ট নয়।

ইত্তেফাক/এএইচপি