বুধবার, ০৫ অক্টোবর ২০২২, ১৯ আশ্বিন ১৪২৯
দৈনিক ইত্তেফাক

মাহমুদুল্লাহ কি থাকছেন বিশ্বকাপে?

আপডেট : ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৪:৪২

শিরোনামের প্রশ্নের উত্তর পেতে অপেক্ষা আর অল্প কিছুক্ষণের। আজ দুপুর আড়াইটার পরই ঘোষণা করা হবে আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকপের বাংলাদেশ একাদশ। দল ঘোষণার ডেডলাইন ১৫ সেপ্টেম্বর হলেও একদিন আগেই নিজেদের কাজটি সেরে ফেলতে চায় বাংলাদেশ দলের নির্বাচক কমিটি। এমনকি ইতোমধ্যে চূড়ান্ত হয়ে গেছে দল, শুধু আনুষ্ঠানিকভাবে জানানোটাই রয়েছে বাকি। তবে দল ঘোষণার চেয়েও এই মুহূর্তে বড় প্রশ্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সেই দলে থাকবেন তো অভিজ্ঞ অলরাউন্ডার মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ।  

বিশ্বকাপের দল প্রায় চূড়ান্ত হয়ে গেছে আগেই। তবে দু-একটি জায়গা নিয়েই ছিলো ধোঁয়াশা। ওপেনিংয়ে লিটনের সঙ্গী কে হবেন? পাঁচ নাম্বারে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ নাকি ইয়াসির আলী রাব্বী, শোনা গেছে সাব্বির রহমানের নামও। এই দুইটি জায়গা নিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার কথা বাংলাদেশের টেকনিক্যাল কনসালটেন্ট শ্রীধরন শ্রীরামের। গুঞ্জন শোনা গেছে, সৌম্য সরকারকে ফেরানো হচ্ছে বিশ্বকাপের স্কোয়াডে আর মাহমুদউল্লাহকে হটিয়ে দলে থাকতে যাচ্ছেন ইয়াসির আলী রাব্বী।

আবার এদিকে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দল ঘোষণা যত এগিয়ে এসেছে ততই ঘনীভূত হয়েছে মাহমুদুল্লাহর ব্যাপারটি। গত কয়েকদিন বিসিবি থেকে গণমাধ্যম বা সাধারণ ক্রিকেটপ্রেমী, সকলের আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতেই একটা বিষয়। অস্ট্রেলিয়াগামী বিমানে উঠবেন তো ৩৬ বছর বয়সী অভিজ্ঞ এই ক্রিকেটার।

এদিকে, মাহমুদুল্লাহকে নিয়ে করা প্রশ্নের জবাবে বোর্ড সভাপতির উত্তরও ছিলো বেশ সন্দিহান। তার ভাষায়, ‘যদি ও (মাহমদুউল্লাহ) করতে চায় (অবসর)। বা ওকে যদি আমরা স্কোয়াডে জায়গা দিতে না পারি তাহলে ওকে তো এটা সুযোগ দেওয়া উচিত (মাঠ থেকে অবসরের)। এইটুকু সম্মান ওকে করা উচিত। যেহেতু অনেক ম্যাচ জিতিয়েছে আমাদের। মাহমুদউল্লাহর অবদান খাটো করার সুযোগ নেই। মুশফিকও অবসর নিয়েছে, আমাদের খারাপ লাগে। আমি মনে করি খেলোয়াড়রা নিজেরা নিজেরা ঘোষণা না দিয়ে আমাদের সুযোগ দেয় তাহলে আমরা সেই সম্মান দিব।’  

এর আগে বাংলাদেশ দলের টেকনিক্যাল কন্সসালট্যান্ট শ্রীধরণ শ্রীরামের অধীনে সোমবার (১২ সেপ্টেম্বর) থেকে মিরপুরে শুর হয়েছিলো বিশ্বকাপের প্রস্তুতি ক্যাম্প। সেই ক্যাম্পে প্রথম দিন দেখা যায়নি মাহমুদুল্লাহকে। তবে প্রথমদিন ক্যাম্পে যোগ না দেয়াতেই যে রিয়াদ বিশ্বকাপ দলে থাকবেন না এমনটি নয় বলে জানিয়েছিলেন বাংলাদেশের টিম ম্যানেজার খালেদ মাহমুদ সুজন।

সেসময় সুজন জানিয়েছিলেন, ‘রিয়াদ বিশ্বকাপের দলে থাকবে কিনা সেটা নিয়ে এখনই চূড়ান্ত রায় দিয়ে দেয়ার সময় আসেনি। রিয়াদ যেহেতু এখনও এই ফরম্যাটে খেলে সে আর দশটা খেলোয়াড়ের মতোই। এখানে কার অভিজ্ঞতা আছে বা নেই, তার ওপর ভিত্তি করে আমরা কাউকে আলাদা করছি না। রিয়াদ যেমন গুরুত্বপূর্ণ, তেমনি রাব্বিও আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। সবাই জাতীয় দলের খেলোয়াড়।’

মাহমুদুল্লাহর কপালে কি ঘটতে চলেছে তা জানা যাবে আর কিছুক্ষণ পরেই। মিরপুরের বিসিবি কার্যালয়ে আজ দুপুরের কোন এক সময় দল ঘোষণা করবেন জাতীয় দলের নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু ও হাবিবুল বাশার সুমন। তদের সেই ঘোষণার পরই জানা যাবে টাইগারদের সাবেক অধিনায়ক কি সঙ্গী হবেন এবারের বিশ্বকাপ মিশনে। নাকি সমাপ্তি রেখার দ্বারপ্রান্তে গিয়ে দাঁড়াবে তার টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ার? দল ঘোষণার পর দলের টেকনিক্যাল কনসালটেন্ট শ্রীধরন শ্রীরামের সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথাও রয়েছে।

ইত্তেফাক/এসএস/এআই