রোববার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

১৬ ঘণ্টা পর গাড়ির চাকা ঘুরলো সিলেটে 

আপডেট : ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২২, ২৩:৫৩

১৬ ঘণ্টা ভোগান্তির পর অবশেষে সিলেটে চলা পরিবহন ধর্মঘট স্থগিত করা হয়েছে। মঙ্গলবার (১৩ সেপ্টেম্বর) রাত ১০টায় প্রশাসনের হস্তক্ষেপে ধর্মঘট স্থগিত করা হয়। 

সিলেটের বিভাগীয় কমিশনার ড. মুহাম্মদ মোশাররফ হোসেনের আহ্বানে পরিবহন শ্রমিকদের নিয়ে রাতেই সিলেট সার্কিট হাউসে অনুষ্ঠিত বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়।

সিলেট জেলা বাস, মিনিবাস, কোচ ও মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়নের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলী আকবর রাজন সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, ‘আমরা ৫ দফা দাবিতে ধর্মঘট করেছিলাম। ১ দিন ধর্মঘট করার পর বিভাগীয় কমিশনার আমাদের নিয়ে বৈঠক করেছেন। আমরা প্রশাসনের আশ্বাসে আপাতত আগামী মাসের ১৫ তারিখ পর্যন্ত ধর্মঘট স্থগিত করেছি।’

সভায় উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক মো. মজিবর রহমান, সিলেট জেলা পুলিশ সুপার আব্দুল্লাহ আল মামুন, সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সেক্রেটারি অধ্যাপক জাকির হোসেন ও সিলেট জেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক সমন্বয় পরিষদের নেতারা।

সিলেট জেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক সমন্বয় পরিষদের ডাকে ৫ দফা দাবিতে মঙ্গলবার ভোর থেকে সিলেট জেলায় কর্মবিরতি পালন শুরু করেন পরিবহন শ্রমিকরা।

সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত  সিলেটের বিভিন্ন রাস্তায় ‘পিকেটিং’ করেন তারা। এতে স্কুল, কলেজ ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী এবং চাকরিজীবীরা বেশ ভোগান্তিতে পড়েন। 

উদ্ভূত পরিস্থিতিতে প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা পরিবহন শ্রমিক নেতাদের নিয়ে সিলেট সার্কিট হাউসে বৈঠকে বসেন। বৈঠকে প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের আশ্বাসে পরিবহন ধর্মঘট আগামী অক্টোবর মাসের ১৫ তারিখ পর্যন্ত স্থগিত করা হয়।

পরিবহন শ্রমিকদের দাবিগুলো হচ্ছে- সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের (এসএমপি) কমিশনার ও উপ-কমিশনারের (ট্রাফিক) অপসারণ, ট্রাফিক পুলিশের হয়রানি ও রেকার বাণিজ্যসহ মাত্রাতিরিক্ত জরিমানা বন্ধ, সিলেটে শ্রম আদালতের প্রতিনিধি শ্রমিক লীগের নাম ব্যবহার করে প্রভাব বিস্তারকারী নাজমুল আলম রোমেনকে প্রত্যাহার, উচ্চ আদালতের নির্দেশনার আলোকে পাথর কোয়ারি খুলে দেওয়া, ভাঙা রাস্তাগুলোর দ্রুত সংস্কার এবং নতুন সিএনজিচালিত অটোরিকশা বিক্রি বন্ধ ও বিক্রয়কৃত গাড়ির রেজিস্ট্রেশন দেওয়া। 

এ ছাড়াও, অনুমোদনহীন গাড়ি যেমন- অটোবাইক, ব্যাটারিচালিত রিকশা ও ডাম্পিংকৃত গাড়ি চলাচল বন্ধ রাখার দাবি জানিয়ে আসছেন পরিবহন শ্রমিকরা। এ আন্দোলনে একাত্মতা পোষণ করেছেন পরিবহন শ্রমিকদের ৬টি রেজিস্টার্ড সংগঠন। 

সংগঠনগুলো হচ্ছে- সিলেট জেলা বাস, মিনিবাস, কোচ ও মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়ন, সিলেট জেলা ট্রাক, পিকআপ, কাভার্ডভ্যান শ্রমিক ইউনিয়ন, ইমা লেগুনা হিউম্যান হুলার শ্রমিক ইউনিয়ন, সিলেট জেলা অটো টেম্পু অটোরিকশা শ্রমিক জোট, সিলেট জেলা ট্যাংক-লরি শ্রমিক ইউনিয়ন, সিলেট জেলা সিএনজি অটোরিকশা শ্রমিক ইউনিয়ন।

ইত্তেফাক/এইচএম